Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ১২:৩১ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

মেওয়েদার-ই জিতলেন ৪৮৭০ কোটি টাকার ম্যাচ


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৭ আগস্ট ২০১৭ ৫:৫৬ পিএম:
মেওয়েদার-ই  জিতলেন ৪৮৭০ কোটি টাকার ম্যাচ

মেওয়েদারের শক্তিশালী পাঞ্চেই ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন মিক্সড মার্শাল আর্ট চ্যাম্পিয়ন কনর ম্যাকগ্রেগর৷ দশম রাউন্ডে একসময় ম্যাকগ্রেগরকে রোপের ধারে কোনঠাসা করে দু’হাতে একের পর এক পাঞ্চ চালাতে শুরু করেন মেওয়েদার৷ আর সে সময়ই রোপের সামনে ব্যালেন্স হারিয়ে ম্যাকগ্রেগর ম্যাচ হেরে বসেন৷ দশম বাউটের ১.৫৫ মিনিট আগেই টেকনিকাল নকআউটে মেওয়েদারকে বিজয়ী ঘোষণা করেন রেফারি৷

ইউ এফ সি-র প্রতিযোগী ম্যাকগ্রেগরকে হারিয়ে বক্সিংয়ে নয়া নজির গড়লেন ৪০ বছরের বর্ষীয়ান মেওয়েদার৷ এই নিয়ে ৫০টি বাউটে জয় পেলেন মার্কিন কিংবদন্তী বক্সার৷ ম্যাচ জিতে অবসর ঘোষনা করেছেন ফ্লয়েড৷ এদিন ম্যকগ্রগরকে হারিয়ে প্রো বক্সিংয়ে রকি মারসিয়ানোর ৫০-০’রেকর্ড ছুঁলেন তিনি৷ অন্যদিকে  কনরের এটাই ছিল প্রো বক্সিংয়ে অভিষেক ম্যাচ৷ এই ম্যাচ দেখতে শনিবার টি এরিনায় দর্শক হয়েছিল প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার

দুবছর আগেও ফ্লয়েড মেওয়েদারকে নিয়ে এমন খবর ছাপাতে হয়েছে সংবাদমাধ্যমকে। এরপর মেওয়েদার অবসর নিয়ে দুদণ্ড শান্তি দিয়েছিলেন সবাইকে। যাক, অন্যের টাকা-পয়সা গোনার দায়িত্ব থেকে রেহাই পেল খেলার পাতা। কিন্তু বিধি বাম, আবারও হাজির হয়েছেন এই বক্সার। আরেকটি মাল্টি মিলিয়ন ডলার লড়াই জিতে কাঁপিয়ে দিয়েছেন খেলার জগৎ। প্রতিটি জ্যাব আর পাঞ্চে উশুল করে নিয়েছেন হাজার হাজার কোটি টাকা!

বাংলাদেশ সময় আজ সকালে যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে হয়ে গেল সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে আলোচিত বক্সিং লড়াই। শুরুর রাউন্ড থেকেই দুপক্ষের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শুরু হয়৷ প্রথম রাউন্ডেই মেওয়েদারকে আপার কাপ দিয়ে কুস্তির মহাকাব্যিক লড়াইয়ে স্বাগত জানান ম্যাকগ্রেগর৷ লাস ভেগাসের প্রো বক্সিং রিংয়ের কনরের এটা প্রথম ম্যাচ হলেও প্রথম রাউন্ডের শেষে মেওয়েদারের  তুলনায় তাঁকেই বেশি আক্রমণাত্মক ও আত্মবিশ্বাসী লাগছিল৷

দ্বিতীয় রাউন্ডে অবশ্য বর্ষীয়ান বক্সারের থেকে দূরত্ব বজায় রেখে খেলেছিলেন ইউ এফ সি-র জগতের পরিচিত এই মুখ৷ এর পরের রাউন্ডেও ম্যাকগ্রেগরই ম্যাচে আধিপত্য দেখাছিলেন৷ এরপরই ম্যাচের পট পরিবর্তন৷ চতুর্থ রাউন্ড ডিফেন্সিভ না খেলে দুরন্ত প্রত্যাঘাত করেন ফ্লয়েড৷ আর তাতেই ম্যাচের রঙ পাল্টে যায়৷

পঞ্চম রাউন্ডের আক্রমন ধরে রেখে মার্কিন বক্সার কনারকে কিছুটা ক্লান্ত করে দেন৷ এর পরের তিন রাউন্ড আক্রমনের ঝড় তুলে ম্যাককে একপ্রকার পিছনে ফেলে দেন তিনি৷

এভাবেই নবম রাউন্ড পর্যন্ত ধীরে ধীরে আইরিশ মিক্স মার্শাল আর্ট স্পেশালিস্ট ম্যাকগ্রেগরকে ক্লান্ত করে দেন মেওয়েদার৷ শেষ পর্যন্ত দশম রাউন্ডে একের পর এক বিষাক্ত পাঞ্চে কর্নরের ব্যালেন্সে ছন্দপতন করে বাউট জিতে নেন মেও৷

ম্যাচ জিতে প্রতিদ্বন্দ্বী কনার সম্পর্কে মেওয়েদার বলেন, ‘অভিষেক ম্যাচে ম্যাকগ্রেগর এত ভাল ফাইট করবে ভাবিনি৷ ওঁকে যা ভেবেছিলাম, তার চেয়ে আজ ও অনেক ভাল খেলে আমাকে ভুল প্রমাণ করল৷’

