Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ৪:০৮ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

গোবিন্দগঞ্জে ১৫ মাস পর সাঁওতালের লাশ উত্তোলণ


এল.এন.শাহী, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি

আপডেট সময়: ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ৬:২৩ পিএম:
গোবিন্দগঞ্জে ১৫ মাস পর সাঁওতালের লাশ উত্তোলণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের জমি থেকে সাঁওতালদের উচ্ছেদের ঘটনায় নিহত রমেশ টুডু নামে এক সাঁওতালের লাশ দাফনের ১৫ মাস পর কবর উত্তোলন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সিংটাজুড়ি গ্রাম থেকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) লাশ উত্তোলন করে। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

রমেশ টুডুর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও চিকিৎসকের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করা হয়।

পিবিআই গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন মিয়া জানান, বিগত ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর ইক্ষু খামারের জমি থেকে সাঁওতালদের উচ্ছেদের ঘটনায় তিন সাঁওতাল নিহত হন। গুলিবিদ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গল মার্ডি ও শ্যামল হেমব্রম নামে দু’জনের মৃত্যু হয়। নিহত দুইজনের ময়না তদন্তের পর লাশ সৎকার করে পরিবার। এছাড়াও ঘটনায় রমেশ টুডু নিহত হওয়ার কথা মামলায় উল্লেখ করা হয়। কিন্তু পুলিশি প্রহরায় ময়না তদন্ত ছাড়াই রমেশ টুডুর লাশ দাফন করা হয়েছে বলে তার পরিবার অভিযোগ করেন।

তিনি আরও জানান, হামলা ও হত্যার ঘটনায় প্রথমে স্বপন মুরমু নামে একজন বাদী হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় মামলা করেন। এ মামলা নিয়ে সাঁওতালদের আপত্তি থাকায় তাদের পক্ষে থমাস হেমব্রম বাদী হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় আবারও লিখিত এজাহার দায়ের করেন। কিন্তু থমাস হেমব্রমের অভিযোগটি মামলা হিসেবে রুজু না করে সাধারণ ডায়রি (জিডি) হিসেবে গ্রহণ করে পুলিশ। অভিযোগটি মামলা হিসেবে আমলে না নিয়ে জিডি করা এবং রমেশ টুডুর মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে উচ্চ আদালতে আবেদন করেন থমাস হেমব্রম। পরে উচ্চতর তদন্তের জন্য পিবিআই গাইবান্ধাকে নির্দেশ দেয়া হয়। উচ্চ আদালতের নির্দেশ পেয়ে রমেশ টুডুর মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করতে লাশ উত্তোলনের জন্য গাইবান্ধা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করে পিবিআই।

প্রসঙ্গত, বিগত ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর  গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের আখ কাটাকে কেন্দ্র করে খামারের জমি দখলকারী সাঁওতালের সাথে শ্রমিক কর্মচারী ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়। সেখান থেকে সাঁওতালদের উচ্ছেদে তাদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও হামলা করা হয়। তখন তিন সাঁওতাল নিহত হন। এ হামলার জন্য সাঁওতালরা রংপুর চিনিকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top