Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , সময়- ৪:১৩ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিতর্ক কেন ? বিএনপি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | প্রজন্মকণ্ঠ পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আবেদন খালেদা জিয়ার | প্রজন্মকণ্ঠ খালেদা জিয়া কারাগারের বাইরে থাকার সময়ও জনগণ তার ডাকে সাড়া দেয়নি : ওবায়দুল কাদের বিএনপি-জামায়াত ক্লিনহার্ট অপারেশন চালিয়ে আ'লীগের অসংখ্য নেতাকর্মীকে নির্যাতনের শিকার করেছিল : প্রধানমন্ত্রী  ধর্মমন্ত্রী ও ভূমিমন্ত্রীর  কড়া সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল করেছে বিএনপি আ'লীগের প্রতিনিধিদলের উত্তরবঙ্গ সফর শুরু । প্রজন্মকণ্ঠ   বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন : সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার | প্রজন্মকণ্ঠ  সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে মাঠে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ, আগামীকাল | প্রজন্মকণ্ঠ

ভারতের ২৪ পরগনা জেলায় পাঁচ বাংলাদেশি ‘জলদস্যু’কে গ্রেপ্তার


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১৪ এপ্রিল ২০১৮ ৪:৩৫ পিএম:
ভারতের ২৪ পরগনা জেলায় পাঁচ বাংলাদেশি ‘জলদস্যু’কে গ্রেপ্তার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার পাঁচ বাংলাদেশি ‘জলদস্যু’কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার গভীর রাতে কুলতলি থানার কৈখালি জঙ্গল থেকে এদের গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচজনের কাছ থেকে পাঁচটি গুলিভর্তি বন্দুক, একটি দেশি পিস্তল ও সাতটি গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া তাঁদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে সাতটি বোমা, একটি মোবাইল ফোন ও তিনটি বাংলাদেশি সিমকার্ড। আটক পাঁচজন হলেন বাংলাদেশি জলদস্যুরা হলেন মহম্মদ আবদুল রহমান মোড়ল (৪৩), মিসবা গাজী (২৬), জহির শেখ (১৯), আবদুল্লাহ আল মামুন (১৯), জাহাঙ্গীর আলম গাজী (১৯)। তাঁদের বাড়ি বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর থানার বিভিন্ন এলাকায়।

শুক্রবার গভীর রাতে গোপনসূত্রে খবর পেয়ে রাত দেড়টা নাগাদ দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বারুইপুর জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল অপারেশন গ্রুপ ও কুলতলি থানার পুলিশ একযোগে অপারেশন চালায় দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার  সুন্দরবন সংলগ্ন মাতলা নদীতে। কুলতলির কৈখালি জঙ্গলের কাছে একটি শ্মশানঘাটের পাশে মাতলা নদী থেকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয় ওই পাঁচ বাংলাদেশি জলদস্যুকে। এদিন বারুইপুর জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল অপারেশন গ্রুপের নেতৃত্ব দেন বারুইপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লক্ষ্মীকান্ত বিশ্বাস।

এই ঘটনায় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বারুইপুর জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার অরিজিত সিনহা বলেন, চলতি বছরের গত ২৩ মার্চ দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সুন্দরবন সন্নিহিত পিরখালির চার নম্বর জঙ্গল থেকে গ্রেপ্তার করা হয় চার বাংলাদেশি জলদস্যুকে। সেই সময় অনেকে পালিয়ে গিয়েছিল। তারপর থেকে তারা পালিয়ে পালিয়ে ঘুরছিল। এদিন সেই পালিয়ে যাওয়া বাংলাদেশি জলদস্যুদের একটি অংশ ধরা পড়েছে।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান, মূলত এই বাংলাদেশি জলদস্যুরা ভারতীয় অংশের বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন নদীতে ভারতীয় মৎস্যজীবীদের টার্গেট করতেন। তাঁদের থেকে মাছ এবং মাছ ধরার সামগ্রী লুট করতেন তারা। এরপর সেগুলি ভারতের একটি চক্রের কাছেই অল্প দরে বিক্রি করে দিয়ে তারা ফের বাংলাদেশে ফিরে যেতেন। তবে এদিনের অভিযানে ওই বাংলাদেশি জলদস্যুদের মূল হোতা পালিয়ে যায় বলে পুলিশ সূত্র জানা গেছে। তার খোঁজে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সুন্দরবন সংলগ্ন বিভিন্ন নদীতে চলছে তল্লাশি। বাংলাদেশি পাঁচ জলদস্যুর বিরুদ্ধে অস্ত্র আইন, অনুপ্রবেশ এবং ডাকাতিসহ একাধিক ধারায় মামলা করা হয়েছে।                 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top