Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১০:২৯ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানকে আর্থিক অনুদান বন্ধের ঘোষণা আমেরিকার ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উপলক্ষে রাষ্ট্রপতির উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অংশ নেবেন আবদুল লতিফ সিদ্দিকী  ‘মদিনা সনদেই মহানবী (সা.) ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলেছেন’ : সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তিন বাহিনী প্রধানের সাক্ষাৎ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের হয়ে জাপার সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা  গুজব খবর : বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নিখোঁজ  ! আ'লীগ ও মহাজোটের মনোনয়ন ঘোষণা দিন পাঁচেক দেরি হবে : ওবায়দুল কাদের বিকৃত ইতিহাস থেকে দেশকে মুক্ত করতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী ঝিনাইদহে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান সমাপ্ত, আটক ১

পাইরেসির কবলে ‘গেম অব থ্রোনস’


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ১৯ আগস্ট ২০১৭ ৯:৪৯ এএম:
পাইরেসির কবলে ‘গেম অব থ্রোনস’

হলিউডের জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল ফ্যান্টাসি ড্রামা ‘গেম অব থ্রোনস’ বা সিংহাসনের খেলা। ছয়টি সিজনের ব্যাপক সফলতার পরে হয়েছে এর সিজন সেভেন।

সফল নির্মাতা ডিবি ওইজ আর ডেভিড বেনিউফ নির্মান করেন এই সিরিয়ালটি। 

‘মোস্ট পাইরেটেড শো’ হিসেবে ১ নম্বর আসনটি ‘গেম অব থ্রোনস’–এর। এ খবরে গেম অব থ্রোনস কর্তৃপক্ষ খুশি হতে পারে। কারণ এটি প্রমাণ করে, ধারাবাহিকটির চাহিদা বিশ্বজুড়ে তুঙ্গে। কিন্তু কে জানত, এই অনলাইন পাইরেসিই তাদের কাল হয়ে দাঁড়াবে?

সাধারণত প্রতিবার পর্বগুলো প্রচার হওয়ার পর টরেন্ট ও অন্যান্য অনলাইন প্লাটফর্মের মাধ্যমে দেশ–বিদেশের ভক্তরা ডাউনলোড করে দেখেন। এবার প্রচারের আগেই হ্যাক হয়ে গেল সপ্তম মৌসুমের চতুর্থ পর্ব। এইচবিও ইন্ডিয়ার কাছ থেকে প্রায় দেড় টেরাবাইট তথ্য হ্যাক হয়ে যায়। এর মধ্যে ধারাবাহিকটির ওই পর্বও ছিল। আমেরিকায় সম্প্রচারের পর পর্বগুলো ভারতে দেখানো হয়। ভারতে সিরিজটির বিপণনের দায়িত্ব ছিল স্টার টিভির।

স্পেনে ঘটল আরেক ঘটনা। স্বয়ং এইচবিও চ্যানেলই সপ্তম মৌসুমের ষষ্ঠ পর্ব প্রচার করে ফেলল। স্পেনের এইচবিও ও নর্ডিক অঞ্চলের এইচবিও ষষ্ঠ পর্ব প্রচারের চার দিন আগেই এই ভুলটা করে বসল। স্পেন ও নর্ডিক অঞ্চলে সাবস্ক্রাইবের মাধ্যমে এইচবিওতে এক ঘণ্টা ধরে পর্বটি দেখা যায়। এরপর ভুল বুঝতে পেরে কর্তৃপক্ষ পর্বটি সরিয়ে ফেলে। ততক্ষণে অনলাইনে ছড়িয়ে যায়। ভাইরাল হওয়ার জন্য এক ঘণ্টাই যথেষ্ট। অবশ্য নর্ডিক অঞ্চলে এমনটি কিন্তু এবারই প্রথম ঘটেনি। ষষ্ঠ মৌসুমের একটি পর্বও কয়েক ঘণ্টা আগে প্রচার করা হয়েছিল।

মার্কিন লেখক জর্জ আর আর মার্টিনের উপন্যাস আ সং অব আইস অ্যান্ড ফায়ার অবলম্বনে তৈরি হয়েছে এই ধারাবাহিক।

উত্তর আয়ারল্যান্ড, স্পেন, আইসল্যান্ডের বিভিন্ন লোকেশনে ২০১৬ সালের ৩১ শে আগস্ট থেকে চিত্রায়িত হয় সিজন সেভেন। সাত পর্বের এই সিজনটি শেষ হবে ২৭শে আগস্ট এবং এটিই এই সিরিয়ালের শেষ সিজন।

গত ১৬ই জুলাই এইচবিও চ্যানেলে প্রথম দিনেই বাজিমাৎ করে দেয় এর প্রিমিয়ার শোটি। রেকর্ড পরিমান ১৬.১ মিলিয়ন বা ১ কোটি ৬০ লাখের বেশি দর্শক পর্বটি সেদিন টিভিতে উপভোগ করেন, আর পরবর্তীতে পুন:প্রচার পর্বটি উপভোগ করেন এর চেয়েও বেশি পরিমান দর্শক। দর্শক সংখ্যার বিচারে যা সিজন সিক্স এর প্রিমিয়ার শো’র চেয়ে প্রায় ৫০ শতাংশ বেশী। এমনকি অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসেও সিজন ৭ অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে বলে দাবি করেছে এইচবিও কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, এইচবিও চ্যানেলের গর্ব গেম অব থ্রোনস সিরিজের প্রতিটি পর্ব বানাতে প্রায় ১ কোটি ডলার করে খরচ হয়।

গেম অফ থ্রোনস সিরিজের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা প্রতিনিয়ত দর্শকের প্রত্যাশাকে এমনভাবে বাড়িয়ে চলেছে, যা খোদ সিরিজটির জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন চলচ্চিত্র বোদ্ধারা।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top