Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ১২:৩২ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

মাদকে ধ্বংস হচ্ছে দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যুব সমাজ


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ১২:২৮ এএম:
মাদকে ধ্বংস হচ্ছে দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যুব সমাজ

মাদক ব্যবসায়ীদের মূল টার্গেট দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উঠতি বয়সের তরুণদের দিকে। স্কুল থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মাদকাসক্তের মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ীরা হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা অপর দিকে ধ্বংস হচ্ছে দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যুব সমাজ। মাদকের ভয়াবহতা এখন প্রান্ত থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত বিস্তৃত। সূত্র মতে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে রাজধানী পর্যন্ত নামি দামী অশংকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী সহ যুবক সমাজ দিন দিন মাদকের অভিশাপে জর্জরিত হচ্ছে। ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে বাংলাদেশ এখন আন্তর্জাতিক মাদক চোরাচালানের চিহিৃত স্পট হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। 

বাংলাদেশের প্রান্ত থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত অভিযান চালিয়েও যেন মাদকের অভিশাপ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। সুত্র মতে বাংলাদেশে যে পরিমান মাদক কেনা বেচা হয় তার বেশির ভাগই আচ্ছে সীমান্ত এলাকা দিয়ে। ভারতের সাথে আমাদের ২৮টি জেলায় প্রায় ৪ হাজার ২২২ কিঃ মিঃ সীমান্ত পথ রয়েছে। এ বিশাল সীমান্ত পথে চিহিৃত কতগুলো স্পট দিয়ে অবৈধ পথে বানের স্রোতের মত ফেনসিডিল সহ বিভিন্ন প্রকার মাদক আসছে। মোবাইল যোগাযোগের সুবিধায় এর প্রসার দিন দিনি বৃদ্ধি পাচ্ছে। মাদক চোরাকার বারীদের অত্যাধুনিক নেটওয়ার্ক ব্যবস্থার কাছে নিতান্তই অসহায় হয়ে পড়েছে মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। বাজার মনিটরিং ব্যবস্থার দূর্বলতার সুযোগে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে মাদকের ভয়াবহ বিস্তারে ধ্বংসেরদার প্রান্তে যুব সমাজ। সুত্র মতে বর্তমান দেশে মোট তরুন সমাজের প্রায় ৪৩ শতাংশই সিগারেট সেবন করে। 

সুত্র মতে বাংলাদেশ ভারত সীমান্তে ভারতীয় পাড়ে বিশেষ করে দক্ষিন চব্বিশ পরগনা জেলার নিম্ন অঞ্চলে নির্জন পরিবেশে অসংখ্য নকল ফেনসিডিলের কারখানা গড়ে উঠেছে শুধুমাত্র বাংলাদেশকে কেন্দ্র করে। এসকল কারখানা থেকে উৎপাদিত মাদক বিশেষ প্রক্রিয়ায় দেশী ও চোরাচালান এজেন্টের মাধ্যমে বানের স্রোতের মতো বাংলাদশে ঢেলে দিচ্ছে। এসব নকল ফেনসিডিলে কোডিন ফসফেট নামক ক্ষতিকর রাসয়নিক দ্রব্য মেশানো হচ্ছে যাতে অল্পতেই অধিক নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে। সুত্র মতে ভারত সীমান্তে নকল ফেনসিডিল কারখানার ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে আপত্তি ও অনুরোধ করার পরেও অদ্যবধি কোন ফল পাওয়া যায়নি। সীমান্ত চোরা চালানে দেশের ভিতরে মাদকের ভয়াবহতায় স্কুল কলেজগামী উঠতি বয়সের তরুন সমাজ সহ অর্থনীতিতে মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। সম্প্রতি রাজধানীর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এক সেমীনারে যোগাযোগ মন্ত্রি ওবায়দুল কাদের দেশকে মাদকের হাতথেকে রক্ষা করতে প্রথমে তরুন সমাজকে সচেতন করা প্রয়োজানীয়তার কথা উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন ধূমপান ও মাদক সেবায় দেশের অর্থনীতির ক্ষতি হচ্ছে, ধ্বংস হচ্ছে দেশের যুব সমাজ।

মাদক এতটাই সহজলভ্য হয়ে পড়েছে যে হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে নানা ধরনের মাদকদ্রব্য। তরুণসমাজের পাশাপাশি ক্রমশ কিশোরদেরও একটি বড় অংশ আজ মাদকাসক্ত। মাদকাসক্তরা যেমন নিজেদের ধ্বংস করছে, তেমনি পরিবারকেও ঠেলে দিচ্ছে ধ্বংসের পথে। অন্যদিকে মাদকের অবশ্যম্ভাবী অনুসর্গ হিসেবে তারা নানা রকম অপরাধকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। ফলে সামাজিক স্থিতি মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়ে পড়ছে। অথচ মাদক নিয়ন্ত্রণে রয়েছে রাষ্ট্রের আশ্চর্য রকম শৈথিল্য। 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top