Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ , সময়- ৪:৪০ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
প্রশ্ন ফাঁস : সারাদেশে ৫২ মামলা, গ্রেপ্তার ১৫৩ জন  অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান | প্রজন্মকন্ঠ নৌকা জনগণের মার্কা : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে  উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ঘোষণা  আসছে | প্রজন্মকন্ঠ সমাবেশের অনুমতি পায় নি বিএনপি | প্রজন্মকন্ঠ আবারো ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করবে সরকার  | প্রজন্মকন্ঠ বেগম জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি রোববার | প্রজন্মকন্ঠ দুর্নীতি সূচকে এগিয়েছে বাংলাদেশ | প্রজন্মকন্ঠ সাকিব-অপুর বিচ্ছেদ চুড়ান্ত | প্রজন্মকন্ঠ স্বাস্থ্যসেবা আজ মানুষের দোরগোড়া : শেখ হাসিনা

খালেদা জিয়ার সাজা হলে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনঃ খুলনা মহানগর বিএনপি


খুলনা জেলা সংবাদদাতা

আপডেট সময়: ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ৮:৫৯ এএম:
খালেদা জিয়ার সাজা হলে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনঃ খুলনা মহানগর বিএনপি

দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বিএনপির চেয়ারপারসন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ভাষণকে স্বাগত জানিয়ে খুলনা মহানগর বিএনপির নেতারা বলেছেন, সংঘাত, হানহানি, নৈরাজ্য নয়। বানোয়াট মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হলে বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা জনসাধারণকে সাথে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন চালিয়ে যাবে। পুলিশ প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেতারা বলেন, আপনাদের সাথে বিএনপি কর্মীদের কোন বিরোধ নেই। আমাদের আন্দোলন কাউকে ক্ষমতা থেকে নামানো কিংবা কাউকে ক্ষমতায় বসানোর জন্য নয়। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগনের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করাই বিএনপির লক্ষ্য।

তারা বলেন, আদালতকে ব্যবহার করে মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রেখে একদলীয় নির্বাচন আয়োজনের পায়তারা চলছে। বুকের রক্ত দিয়ে জাতীয়তাবাদের সৈনিকেরা সেই চক্রান্ত রুখে দেবে।

৮ ফেব্রুয়ারী দুদকের দায়ের করা বানোয়াট রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলার রায়ের দিন নির্ধারিত থাকার প্রেক্ষিতে দেশব্যাপি সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে করণীয় নির্ধারণে গতকাল বুধবার কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ে নগর বিএনপির শীর্ষ নেতাদের এক জরুরী বৈঠকে এসব কথা বলা হয়েছে।

সভার সভাপতি বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর শাখার সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, বিএনপির পাশাপাশি ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দলের সর্বোচ্চ সংখ্যক নেতাকর্মী বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজপথে অবস্থান নেবেন। কোন পরিস্তিতিতেই রাজপথের দখল ছাড়া হবেনা। কোন ধরনের উস্কানিতে নেতাকর্মীরা বিভ্রান্ত হবেনা। সংঘাত নয়, আমাদের কর্মসূচি হবে শান্তিপূর্ণ।

সভা থেকে বলা হয়, বিএনপির চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া শুধু তিন বারের প্রধানমন্ত্রীই নন, সামরিক স্বৈরশাসক এরশাদের সাড়ে ৮ বছরের দুঃশাসনের অবসান হয়েছিল তার অনমনীয় আন্দোলনের কারণে। ওয়ান ইলেভেনের সেনা সমর্থিত সরকার যখন মাইনাস টু ফর্মুলা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শেখ হাসিনাকে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন, সেই সময় খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ অনমনীয়তা ওই সরকারের ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দেয়। গণতন্ত্রের সংগ্রামের এই আপোসহীন নেত্রীকে কোন পরিস্তিতিতে, কোন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে নমনীয় করা যাবেনা বলে সভা থেকে জানানো হয়।

