Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ , সময়- ১১:২০ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ঈদের আগেই ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করলেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াংকা মাদক ‘সম্রাজ্ঞীদের ধরতে’ নেই কোনো বিশেষ অভিযান মাদক যেকোনো অপরাধের চেয়ে ভয়াবহ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সময় পরিবর্তন হলেও প্রার্থীদের নির্বাচনী খরচ বাড়াচ্ছে না ইসি বাজেটে রোহিঙ্গাদের জন্য দুই হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হচ্ছে বাতিল হতে পারে ট্রাম্প - কিম জন ঊনের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠক রোহিঙ্গাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ গাজীপুর সিটি করপোরেশন : মেয়রপ্রার্থীদের ঘরোয়া নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত অশ্রুসজল ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত প্রিয়াঙ্কা, ‘খোদা হাফেজ’ বলে ছাড়লেন রোহিঙ্গা শিবির 

এতিমখানা কোথায় ? প্রশ্নের জবাবের খোঁজে ফেসবুকের নিউজফিড সয়লাব


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৮ জানুয়ারী ২০১৮ ৪:০৯ পিএম:
এতিমখানা কোথায় ? প্রশ্নের জবাবের খোঁজে ফেসবুকের নিউজফিড সয়লাব

প্রজন্মকণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট : জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে টাকা আত্মসাতের মামলা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে নতুন বিতর্ক। মামলাটির রায় সামনে রেখে নানান আলোচনা চলাকালেই হঠাৎ এতিমখানাটির অবস্থান নিয়েই প্রশ্নের ঝড় উঠেছে গণমাধ্যম ও সোশাল মিডিয়াগুলোতে।

মামলাটি নিয়ে এর আগেও নানান কথা হলেও এবারের বিতর্কের শুরু একাত্তর টিভির একটি রিপোর্ট থেকে। এই ভিডিওতে দেখা যায় খালেদা জিয়ার সেই এতিমখানাটির প্রকৃত অবস্থান কোথায় তা জানতে চাওয়া হলে কোনো উত্তর দিতে পারছেন না তার কোনো আইনজীবীই। আইনজীবীদের মধ্যে অনেকে প্রশ্নটি এড়িয়ে গেলেও অনেকে আবার বলেছেন এই প্রশ্ন করে তাদের বিব্রত না করতে। বিএনপির প্রভাবশালী নেতা মওদুদ আহমেদ বেশ বড় গলায় মামলাটি নিয়ে কথা বললেও নিজে এই প্রশ্নের উত্তরে কোনো তথ্য দিতে পারেননি। খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও বিএনপি নেতাদের এমন উত্তরে হতবাক দেশের জনগণ।

মামলাটির রায়ের তারিখ ঘোষণার পর থেকে বিএনপির নেতারা নানান উচ্চবাচ্য করলেও এই এতিমখানার অবস্থান বিষয়ে কিছু না বলতে পারায় তাদের উপর ক্ষুব্ধ সাধারণ জনগণ ও সোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা। সংশ্লিষ্ট ভিডিওটি বিভিন্ন ট্রল পেজ থেকেও হাস্যকর নানান ক্যাপশন দিয়ে শেয়ার করা হচ্ছে। খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের গণমাধ্যমের সামনে এমন বিব্রত অবস্থা নিয়ে হাসাহাসি হচ্ছে সকল স্থানে।

উল্লেখ্য, জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টে এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় এই মামলা করে দুদক। তদন্ত শেষে ২০০৯ সালের ৫ অগাস্ট আদালতে অভিযোগপত্র দেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ। অভিযোগে বলা হয়, এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করেছেন এ মামলার আসামিরা।

মামলা হওয়ার পাঁচ বছর পর ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ খালেদাসহ ছয় আসামির বিরুদ্ধে ফৌজদারি দণ্ডবিধির ৪০৯ এবং দুদক আইনের ৫(২) ধারায় অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করেন। জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা হবে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top