Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৫:১৯ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ভাসানীর আদর্শকে ধারণ করে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হওয়ার আহ্বান  তরুণ ভোটারদের প্রাধান্য দিয়ে প্রণয়ন করা হচ্ছে আ'লীগের ইশতেহার  মওলানা ভাসানীর ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ  বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত করা হয়নি  দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪, নিখোঁজ সহস্রাধিক রাজনৈতিক দলগুলোর রেকর্ড পরিমান মনোনয়নপত্র বিক্রি ঐক্যফ্রন্ট সংখ্যাগরিষ্ট আসন পেলে কে হবেন প্রধানমন্ত্রী ?  আ’লীগ নেতা রেজনু ও ছাত্রদল নেতা জিলানির ফোনালাপ ফাঁস প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের ইসিকে সহযোগিতার নির্দেশনা | প্রজন্মকণ্ঠ আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে চারজন নিহত | প্রজন্মকণ্ঠ

আর্নাল্ড শোয়ার্জনেগারের জীবনে পরিক্রমার এক জীবনবোধের উপস্থাপন


ওয়াহিদুজ্জামান, খুলনা জেলা সংবাদদাতা

আপডেট সময়: ২৩ অক্টোবর ২০১৭ ৯:২৩ এএম:
আর্নাল্ড শোয়ার্জনেগারের জীবনে পরিক্রমার এক জীবনবোধের উপস্থাপন

জীবনটা সাবলীলতার ছকে আমরা যতটা না দেখি, তার থেকে প্রত্যাশার বিস্তৃত শাখা-প্রশাখায় নীল সপ্নকে লেপ্টে রাখি।

সহজ জীবনে সমূহ বাস্তবিক অনুভুতি কখনো ভ্রমাত্মক ভাবনায় - সমাপিত হয়। ভাঙে নীল আশার আলো! জাগতিক জীবনটা কেউ না চাইলেও অনেক যোগের সমাহারে জীবনে যোগ আনে। কেউবা সহজাত মৌলিক দারিদ্র্যতাকে বন্ধুবেশে জীবন পার করে। এটাও যে এক অনিন্দ্য প্রাপ্তি, তা আমরা মানতে নারাজ!

জীবনে যে অর্জিত ক্ষমতা ও খ্যাতির আড়ালে বন্দনার স্খালন রয়েছে, তা আমরা অনেকে না মেনে প্রতিবাদী হতে যেয়ে হোচট খাই!

তেমনই এক সুচারু শিক্ষার অনুভূতির গল্প- বিখ্যাত অভিনেতা আর্নাল্ড শোয়ার্জনেগারের জীবনের চলার পথের বর্নিত স্মরণী।

                            
গল্পটি ছিলো এভাবে বর্নিত-

বিখ্যাত অভিনেতা আর্নল্ড শোয়ার্জনেগার তার নিজের সুবিখ্যাত ব্রোঞ্জ মূর্তির সামনে নিদ্রিত অবস্থার একটা ফটো পোস্ট করেন এবং ক্যাপশনে লিখেন -

সময় কীভাবে বদলায়!!

তিনি বৃদ্ধ হয়েছেন বলে এই বাক্যটি লেখেননি। তার এই ব্রোঞ্জ মূর্তিটি এই হোটেলটির সামনে যখন স্থাপন করা হয় তখন তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর ছিলেন এবং তিনিই হোটেলটি উদ্বোধন করেন।

হোটেলের কর্মচারীরা তাকে সম্মানের সাথে প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেছিলো, যে কোন সময় আপনি এই হোটেলে এলে আপনার জন্য একটি সংরক্ষিত কক্ষ থাকবে।

পরবর্তীতে আর্নল্ড সেই হোটেলে গেলে তাকে হোটেল প্রশাসন থেকে বলা হয় যে, এই মুহুর্তে কোন ঘর খালি নেই তাই আপনাকে আমাদের ফেরাতে হচ্ছে।

তিনি তখন একটি স্লিপিং জ্যাকেট এনে তার মূর্তির নীচে ঘুমিয়ে পড়েন এবং তার এই অবস্থা কল্পনা করার অনুরোধ করেন অন্যদের।

তিনি এটাই বলতে চেষ্টা করেছেন যে, মানুষ যখন তার অবস্থানে থাকে তখন মুল্যায়িত হয়, অন্যথায় নয়।

সময় বদলায়...... নিজের অবস্থান, ক্ষমতা বা বুদ্ধিমত্তার উপর অতিরিক্ত আস্থাবান হওয়া উচিৎ নয় কারোরই। স্থায়ী বলে পৃথিবীতে কিছু নেই।

গল্পটির মাঝদিয়ে তিনি বোঝাতে চেয়েছেন- মানুষ পরিবর্তনশীল। মানুষের বাস্তবিক পরিস্থিতি মানুষকে মুল্যায়িত কিংবা অবমূল্যায়িত করে। এটাই জগতিক নিয়ম।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top