Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৬:৫৬ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জীবন দিয়ে হলেও জনগনের সম্মান আমি রক্ষা করবো লুঠের টাকায় ভোট, লুঠছে সব নোট : মমতা'র অভিযোগ ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অর্থপূর্ণ রাজনৈতিক সংলাপের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ সাবেক অর্থমন্ত্রীর হুইল চেয়ার ধরার লোক নেই বিমানবন্দরে !  বিজেপি সরকারের ‘বিদায় ঘণ্টা’ বাজানোর প্রস্তুতি জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে প্রভাহিত করতেই বিজয় উৎসব করছে আ'লীগ কলকাতার ব্রিগেডের দিনেই সম্প্রচারিত হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু আশঙ্কা আসছেন জাতিসংঘের বিশেষ দূত যেসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে আজ 

গাজীপুর সিটি : প্রার্থীদের মধ্যে রীতিমতো চলছে মনোনয়ন ‘যুদ্ধ’


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৮ এপ্রিল ২০১৮ ১১:০২ পিএম:
গাজীপুর সিটি : প্রার্থীদের মধ্যে রীতিমতো চলছে মনোনয়ন ‘যুদ্ধ’

এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে মেয়র প্রার্থী নির্বাচিত করবেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভোটাররা। তাই ভোটারদের ব্যাপক কৌতুহল নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থী নিয়ে। কারণ, এই দুই প্রতীকে কে প্রার্থী হচ্ছেন তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সিটি করপোরেশনের সর্বত্র এখন আলোচনা নৌকার মাঝি আজমত নাকি জাহাঙ্গীর, আর ধানের শীষে মান্নান নাকি হাসান?

নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রীতিমতো শুরু হয়েছে মনোনয়ন ‘যুদ্ধ’। রাস্তা-ঘাট, অলি-গলিসহ সর্বত্র আগ্রহী মেয়র প্রার্থীদের পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দেখা যাচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মেয়রপ্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকরা তাদের প্রার্থীকে নৌকার মাঝি আখ্যা দিয়ে চালাচ্ছেন প্রচার-প্রচারণা। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌঁড়ে রয়েছেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম।

বিএনপিতেও চলছে মনোনয়ন ‘যুদ্ধ’। বর্তমান মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এম এ মান্নানের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বিএনপি দলীয় গাজীপুর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য হাসান উদ্দিন সরকারও মনোনয়নের শক্তিশালী দাবিদার। এ দু’জন নেতাই নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত রয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন।

বর্তমান মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান জানান, দায়িত্ব গ্রহণ করার পরে থেকে মানুষের আশা-প্রত্যাশা পূরণে তিনি চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আসন্ন নির্বাচনের জন্য শারীরিক-মানসিক সবদিক থেকে তিনি প্রস্তুত। 

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান বলেন, গত নির্বাচনের পরদিন থেকেই আমি নির্বাচনী মাঠে আছি। দীর্ঘদিন যাবৎ আমাদের নেতাকর্মী, শুভানুধ্যায়ী এবং এলাকার জনগণের সাথে থেকে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, দল আমাকে মুল্যায়ন করবে।

মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশার কথা ব্যক্ত করে বলেন, ‘গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে একটি আধুনিক সিটি করপোরেশন গড়তে চাই। সেজন্য আওয়ামী লীগ ও স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি সবার কাছে, প্রত্যেকটি ভোটারের কাছে নৌকার জন্য ভোট চাই। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার জানান, বিএনপি মনোনয়ন দিলে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন। তিনি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত আছেন বলেও জানান।

বড় দু-দলের সম্ভাব্য মেয়রপ্রার্থী ছাড়াও মেয়র পদে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আশায় নগরের বিভিন্ন এলাকায় বিলবোর্ড, পোস্টার লাগিয়ে গণসংযোগ শুরু করেছেন জাসদের মহানগর সভাপতি রাশেদুল হাসান রানা, ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও হেফাজত ইসলামের গাজীপুর জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ফজলুর রহমান ও তাদের সমর্থকরা।

উল্লেখ্য, নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী, গাজীপুর সিটির নির্বাচনের জন্য রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১২ এপ্রিল, মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ১৫-১৬ এপ্রিল। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৩ এপ্রিল। নির্বাচন ১৫ মে। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে ঢাকার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডলকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন গঠিত। এই সিটিতে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৫ জন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খানকে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী অধ্যাপক এম এ মান্নান।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top