Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ৯:২১ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

বিএনপি নেতা সাবেক মন্ত্রী এম কে আনোয়ার ইন্তেকাল করেছেন


নিজস্ব প্রতিবেদক

আপডেট সময়: ২৪ অক্টোবর ২০১৭ ৬:২৭ এএম:
বিএনপি নেতা সাবেক মন্ত্রী এম কে আনোয়ার ইন্তেকাল করেছেন

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী এম কে আনোয়ার ইন্তেকাল করেছেন  (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার দিবাগত রাত ১টা ২০ মিনিটে এলিফ্যান্ট রোডের বাসভবনে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

গত দুই বছর ধরেই এম কে আনোয়ার নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। তার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে গভীর রাতে শোকার্ত স্বজনের ঢল নামে এলিফ্যান্ট রোডে বাসভবনে। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। 

তার মৃত্যুতে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গভীর শোক  প্রকাশ করেছেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। 

বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের কর্মকর্তা শামসুদ্দীন দিদার গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বাধর্কজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়। 

বর্ণাঢ্য এই রাজনীতিকের পুরো নাম মোহাম্মদ খোরশেদ আনোয়ার সংক্ষেপে তিনি এম কে আনোয়ার হিসেবেই সর্বময় পরিচিত। তিনি ১ জানুয়ারি ১৯৩৩ সালে কুমিল্লার হোমনায় জন্মগ্রহণ করেন। এককালের জাদরেল সিএসপি আমলা এম কে আনােয়ার প্রশাসনিক জীবনে অবসর নিয়ে ১৯৯১ সাল থেকে টানা পাঁচবার কুমিল্লার নির্বাচনী এলাকা বিএনপির প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন। খালেদা জিয়ার শাসনামলে তিনি দুবার মন্ত্রী হিসেবে দক্ষতার সঙ্গে রাষ্ট্র পরিচালনায় অংশ নেন। সংসদে নানা বিতর্কে অংশ নিয়ে সবার দৃষ্টি কাড়েন। আওয়ামী লীগ শাসনামলে তিন জেলও খেটেছেন। 

১৯৫৬ সালে পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসে যোগ দেয়ার মধ্য দিয়ে সরকারি চাকুরে হিসেবে পেশাজীবন শুরু হয় এম কে আনোয়ারের। ১৯৯০ সাল পর্যন্ত তার ৩৪ বছরের পেশাগত জীবনে তিনি ফরিদপুর ও ঢাকার ডেপুটি কমিশনার, জুটমিল কর্পোরেশনের সভাপতি, টেক্সটাইল মিল কর্পোরেশনের সভাপতি, বাংলাদেশ বিমানের সভাপতি এবং প্রশাসনে বিভিন্ন উচ্চপদে দায়িত্ব পালন করেন। প্রশাসনের সর্বোচ্চ পদ মন্ত্রিপরিষদ সচিব ছিলেন তিনি। ১৯৭২ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত তিনি প্রশাসনে বিভিন্ন উচ্চপদে পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। সিএসপি কর্মকর্তা  এম কে আনোয়ার ১৯৭১ সালে ঢাকা জেলার প্রশাসক ছিলেন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top