Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৬:৫৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জীবন দিয়ে হলেও জনগনের সম্মান আমি রক্ষা করবো লুঠের টাকায় ভোট, লুঠছে সব নোট : মমতা'র অভিযোগ ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অর্থপূর্ণ রাজনৈতিক সংলাপের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ সাবেক অর্থমন্ত্রীর হুইল চেয়ার ধরার লোক নেই বিমানবন্দরে !  বিজেপি সরকারের ‘বিদায় ঘণ্টা’ বাজানোর প্রস্তুতি জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে প্রভাহিত করতেই বিজয় উৎসব করছে আ'লীগ কলকাতার ব্রিগেডের দিনেই সম্প্রচারিত হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু আশঙ্কা আসছেন জাতিসংঘের বিশেষ দূত যেসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে আজ 

জামিন বহাল থাকলেও খালেদার এখনি মুক্তি নয় : মওদুদ আহমেদ 


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১৬ মে ২০১৮ ৬:২২ পিএম:
জামিন বহাল থাকলেও খালেদার এখনি মুক্তি নয় : মওদুদ আহমেদ 

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ বহাল রাখলেও অন্য মামলা থাকায় তিনি এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন তার অন্যতম আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

বুধবার সকালে রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সর্বোচ্চ আদালত থেকে জামিন পেলেও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অন্য মামলা থাকায় তিনি এখনই মুক্তি পাচ্ছেন না। তার মুক্তির ক্ষেত্রে কিছুটা বাধা আছে।

মওদুদ বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় তিনটি, ঢাকায় দুটি ও নড়াইলে একটি মামলা রয়েছে। যেহেতু সর্বোচ্চ আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন তাই নিম্ন আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন পেতে খুব একটা বেশি দেরি হবে না। আমরা আইনি প্রক্রিয়ায় তাকে জামিনে বের করে আনবো। খালেদা জিয়া শিগগিরই নেতাকর্মীদের মাঝে ফিরে আসবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এর আগে, বুধবার সকাল ৯টা পাঁচ মিনিটে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল খারিজ করে খালেদা জিয়ার জামিন বহাল রাখেন।

একই সঙ্গে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা অর্থ আত্মসাতের দায়ে ঢাকার একটি বিশেষ জজ আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। ওই দিনই তাকে পুরানো ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সে দিন থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

ওই সাজা স্থগিত চেয়ে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হলে ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তবর্তীকালীন জামিন দেন হাইকোর্ট। পরদিন ওই জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক। দ্রুত আপিল নিষ্পত্তি এবং খালেদার জামিন বাতিল চেয়ে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান এবং রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

তবে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রাখার আর্জি জানিয়ে শুনানি করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহম্মদ আলী ও জয়নুল আবেদীন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top