Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৭:১৩ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট কিন্তু কিছু আপত্তি আছে : শাহরিয়ার আলম ড. কামাল বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন, আলহামদুলিল্লাহ : খালেদা জিয়া জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে সেনাকর্মকর্তার থানায় সাধারণ ডায়েরি, তদন্তে ডিবি কেন কমিশন সভা বর্জন করেছেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার দেশের অন্যতম বৃহত্তম পুজো হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে সিকদার বাড়ি গণমাধ্যমকর্মীদের সাপ্তাহিক কর্মঘণ্টা হবে সর্বোচ্চ ৩৬ ঘণ্টা  ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের দাবিতে সম্পাদকদের মানববন্ধন, পরিষদের সাত দফা দাবি  একটি কমিশন গঠনের প্রস্তাব রেখে ‘সম্প্রচার আইন, ২০১৮’ এর খসড়া অনুমোদন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে র‌্যাব : বেনজীর আহমেদ মজুরির নতুন কাঠামো বাস্তবায়নকে কেন্দ্র করে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের অভিযোগ

 ৯ জেলায় 'বন্দুকযুদ্ধে' ১১ ‘মাদকব্যবসায়ী’ নিহত, অস্ত্র-গুলি উদ্ধার


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ২২ মে ২০১৮ ৩:১২ পিএম:
 ৯ জেলায় 'বন্দুকযুদ্ধে' ১১ ‘মাদকব্যবসায়ী’ নিহত, অস্ত্র-গুলি উদ্ধার

মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে গতরাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নয় জেলায় ১১ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে কুমিল্লার অরণ্যপুরে দু জন, নীলফামারিতে দু জন এবং নেত্রকোনা, নারায়ণগঞ্জ, ফেনীর লেমুয়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা, দিনাজপুর, চট্টগ্রামের বায়েজিদে একজন করে মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।


র‍্যাব ও পুলিশের পক্ষ থেকে আরো দাবি করা হয়েছে, নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসায়ী। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ সময় অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

কুমিল্লা:

কুমিল্লা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) ও থানা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শরীফ ও পিয়ার নামে তালিকাভুক্ত শীর্ষ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে জেলা সদরের অদূরে বিবির বাজার অরণ্যপুর এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২ রাউন্ড গুলিসহ একটি রিভলবার, একটি পাজেরো জিপ, ৫০ কেজি গাঁজা এবং ৫০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযানকালে কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রুপ কুমারসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন।

নিহতদের মধ্যে মধ্যে মো. শরীফ জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার মহেষপুর গ্রামের আবদুল মান্নানের পুত্র। তার বিরুদ্ধে ৫টি মাদক মামলা রয়েছে। অপর নিহত পিয়ার আলী আদর্শ সদর উপজেলার শুভপুর গ্রামের আলী মিয়ার পুত্র। তার বিরুদ্ধে ১৩টি মাদকের মামলা রয়েছে।

নীলফামারী:

জেলার সৈয়দপুরে সোমবার রাত আড়াইটার দিকে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীদের ককটেলের আঘাতে ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ককটেল, দেশীয় অস্ত্র , ইয়াবা এবং একটি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- সৈয়দপুর পৌর শহরের ইসলামবাগ মহল্লার আব্দুল হান্নানের ছেলে মো. জনি হোসেন (২৭) ও নিচু কলোনী মহল্লার ইউসুফ হোসেনে ছেলে শাহিন আহমেদ (৩০)।

নারায়ণগঞ্জ:

জেলার আড়াইহাজার উপজেলায় শিমুলতলী এলাকায় র‌্যাব-১ এর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বাচ্চু খান নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এসময় উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও বিদেশি অস্ত্র।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার শিমুলতলী এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহত বাচ্চু খান রাজধানী ঢাকার উত্তরার উত্তরখান এলাকার আশরাফ খানের ছেলে। এসময় মাদক ব্যবসার কাজে তাদের ব্যবহৃত একটি জিপ গাড়িও উদ্ধার করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা:

