Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৮ , সময়- ৫:০৯ অপরাহ্ন
Total Visitor:
শিরোনাম
রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে আসছেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট আজ ঐতিহাসিক ঊনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থান দিবস ভোলায় দক্ষিণ এশিয়ার সর্বোচ্চ ওয়াচ টাওয়ার উদ্বোধন ২৯ জানুয়ারি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মঘটের ডাক লিবিয়ায় জোড়া গাড়িবোমা হামলায় নিহত ৩৩ মেয়েকে এপিএস নিয়োগ দিলেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী স্পিকারের সঙ্গে সিইসির বৈঠক আজ তিন মাস নয়, ছয় মাসের জন্য স্থগিত ডিএনসিসি নির্বাচন তালেবানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পাকিস্তানের প্রতি যু্ক্তরাষ্ট্রের আহ্বান ঢাবির অবরুদ্ধ উপাচার্যকে উদ্ধার করল ছাত্রলীগ

ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ

জাতীয় সংগীত ছাড়াই উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন মাদারীপুরে শিল্পীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বর্জন


ম. হারুন অর রশিদ, মাদারীপুর প্রতিনিধি

আপডেট সময়: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮ ৯:২২ এএম:
জাতীয় সংগীত ছাড়াই উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন মাদারীপুরে শিল্পীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বর্জন

তিন দিনের উন্নয়ন মেলা জাতীয় সংগীত ছাড়াই উদ্বোধন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় শিল্পীরা। পাশাপাশি নির্ধারিত সময়ের আগে মঞ্চ থেকে শিল্পীদের নামিয়ে দেয়ায় মাদারীপুরের তিন দিনের এ উন্নয়ন মেলার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন তারা। বৃহস্পতিবার রাতে জেলা প্রশাসনের কাছে লিখিতভাবে বিষয়টি জানান বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা। উন্নয়ন মেলায় এ সকল শিল্পীদের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করার কথা ছিল। এ ছাড়াও সন্ধ্যার অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীদের মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

একাধিক সূত্র ও শিল্পীদের অভিযোগে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে মাদারীপুরে তিনদিন ব্যাপী আয়োজিত উন্নয়ন মেলা জাতীয় সংগীত, কোরআন তেলাওয়াত ও গীতাপাঠ ছাড়াই উদ্বোধন করা হয়েছে। মেলায় জেলা প্রশাসনের আমন্ত্রণ পেয়েও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করতে না পেরে ক্ষোভ ও নিন্দা জানান স্থানীয় শিল্পীরা। এ কারণে সন্ধ্যায় তারা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বর্জন করেন।

মাদারীপুরের শিল্পীরা আরো জানান, উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে কয়েকদিন আগে জেলার একাংশ শিল্পীদের মৌখিকভাবে জাতীয় সংগীত, কোরআন তেলাওয়াত ও গীতাপাঠ পরিবেশনের জন্য আমন্ত্রন জানায় জেলা প্রশাসন। শিল্পীদের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিলো সকাল ৯টার মধ্যে উন্নয়ন মেলার মঞ্চে উপস্থিত থাকতে হবে। শিল্পীরাও জেলা প্রশাসনের কথা মতো সঠিক সময়ে বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রসহ হাজির হন মেলা প্রাঙ্গণে। তখন তারা জাতীয় সংগীত পরিবেশনের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে অনুমতি চাইলে তাদের অপেক্ষা করতে বলা হয়। এরপরে তাদের জানানো হয় উন্নয়ন মেলায় কোন জাতীয় সংগীত বা অন্যকিছু পরিবেশন করা হবে না। তাই স্থানীয় শিল্পীরা মেলা প্রাঙ্গণ থেকে চলে যান।

মনিরা ইয়াসমিন নামে এক দর্শনার্থী বলেন, ‘উন্নয়ন মেলায় বিদেশী গান ও নাচ হলো। তাতে মনে হচ্ছে, দেশ থেকে বাংলা সংস্কৃতি উঠে গেছে। আমরা এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সংগীত প্রশিক্ষক নন্দিনী হাওলাদার বলেন, ‘আমরা চরমভাবে লজ্জিত। আমাদের আমন্ত্রণ জানিয়ে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করতে দেয়নি প্রশাসন। আমরা এর নিন্দা জানাই।’ সংগীত শিল্পী রনি মোল্লা বলেন, ‘এটি একটা ন্যাক্কারজনক ঘটনা। শিল্পীদের অপমান কিছুতেই সহ্য করার মতো নয়।’

সংগীত শিল্পী জয়ন্ত মজুমদার বলেন, ‘আশা নিয়ে আসছিলাম। মঞ্চে সংগীত পরিবেশন করবো। কিন্তু স্থানীয় শিল্পীদের মঞ্চ থেকে নামিয়ে দিয়ে তাদের অপমান ও অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। এতে মাদারীপুরের সুশীল সমাজও ক্ষুব্ধ হয়েছেন।’

এ ব্যাপারে মাদারীপুর উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন এলিন বলেন, ‘অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের জন্য শিল্পীদের ডেকে এনে তাদের মঞ্চ থেকে নামিয়ে দিয়ে জাতীয় সংগীত ছাড়াই উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা  হয়েছে, এটা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ঘটনা। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানাচ্ছি। শিল্পী ও সংগঠনকে অবমূল্যায়ন করা প্রশাসনের এটাই নতুন নয়। এর আগেও একাধিক অনুষ্ঠানে প্রশাসনের পক্ষ থেকে শিল্পীদের ডেকে নিয়ে মঞ্চে উঠতে দেওয়া হয়নি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসকের সরকারি মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে জেলা প্রশাসনের এনডিসি মো. আল মামুন বলেন, ‘এ বিষয়ে এখন কিছু বলতে পারবো না। সকালে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান একটু দেরীতে শুরু হওয়ায় এলোমেলো হয়ে গেছে। আর স্থানীয় শিল্পীদের অনুষ্ঠান বয়কটের বিষয়ে আমি জানি না।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top