সভা থেকে বলা হয়, উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনের সাংবিধানিক গণতান্ত্রিক অধিকার পালনে বিএনপি কর্মীরা কোন ধরনের ছাড় দেবেনা। সংঘাত নয়, সহিংসতা নয়, বিএনপির কর্মসূচি হবে শতভাগ শান্তিপূর্ণ। তবে পুলিশ প্রশাসনের কাছ থেকে কোন ধরনের অন্যায় আচরণ, কর্মসূচিতে বাঁধা প্রদান, নির্বিচারে গণগ্রেফতার করা হলে তা প্রতিরোধে দলীয় কর্মীরা তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

সভায় জানানো হয়, পুলিশ বুধবার দিবাগত রাতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে নগর বিএনপির সদস্য আলমগীর হোসেন বাদশা, সদর থানা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফি, সোনাডাঙ্গা থানার ১৬ নং ওয়ার্ড যুবদলনেতা আল আমিন, ১৯ নং ওয়ার্ড যুবদল নেতা বাদল, শ্রমিক দল নেতা শাহিন, খালিশপুরের ছাত্রদল নেতা আশিক নকিবুল, আহসান হাবিব, যুবদল নেতা নাজমুল
হোসেন বাবু এবং খানজাহান আলী থানা বিএনপি নেতা শেখ মিঠু কামালকে গ্রেফতার করেছে। এছাড়া পোশাকধারী ও সাদা পোশাক পরিহিত বিপুল সংখ্যক পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা শীর্ষ নেতা এবং কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তল্লাশির নামে সমগ্র বাড়ি তছনছ করা, পরিবারের সদস্য বিশেষত বৃদ্ধ ও মহিলাদের সাথে চরম দুর্ব্যবহার, পাওয়া মাত্র দেখে নেয়া হবে বলে হুমকি প্রদান করছে। শীতের গভীর রাতে ঘুমন্ত মানুষদের জাগিয়ে হুংকার, গালিগালাজ, ভীতি প্রদর্শন ও উচ্চ শব্দ সৃষ্টি করায় শিশু ও বৃদ্ধরা আতংকিত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। 

সভা থেকে পলিশকে অসহিষ্ণু, ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও চাকরিবিধির বাইরে অতি উৎসাহী আচরণ না করার আহবান জানিয়ে বলা হয়, বিএনপি একটি নিবন্ধিত গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক সংগঠন। নিয়মতান্ত্রিকতার বাইরে কোন কাজ বা আচরণের সাথে এই দলের নেতাকর্মীরা সম্পৃক্ত নয়। তাদের সাথে চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারীদের ন্যায় আচরণ না করে সহনশীল ও ভদ্র আচরণ করার জন্য সভা থেকে আহবান জানানো হয়।

সভা থেকে নগর বিএনপির প্রধম যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলামের দৌলতপুরস্থ বাসভবন, সহ সভাপতি শেখ ইকবাল হোসেন, দৌলতপুর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল হক নান্নু, নগর বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ পারভেজ বাবু, নগর ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি শরীফুল আনাম, খন্দকার সোহেল রানা, তরিকুল ইসলাম সহ দলের অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মীর বাড়িতে পুলিশী তল্লাশি ও তান্ডব চালানোর তিব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানানো হয়।

সভা থেকে একদিকে বিএনপিকে সভা সমাবেশ থেকে বিরত রাখা, অপরদিকে আওয়ামী লীগকে অবাধে তাদের রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে দেয়ার দ্বিমুখি আচরণের নিন্দা জানানো হয়। একই সাথে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা, মিথ্যা অপপ্রচারণা ও বানেয়াট তথ্য সম্বলিত পোস্টার সারা নগরী জুড়ে দেয়ালে দেয়ালে লাগানোর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

সভা থেকে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা মোবাইল ফোনে খুলনা বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের হুমকি দিচ্ছে, ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলে অভিযোগ করে বলা হয়, অতি উৎসাহ ত্যাগ করে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীর ন্যায় চাকরিবিধি অনুযায়ী আচরণ না করলে ভবিষ্যতে তার জন্য জবাবদিহি করতে হবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, মীর কায়সেদ আলী, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, শাহজালাল বাবলু, স ম আব্দুর রহমান, ফখরুল আলম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, সিরাজুল হক নান্নু, মেহেদী হাসান দীপু, মহিবুজ্জামান কচি, এহতেশামুল হক শাওন, ইউসুফ হারুন মজনু, শামসুজ্জামান চঞ্চল প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top