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা রেলস্টেশনের কাছে গুলিতে কামরুজ্জামান সাধু (৪৫) নামে এক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সাজাপ্রাপ্ত আসামি নিহত হয়েছে। ওই সময় পুলিশের চার সদস্য আহত হয়েছে। নিহত কামরুজ্জামান সাধু উপজেলার হারদি গ্রামের এমদাদুল হকের ছেলে।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) লুতফুল কবির জানান, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ দেশীয় পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি ও এক বস্তা ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে। 

চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ থানাধীন ডেবারপাড় এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শুক্কুর আলী (৪৫) নামে এক মাদকব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মিমতানুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালায় র‌্যাব। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদকব্যবসায়ীরা গুলি শুরু করে। পরে র‌্যাবও পাল্টা গুলি করলে তারা পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে আহত অবস্থায় শুক্কুর আলীকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব প্রায় ১০ হাজার পিস ইয়াবা, একটি ওয়ানশ্যুটার গান, বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

নেত্রকোনা:

নেত্রকোনা সদর উপজেলার মেদনী ইউনিয়নের বড়য়ারী এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আমজাদ হোসেন (৩২) নামে এক মাদকব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন বলেন, সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আমজাদ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে সঙ্গে নিয়ে সদর উপজেলার বড়য়ারী এলাকায় অভিযান চালানো হয়। ওই সময় আমজাদের সহযোগীরা পুলিশের ওপর হামলা চালালে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ শুরু হয়। এতে আমজাদ হোসেন নিহত হয়। ওই ঘটনায় তিনিসহ উপপরিদর্শক মহসিন, মামুন, মকবুল  ও  কনস্টেবল মালেক আহত হন। তাদের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া:

জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধন মিয়া (৩৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত  হয়েছে বলে দাবি করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

র‍্যাব-১০ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন ফারুকী দাবি করেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাবের একটি দল আজ মঙ্গলবার ভোর রাতে উপজেলার সোনারামপুর এলাকায় অবস্থান নেয়। এ সময় নারায়ণগঞ্জ থেকে মাদকের চালান সেখানে পৌঁছে। র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা গুলি করে। র‍্যাবও পাল্টা গুলি করে। এ সময় বন্দুকযুদ্ধে ধন মিয়া নিহত হন। তাঁর কাছ থেকে ১১ হাজার ৭০০ পিস ইয়াবা, নগদ ৪৮ হাজার ৭০০ টাকা ও একটি প্রাইভেটকার জব্দ করে পিস্তল উদ্ধার করা হয়। তাঁর স্ত্রী আরজিনা বেগমকেও আটক করা হয়েছে। ধন মিয়ার বিরুদ্ধে চারটি মামলা রয়েছে।’

ফেনী:

সদর উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লেমুয়া এলাকায় গতকাল সোমবার রাতে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম মঞ্জুর আলম মঞ্জু।

আজ (মঙ্গলবার) সকালে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)-৭ সিপিসি-১ এর অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার শাফায়াত জামিল ফাহিম জানান,  মঞ্জুর দেহ তল্লাশি করে ১০ হাজার ইয়াবা, একটি বিদেশি পিস্তল, সাতটি গুলি, পাঁচটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

দিনাজপুর:

বিরামপুর উপজেলায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে প্রবল হোসেন (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার রাতে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সবুর দাবি করেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিনটি গুলি, পাঁচটি ককটেল ও ৯২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য থেকে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহে সারা দেশে ২২ ব্যক্তি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।

চলতি মাসের ৪ মে থেকে চলা মাদকবিরোধী অভিযানে সোমবার সকাল পর্যন্ত ২৮ জন মারা গেছে। এর মধ্যে গত রোববার চারজন এবং গতকাল সোমবার নয়জনসহ মোট ১৩ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া গত ১৫ মে দুজন, ১৭ মে তিনজন, ১৮ মে একজন, ১৯ মে তিনজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে আজ মঙ্গলবার আরও ১১ জন নিহতের খবর এল। 

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানিয়েছে, নিহতরা মাদক ব্যবসায়ী। এসব ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র। বিএনপি একে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হিসেবে অভিহিত করেছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top