Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৫:০৬ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের নিয়ে ডা. কামালের সরকারবিরোধী ঐক্য ব্যর্থ হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় শিশুসহ ৩২ জন বেসামরিক ব্যক্তি নিহত আগামী নির্বাচনের রোডম্যাপ ঘোষণা আসছে, জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশ আজ আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বি, জনগণ হৃদয় দিয়ে ভালোবাসে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | প্রজন্মকণ্ঠ মানুষের ভিড়ের ওপর দিয়ে চলে গেল ট্রেন, ৫০ জন নিহত | প্রজন্মকণ্ঠ তরুণী ও কম বয়সী রোহিঙ্গা মেয়েরা পাচারের শিকার হচ্ছে : জাতিসংঘ যারা বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন তারা বিকল্পধারার কেউ নন : মাহী বি চৌধুরী  আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের স্বাধীনতা এখনও পুরোপুরি অর্জন করতে পারিনি : রাষ্ট্রপ্রতি সর্বত্র মানুষের মঙ্গলের সুযোগ করে দিতে শেখ হাসিনার সরকার কাজ করছে : অর্থমন্ত্রী  সংস্কৃতি অঙ্গনে কালো ছায়া নেমে এলো | প্রজন্মকণ্ঠ

‘মানি ফাইট’ বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফাইট


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৬ আগস্ট ২০১৭ ৪:০৩ পিএম:
‘মানি ফাইট’ বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফাইট

সব জল্পনা কল্পনার ও প্রতীক্ষার অবসান শেষে মুখোমুখি হচ্ছেন বিশ্বের সেরা দুই যোদ্ধা৷ ফ্লয়েড মেওয়েদার বনাম কনর ম্যাকগ্রেগর, একজন বক্সিং রিংয়ের কিংবদন্তি মেওয়েদার। আর তাঁর প্রতিপক্ষ মিক্সড মার্শাল আর্টসের রাজা। আগেই নির্ধারিত ছিল। এখন শুধু বাকি মঞ্চের। 

শনিবার লাস ভেগাসে দুই যুধুধান প্রতিপক্ষ। শনিবার রাতে হতে চলা যে ঐতিহাসিক লড়াই কেবল মার্কিন মুলুকই নয় দুলিয়ে দিয়েছে গোটা দুনিয়াকেই! বাণিজ্যিক দুনিয়া ইতিমধ্যেই এই লড়াইকে আখ্যা দিয়েছে ‘মানি ফাইট’ হিসেবে।

কেন? টিকিট বিক্রি, টিভি সত্ত্ব, স্পনসরশিপ, বেটিং—সব মিলিয়ে শনিবারের এই লড়াই উপার্জন করতে চলেছে ৬০ কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ। একজন বক্সার ও একজন মিক্সড মার্শাল আর্টস তারকার লড়াই সে অর্থে ধ্রুপদী না হলেও, রিংয়ে নামার আগেই এই লড়াই মনে করিয়ে দিচ্ছে দু’বছর আগে মেওয়েদার বনাম ম্যানি পাকিয়াও লড়াইকে। যে লড়াই থেকে আয় হয়েছিল ৬২.৩ কোটি মার্কিন ডলার। কোনও কোনও প্রচারমাধ্যম থেকে দেখানো হচ্ছে মেওয়েদার-পাকিয়াও লড়াইয়ের সময় এক মিনিটেরও কম সময়ে টিকিট বিক্রি হয়ে গিয়েছিল। যেখানে সবচেয়ে কম দামের টিকিট ছিল চার হাজার মার্কিন ডলারের। সেখানে মেওয়েদার-ম্যাকগ্রেগর লড়াইয়ের টিকিট বিক্রি অনেকটাই স্লথ। টিকিটের মূল্যও অনেক কম দামের।

যদিও পেশাদার এই লড়াইয়ের টিকিট ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে জড়িত প্যাট্রিক রায়ান বলছেন, ‘‘শনিবার লাস ভেগাসের টি-মোবাইল এরিনা ভরে যাবে মেওয়েদার-ম্যাকগ্রেগর লড়াই দেখতে। কুড়ি হাজার আসনের একটাও ফাঁকা থাকবে না। তা ছাড়া এটা খেতাবের জন্য লড়াই নয়। একটা প্রদর্শনী ম্যাচ। আর দু’বছর আগের সেই লড়াই হয়েছিল ষোলো হাজারের কিছু বেশি দর্শকের সামনে। রোজগারের নতুন রেকর্ড হতে পারে।’’ লাস ভেগাসে লড়াইয়ের অন্যতম আয়োজক ডানা হোয়াইটও বলছেন, ‘‘আগের সব লড়াই থেকে যে অর্থ সংগ্রহ হয়েছিল তা ভেঙে দেবে মেওয়েদার-ম্যাকগ্রেগর-এর লড়াই। বিশ্বের ২০০ টি দেশের একশো কোটি বাড়িতে টিভিতে এই লড়াই দেখা যাবে। টিভি সত্ত্ব থেকেই যে অর্থ উঠে আসবে সেটাই আগের সব রেকর্ড ভেঙে দেবে।’’

