Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৮ , সময়- ১:৪৯ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
গাজীপুর সিটি : মেয়র প্রার্থীদের হলফনামায় নির্বাচনী হিসাব ও আয়-ব্যয় কার কত ?   সাকিব, মুস্তাফিজুরদের সঙ্গে বছরে ৫০ লাখের চুক্তি করল ক্রিকেট বোর্ড রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের প্রতি কমনওয়েলথের সংহতি প্রকাশ রানী এলিজাবেথের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় পরিবহন খাতের বিশৃঙ্খলা : আমি মন্ত্রী, আমি কি দায় এড়াতে পারব ? শান্তিরক্ষা মিশনে আত্মোৎসর্গকারী ৫ বাংলাদেশিকে স্মরণ করলো জাতিসংঘ খুলনা-গাজীপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে ১৪ দলের সমর্থন টাইম ম্যাগাজিনে বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালীর তালিকায় শেখ হাসিনা খুলনায় ৮শ’ মেগাওয়াটের বিদ্যুৎ কেন্দ্র হবে শেখ হাসিনা ও মোদি বৈঠক : দ্বিপক্ষীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা

কাল টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু


অনলাইন ডেষ্ক

আপডেট সময়: ১১ জানুয়ারী ২০১৮ ১০:৩৯ এএম:
কাল টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু

টঙ্গীর তুরাগ নদীর পূর্ব তীরে তাবলিগ জামাতের ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে। ফজরের নামাজের পর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে ইজতেমা শুরু হবে। ১৪ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্ব শেষ হবে। এরই মধ্যে দেশ-বিদেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ইজতেমা ময়দানে এসেছেন। নেওয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা।

ইতোমধ্যে ইজতেমার যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। পবিত্র হজের পর মুসলমানদের বৃহত্তম এ ধর্মীয় সমাবেশে দেশ বিদেশের লাখো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। এবারের দু’পর্বের ছয়দিনের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের তিনদিনের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে ১২ জানুয়ারি। আর দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা শুরু হবে ১৯ জানুয়ারি। দু’পর্বেই পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত। প্রথম পর্বের ১৪ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্বের ২১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, এবার বিশ্ব ইজতেমায় অন্যবারের চেয়ে বেশি নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পুলিশের প্রায় সাত হাজার সদস্য মোতায়েন থাকবেন। ওয়াচ টাওয়ার ও সিসি ক্যামেরাও লাগানো হয়েছে বেশি।

ইজতেমার মুরব্বি ও জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ১৫টি গভীর নলকূপের মাধ্যমে ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের অজু-গোসলের জন্য প্রতিদিন প্রায় চার কোটি লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হবে। এ ছাড়া মুসল্লিদের জন্য পর্যাপ্তসংখ্যক টয়লেট ও গোসলখানা স্থাপন করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ২৬টি ফগার মেশিনের মাধ্যমে মশা নিধনের ওষুধ ছিটানো হবে। বিদেশিদের ক্যাম্পে রান্নার জন্য ১৩৬টি গ্যাসের চুলা স্থাপন করা হবে। বিনা মূল্যে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য ৪৫টি চিকিৎসা সেবাকেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে।

গতকাল বুধবার ইজতেমা ময়দানের ফটকে কথা হয় মুসল্লি আরজু মিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, বিভিন্ন জেলার ১৮ জন মুসল্লি এক চিল্লা দাওয়াতের কাজ শেষে ইজতেমায় অংশ নিতে এসেছেন। কুমিল্লা থেকে আসা বেশ কয়েকজন মুসল্লি পানির ট্যাংকের পাশের ফটক দিয়ে ময়দানে প্রবেশ করছিলেন। তাঁদের একজন মো. হাবিবুল্লাহ বলেন, ৪০ দিনের দাওয়াতি কাজ শেষে তাঁরা ইজতেমায় যোগ দিতে এসেছেন। ইজতেমা শেষ করে তাঁরা বাড়ি ফিরবেন।

দু’পর্বেই পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত। প্রথম পর্বের ১৪ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্বের ২১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত। এবারের প্রথম পর্বের ইজতেমায় ১৬টি জেলার মুসল্লি অংশ নিবেন। ইজতেমার শুরুর দিনই অনুষ্ঠিত হবে বৃহত্তম জুমার নামাজ। জুমার নামাজে দেশি বিদেশি মুসলমানদের সঙ্গে অগণিত ধর্মপ্রাণ মুসল্লি শরিক হবেন। ইতোমধ্যে মুসল্লিরা ছোট ছোট জামাতে আসতে শুরু করেছেন।

এবার প্রথম পর্বের ১৬টি জেলার জন্য পুরো প্যান্ডেলকে ২৮টি খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। এতে ১নং খিত্তায় ঢাকা-০৮, ২নং খিত্তায় ঢাকা-০৯, ৩নং খিত্তায় ঢাকা-১০, ৪নং খিত্তায় ঢাকা-১১, ৫নং খিত্তায় ঢাকা-১২, ৬নং খিত্তায় ঢাকা-১৩, ৭নং খিত্তায় ঢাকা-১৬, ৮নং খিত্তায় ঢাকা-১৭, ৯ নং খিত্তায় পঞ্চগড়, ১০ নং খিত্তায় নীলফামারী, ১১ নং খিত্তায় শেরপুর, ১২ নং খিত্তায় নারায়ণগঞ্জ-০১, ১৩নং খিত্তায় গাইবান্ধা, ১৪ নং খিত্তায় নাটোর, ১৫নং খিত্তায় মাদারীপুর, ১৬ নং খিত্তায় ঢাকা-২৪, ১৭ নং খিত্তায় নড়াইল, ১৮ নং খিত্তায় ঢাকা-১৫, ১৯ নং খিত্তায় নারায়ণগঞ্জ-০২, ২০ নং খিত্তায় ঢাকা-১৮, ২১ নং খিত্তায় ঢাকা-১৪, ২২ নং খিত্তায় লক্ষ্মীপুর-১, ২৩ নং খিত্তায় লক্ষ্মীপুর-০২, ২৪ নং খিত্তায় ঝালকাঠি, ২৫ নং খিত্তায় ভোলা-০১, ২৬ নং খিত্তায় ভোলা-০২, ২৭ নং খিত্তায় মাগুরা ও ২৮ নং খিত্তায় পটুয়াখালী জেলার মুসল্লিগণ অবস্থান নেবেন।

দিল্লির মাওলানা সাদকে নিয়ে চলমান সংকটের বিষয়ে জানতে চাইলে মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, তিনি ইজতেমায় যোগ দিতে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছেন। ঢাকার কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করছেন।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর বলেন, ইজতেমা এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, অশ্লীল পোস্টার অপসারণ ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় বিশুদ্ধ খাবার নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে মুসল্লিদের যাতায়াতে তুরাগে সাতটি ভাসমান পন্টুন নির্মাণ করা হয়েছে।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র এম এ মান্নান বলেন, ইজতেমা ময়দানের ময়লা আবর্জনা পরিষ্কারের জন্য সার্বক্ষণিক কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে। 

ইজতেমা ময়দানে মুসল্লিদের স্থান সংকুলান না হওয়ায় ২০১১ সাল থেকে দুই পর্বে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top