Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ১:৩৬ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

পেনফিল ইনসুলিন বানাবে এসকেএফ


অনলাইন ডেষ্ক

আপডেট সময়: ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ৪:৫৩ পিএম:
পেনফিল ইনসুলিন বানাবে এসকেএফ

বিশ্বখ্যাত ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান নভো নরডিস্কের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ইনসুলিন উৎপাদন করবে ট্রান্সকম গ্রুপের প্রতিষ্ঠান এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, যা মডার্ন ইনসুলিন নামে পরিচিত। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য পেনফিল পদ্ধতির এই ইনসুলিন উৎপাদন করা হবে। ডেনমার্কের বাইরে বাংলাদেশেই প্রথম এই ধরনের প্রযুক্তি স্থানান্তর করছে নভো নরডিস্ক।

ঢাকার সোনারগাঁও হোটেলে গতকাল বুধবার এসকেএফ ও নভো নরডিস্কের মধ্যে এই ইনসুলিন তৈরি সংক্রান্ত সমঝোতা চুক্তি হয়। এতে এসকেএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সিমিন হোসেন এবং নভো নরডিস্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনন্দ শেঠি সই করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত মাইকেল হেমিনিটি উইন্থার, ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান, নভো নরডিস্কের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার করপোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট শবনম আভসার প্রমুখ।

চুক্তিটি হওয়ায় ডেনমার্কের প্রযুক্তি ব্যবহার করে উচ্চ গুণসম্পন্ন ইনসুলিন উৎপাদন করবে এসকেএফ। গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এই উদ্যোগ শুরু হয়। এরপর বাংলাদেশ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ডেনমার্কের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, এশিয়া হাউস, ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি, নভো নরডিস্কের প্রধান কার্যালয় ও বিশ্বের বৃহৎ ইনসুলিন উৎপাদনকারী কারখানা পরিদর্শন করেন। নভো নরডিস্ক এরই মধ্যে ইনসুলিন প্রযুক্তি সরবরাহের কাজ শুরু করেছে।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘দেশের ৭০ লাখ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগী নিবন্ধিত আছে। আমার ধারণা, এই সংখ্যা এক কোটি হবে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি সমস্যা, হৃদ্‌রোগসহ নানা ধরনের রোগ হতে পারে, যা মৃত্যুঝুঁকি বাড়ায়।’ তিনি বলেন, এসকেএফ একটি সুপ্রতিষ্ঠিত কোম্পানি, যারা বিশ্বমানের ওষুধ উৎপাদন করে। বর্তমানে দেশের ৯৮ শতাংশ ওষুধের চাহিদা মেটায় দেশি কোম্পানিগুলো। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এসকেএফের নতুন ইনসুলিন যেন সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত মাইকেল হেমিনিটি উইন্থার বলেন, নভো নরডিস্ক এই দেশে ডেনমার্কের প্রতিনিধিত্ব করে এবং ডেনমার্ক ও বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও মজবুত করতে এই উদ্যোগ অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ইনসুলিন উৎপাদন প্রসঙ্গে ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান বলেন, আগামী কয়েক বছরে এ জন্য ৩০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হবে। হয়তো এটা পরিমাণে উল্লেখযোগ্য নয়। কিন্তু এসকেএফ ও নভো নরডিস্ক উভয়ের সহযোগিতার বড় ক্ষেত্র এটি।

লতিফুর রহমান আরও বলেন, ‘আমরা গর্বিত যে নভো নরডিস্কের প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডেনমার্কের বাইরে প্রথমবারের মতো পেনফিল পদ্ধতির আধুনিক ইনসুলিন তৈরি করবে এসকেএফ।’

নরডিস্কের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার করপোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট শবনম আভসার বলেন, গর্ভবতী মায়েরা যেমন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে, তেমনি হচ্ছে শিশুরাও। নভো নরডিস্ক এ দেশে ৬০ বছর ধরে কাজ করছে। তিনি বলেন, ‘আপনি যদি রোগের বিস্তার ও ভয়াবহতা অনুধাবন করতে না পারেন, তবে এটা নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবেন না।’

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মানসম্পন্ন ওষুধ তৈরি করে এসকেএফ এ দেশে সুনাম অর্জন করেছে। মানসম্পন্ন ওষুধ না হলে রোগবালাই ভালো হবে না। নভো নরডিস্কের মতো বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠানের আধুনিক প্রযুক্তি স্থানান্তরের ফলে এ দেশের ওষুধশিল্প উপকৃত হবে।

নভো নরডিস্কের আফ্রিকা, এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও ওশেনিয়া অঞ্চলের করপোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট লারস বো স্মিথ বলেন, ‘বাংলাদেশ হলো আমাদের বিশ্বস্ত সহযোগী। তাই এখানে প্রযুক্তি স্থানান্তর করছি।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি এ কে আজাদ, সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফউদ্দিন, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের সাধারণ সম্পাদক এস এম শফিউজ্জামান প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top