Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ , সময়- ১০:০৩ পূর্বাহ্ন
Total Visitor:
শিরোনাম

শিবির নেতাদের ছাত্রলীগের নেতৃত্বে বসালো সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগ


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

আপডেট সময়: ১৮ নভেম্বর ২০১৭ ১১:৪১ পিএম:
শিবির নেতাদের ছাত্রলীগের নেতৃত্বে বসালো সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগ

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কমিটিতে জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মীদের অনুপ্রবেশ ঘটাচ্ছে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগ। বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামের ছাত্র সংগঠন শিবিরের চরমপন্থি নেতাকে এবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের।

সুদীর্ঘ ৫ বছর সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন না হওয়ায় হতাশা ও ব্যার্থতায় ভূগছিলেন দলের ত্যাগী ও পরিশ্রমী ছাত্রনেতারা। সেই সাথে সাংগঠনিক ভাবে কিছুটা নড়বড়ে অবস্থায় ছিল। ঠিক এই মুহুর্তে গত ১০ ই নভেম্বর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি মারফত জানায়, সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগকে আরও গতিশীল ও বেগবান করার লক্ষে আগামী ২৮ শে নভেম্বর সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে এজন্য জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। 

সাধারণত সম্মেলনের তারিখ ঘোষনা হলে কমিটির সকল নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে কাউন্সিলর ও ডেলিগেট তৈরীর কার্যক্রম করে থাকে। কিন্তু সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের চেহারাটা সম্পূর্ণ ভিন্ন। কেন্দ্রের নির্দেশ ও নেতাদের তোয়াক্কা না করেই তাদের অধিনস্থ ইউনিটের কমিটি গঠন শুরু করেছে। এসব কমিটিতে জামাত-শিবির পরিবারের ছেলেদের কে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে নেতা বানানো হচ্ছে বলে বর্তমান জেলা কমিটির সভাপতি তানভীর হুসাইন সুজন ও সাধারণ সম্পাদক এহসান হাবীব অয়নের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে কতিপয় আওয়ামী পরিবারের ছাত্রনেতারা। কালিগঞ্জের বাজারগ্রাম, রহিমপুরের শেখ ইব্রাহীম ও শেখ শাওন আহমেদ সোহাগ, একজন শিবিরের সক্রিয় নেতা। ইহা ছাড়াও কালিগঞ্জের হেভিওয়েট জামাত-শিবিরের নেতাদের সাথে তার ব্যাপক ঘনিষ্ঠতাও রয়েছে। কালিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাহিত্য বি. চৌধুরী বলেন, ইনভেস্টিগেশন না করে এরকম ভাবে ছাত্রলীগের কমিটি দিলে বঙ্গবন্ধুর আত্মা কষ্ট পাবে। জেলা ছাত্রলীগের একটা ছাত্রলীগকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রুপান্তরিত করেছে।

আরেক উর্ধ্বতন নেতা অনিক মেহেদী ও রাশিদুল ইসলাম চরম ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, ছাত্রলীগের নেতা যেই হোক না কেন সে প্রকৃতপক্ষে আওয়ামী পরিবারের সন্তান হলে কোন সমস্যা ছিল না। তবে শাওন আহমেদ সোহাগের মত শিবিরের ক্যাডার যদি ছাত্রলীগের নেতৃত্বে আসে তবে সাতক্ষীরার মাটি থেকে আওয়ামীলীগের নামটা মুছে যেতে সময় লাগবে না। সেই সাথে দলের ত্যাগী কর্মীরা প্রচন্ড ক্ষোভ নিয়ে মনে কষ্ট পাবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক নেতা বলেন, শাওন আহম্মেদ সোহাগ নিজেকে বড় মাপের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কালিগঞ্জ কলেজ ও পাইলট স্কুলে চাঁদাবাজি করে। আমরা অনতিবিলম্বে ইহার উপযুক্ত ব্যবস্থা চাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নলতা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও যুবলীগের নেতারা বলেন, এই কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ শাহরিয়ারের মা জামাতের রুকন সদস্য। এবং ফিরোজ শাহরিয়ার নিজে ঢাকার এক জামাতের প্রতিষ্ঠানে চাকুরিরত অবস্থায় পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এবং ২২ দিন ঢাকার জেলে থাকেন। পরবর্তীতে এলাকায় এসে নিজের সুর পাল্টিয়ে টাকার বিনিময়ে ছাত্রলীগে যোগ দেয় এবং দল থেকে সুবিধা নিতে শুরু করে। সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের এহেন কর্মকান্ডে চরম অসন্তোষ ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top