বক্সিং রিংয়ে এই মুহূর্তে মেওয়েদারের জয়ের পরিসংখ্যান ৪৯-০। সেখানে ২৯ বছরের ম্যাকগ্রেগরের মিক্সড মার্শাল আর্টসে জয়ের পরিসংখ্যান ২১-৩।

গত জুনে টিম হেগ নামে ৩৪ বছরের এক মিক্সড মার্শাল আর্টস শিল্পী বক্সার অ্যাডানম ব্রেইডউডের বিরুদ্ধে লড়তে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছিলেন। সেই নজির তুলে ধরে লাস ভেগাসের এই ঐতিহাসিক লড়াইয়ের আগেই আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন রিং-এ শুশ্রুষার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকরা। এদেরই একজন ল্যারি লাভলেস। তিনি বলছেন, ‘‘জানি না কী ভাবে এই লড়াইয়ের অনুমতি মিলল। ভয় করছে ম্যাকগ্রেগরের জন্য।’’

১৫৪ পাউন্ডের ১২ রাউন্ড লড়াইয়ে অর্থের অঙ্ক সব রেকর্ড ছাপিয়ে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ এটাই সম্ভবত হতে পারে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফাইট৷ এমনিতেই মেওয়েদারকে ‘মানি ম্যান’ বলা হয়, তিনি যেখানেই যান টাকা ছড়ান৷এর আগে ফ্লয়েড মেওয়েদার ও ম্যানি প্যাকিয়াওয়ের ম্যাচটা নিয়ে উত্তেজনা ছিল চরমে৷১০০ বছরের বক্সিংয়ের ইতিহাসে সেটিই ছিল সবচেয়ে দামি ম্যাচ৷ওই ম্যাচ জিতে মেওয়েদার পেয়েছিলেন ১৫০০ কোটি টাকা ও প্যাকিয়াও পান ৯০০ কোটি টাকা৷

মজার কথা, পাঁচটি ওজন বিভাগে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন মেওয়েদার ২০১৫-তেই অবসর নিয়েছিলেন। ৪৯টি লড়াইয়ের পরে। যার কোনওটিতেই তিনি হারেননি। অবশ্য এটাই প্রথম নয়, এর আগেও তিনি অবসর নিয়েছিলেন ২০০৮ সালে ৩৯টি লড়াইয়ের পরে। এটা সত্যি যে ম্যাকগ্রেগর এর আগে পেশাদার বক্সিংয়ে কোনও দিন লড়েননি। তবে তিনি ইউএফসি-র ইতিহাসে প্রথম যিনি দুটি বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজির গড়েছেন।

বক্সিং লাইসেন্সের আবেদন জানান তিনি গত বছরের শেষের দিকে। শেষ পর্যন্ত ডিসেম্বরে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট অ্যাথলেটিক কমিশন তাঁকে মার্কিন মুলুকে বক্সিং করার অনুমতি দেয়। ম্যাকগ্রেগরের শিবিরের অন্যতম এক কর্তা বলেছেন, ‘‘কনর ম্যাকগ্রেগর আজ এই জায়গায় এমনি এমনি পৌঁছয়নি। ম্যাকগ্রেগর যে কোনও প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে, যে কোনও সময়ে, যে কোনও জায়গায় লড়াই করার ক্ষমতা রাখে। ফ্লয়েড মেওয়েদারকেও নকআউট করার চেষ্টা করবে ম্যাকগ্রেগর।’’

বছর খানেক ধরেই দু’জনের লড়াইয়ের আশায় ছিল সমর্থকরা। হয়তো দু’জনেই দীর্ঘদিন ধরেই চাইছিলেন লড়াইটা হোক। না হলে কেন বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে একে অন্যের প্রসঙ্গ এক বার হলেও তুলতে দেখা যাবে দু’জনকে!

৪০ বছরের মেওয়েদারের বিরুদ্ধে ২৮ বছরের ম্যাকগ্রেগরের এই মেগা-লড়াইয়ে কে জিততে পারেন?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেওয়েদারের প্রতিদ্বন্দ্বীর বয়স কিন্তু অনেকটাই কম, ক্ষিপ্রতা তাই বেশি থাকবে, আর কনর যখন কাউকে মারেন, সে মাটিতে আর দাঁড়িয়ে থাকে না। মেওয়েদারেরও চ্যালেঞ্জটা তাই মোটেই সোজা হবে না।

লড়াইটি অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ সময় রবিবার সকাল ৮ টায়।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top