Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ১২:১২ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
লক্ষ লক্ষ তরুণ-তরুণীদের কাঁদিয়ে ‘এবি’ উড়াল দিলেন আকাশে । প্রজন্মকণ্ঠ  কক্সবাজারের টেকনাফে দেশের সবচেয়ে বড় সৌরপ্রকল্প চালু । প্রজন্মকণ্ঠ  জাতীয় নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠাবে না ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কিন্তু কেন ?  কক্সবাজারে আত্মসমর্পণ করলেন ৬ দস্যু বাহিনীর ৪৩ সদস্য । প্রজন্মকণ্ঠ শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী মায়ের কবরের পাশে চির নিদ্রায় আইয়ুব বাচ্চু  প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচনা করার কারণেই খাশগজিকে হত্যা করা হয়  জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৮ দফা কর্মসূচি ঘোষণা  দেশের শান্তি ও অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি রোধে সবার প্রতি আহ্বান : রাষ্ট্রপতি কারিগরি শিক্ষা ও বিজ্ঞান শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের সংবাদ ৭ দিন বর্জনের আহ্বান : সাংবাদিক নারী সমাজ 

হাঙরের কাছে ফেলপসের হার


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৫ জুলাই ২০১৭ ১১:৫৫ এএম:
হাঙরের কাছে ফেলপসের হার

হেরে গেলেন আমেরিকান সাঁতারু মাইকেল ফেলপস। অলিম্পিকে সবচেয়ে বেশি স্বর্ণপদক পেলেও তিনি একটি হাঙরের সাথে সাঁতার 'প্রতিযোগিতায়' করে পরাজিত হয়েছেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় খোলা সাগরের একটি অংশে এই ১০০ মিটার সাঁতারের 'প্রতিযোগিতা' হয়, এবং তা সম্প্রচার করে ডিসকভারি চ্যানেল।

হাঙরটি ১০০ মিটার পার হয় ৩৬ দশমিক ১ সেকেন্ডে এবং মাইকেল ফেলপস ৩৮ দশমিক ১ সেকেন্ডে। তবে এখানে বলতেই হবে যে এই প্রতিযোগিতা কিন্তু ঠিক 'বাস্তব' ছিল না। ফেলপস এবং হাঙরটি পাশাপাশি সাঁতরায়নি। আসলে হাঙ্গর এবং ফেলপস আলাদা আলাদাভাবে ১০০ মিটার সাঁতার কাটেন, পরে একটি কম্পিউটার সিমুলেশনের মাধ্যমে এটিকে এক সঙ্গে দেখানো হয়। সামাজিক মাধ্যমে এর প্রশংসা-নিন্দা দুটিই দেখা গেছে। 

মানুষের মধ্যে যারা শ্রেষ্ঠতম অ্যাথলেট - তাদের চাইতেও এসব প্রাণী অনেক বেশি দ্রুতগতিসম্পন্ন। যেমন, মাইকেল ফেলপসকে মানা হয় মানুষের অ্যাথলেটিক দক্ষতার এক শ্রেষ্ঠ নিদর্শন হিসেবে। কিন্তু তিনি খালি পায়ে অর্থাৎ 'ফিন' না লাগিয়ে সর্বোচ্চ ৫ থেকে ৬ মাইল গতিতে সাঁতরাতে পারেন। কিন্তু একটি 'গ্রেট হোয়াইট' হাঙ্গর সর্বোচ্চ ২৫ মাইল পর্যন্ত গতিতে সাঁতরাতে পারে।

মাইকেল ফেলপস সাঁতরেছিলেন খালি পায়ে নয়, হাঙ্গরের লেজের মতো একটি 'মনো-ফিন' নিয়ে। তাতেও তিনি দু সেকেন্ড পিছিয়ে ছিলেন। মনো-ফিন ছাড়া এটাকে হয়তো কোনো 'প্রতিযোগিতা' বলা যেতো না। 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top