এই জয় দিয়ে ২০০ মিলিয়ন ডলারও জিতেছেন মেওয়েদার। তবে সিএনএনের দাবি, এই ফাইট থেকে সব মিলিয়ে প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ডলার (৩ হাজার ২০০ কোটি টাকারও বেশি) পাবেন মেওয়েদার। অবশ্য ‘মানি’ ডাকনামের এই বক্সার কদিন আগে জিমি কিমেল শোতে দাবি করেছিলেন, হার-জিত যা-ই হোক না কেন, অন্তত সাড়ে তিন শ মিলিয়ন ডলার নিয়েই রিং ছাড়বেন তিনি। সব মিলিয়ে এই ম্যাচ ৬০০ মিলিয়ন ডলারের আয় এনে দেবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। বাংলাদেশি টাকায় যেটি ৪ হাজার ৮৭০ কোটি টাকা!

দুবছর আগে ম্যানি প্যাকিয়াওকে হারিয়ে ৪৯তম জয় নিয়ে অবসরে গিয়েছিলেন। হোটেল রুমে নোটের বান্ডিলের মাঝে শুয়ে ছবি তুলে সবাইকে সেটা দেখিয়েছিলেন। এবার কী করবেন তিনি?

এবারের লড়াইটা প্যাকিয়াও-মেওয়েদারের লড়াইয়ের চেয়েও কয়েক গুণ বেশি উন্মাদনা তৈরি করেছিল। এতটাই ‘ট্রেন্ড’ তৈরি করেছিল, গুগলে শুধু হোয়েন (when) লিখলে অটোসাজেশন হিসেবে প্রথমেই দেখাত ‘মেওয়েদার ও ম্যাকগ্রেগরের ফাইট কখন?’ উন্মাদনার আসল কারণ মেওয়েদারের প্রতিপক্ষ। ম্যাকগ্রেগর আগে কখনো পেশাদার বক্সিংয়ের লড়াইয়ে নামেননি। এটাই ছিল তাঁর প্রথম লড়াই। মিক্সড মার্শাল আর্টের আল্টিমেট ফাইটিংয়ের (ইউএফসি) লাইট ওয়েট বিভাগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। তাঁর জীবনের গল্পটাও অদ্ভুত। চার বছর আগেও বেকার পানির মিস্ত্রি থেকে অবিশ্বাস্য উত্থান হয়েছিল। মিক্সড মার্শাল আর্ট তাঁকে যশ, খ্যাতি—সবই দিয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই এই লড়াইয়ে মেওয়েদার ছিলেন হট ফেবারিট। শুধু বয়স আর দুই বছর রিংয়ের অনুপস্থিতি, যা একটু আশা দেখাচ্ছিল ম্যাকগ্রেগরকে। শেষ পর্যন্ত পারেননি। নিজে থেকে হাল ছাড়তেও রাজি ছিলেন না। তবে দুই রাউন্ড আগেই তাঁর বেগতিক অবস্থা দেখে রেফারি নিজে থেকে ম্যাচের শেষ ঘোষণা করেন।

পেশাদার বক্সিংয়ে অভিষেকে একালের সেরা বক্সারের মুখোমুখি হওয়ার সাহস দেখানোর জন্যই ম্যাকগ্রেগর বাহবা পাচ্ছেন। পয়সাকড়িও কম জুটছে না। হেরে গেলেও অন্তত ১০০ থেকে ১২০ মিলিয়ন ডলার পাচ্ছেন তিনিও।

কিছুদিন ধরেই এই ফাইট নিয়ে উত্তেজিত বক্সিং ও ইউএফসি জগতের লোকজন। মাত্র ২০ হাজার দর্শকের একটি প্রদর্শনী ম্যাচের টিকিট বিক্রি করেই ৭০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছে আয়োজকেরা। আর পে-পার-ভিউ থেকে আয়ের অঙ্কটার মোট হিসাব এখনো মেলেনি। ৯৯ ডলার দিয়ে সরাসরি এ ম্যাচ দেখার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে টিভি দর্শকদের। ধারণা করা হচ্ছে, প্রায় ৫০ লাখ মানুষ সরাসরি দেখেছে এ ফাইট। সে ক্ষেত্রে পে-পার-ভিউ থেকেই প্রায় ৪৮ কোটি ৫০ লাখ ডলার আয় করেছে আয়োজকেরা। সব মিলিয়ে ৬০০ মিলিয়ন ডলার উঠে আসার কথা এ লড়াই থেকে।

তার বড় অংশ মেওয়েদার বাগিয়ে নিয়ে গেলেন। আর এই জয় দিয়ে নিজের প্রাইজমানির অঙ্কটাও এক বিলিয়ন ডলার পার করিয়ে চূড়ান্ত অবসরের ঘোষণা দিলেন মেওয়েদার।

বাকি সব খেলার খেলোয়াড় হিংসা করতেই পারেন। ২০১৪ বিশ্বকাপ জয়ী দল প্রাইজমানি পেয়েছে ৩৫ মিলিয়ন ডলার। উইম্বলডন জিতে রজার ফেদেরার পেয়েছেন ২.২ মিলিয়ন পাউন্ড। ২০১৫ ক্রিকেট বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন হয়ে অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ৩.৯ মিলিয়ন ডলার।

বাকি কোন খেলাতেইবা এভাবে শরীরে আর মুখে আঘাতের পর আঘাত সহ্য করে টিকে থাকতে হয়।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top