Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ , সময়- ৮:২৩ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া অন্য কিছু নিতে পারবেন না : ডিএমপি কমিশনার দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে জামাতের সময়সূচী  ব্রাজিলের সাপোর্টার প্রধানমন্ত্রী, একই দলের সমর্থক জয় মুসলিম উম্মাহর ঐক্যে ফাটল সৃষ্টি করতেই ইসরাইলের সৃষ্টি নূর চৌধুরী'কে দেশে ফেরাতে কানাডার আদালতে মামলা করেছে সরকার নির্বাচনী কৌশলগত কারনেই জামায়াতের সঙ্গ ছাড়ছে বিএনপি বিশ্বকাপ উদ্বোধনী ম্যাচে ৫-০ ব্যবধানে জয় পেল স্বাগতিক রাশিয়া বাগেরহাট ৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নির্বাচিত এমপি'র শপথগ্রহণ ঘরমুখো মানুষ, চরম দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন ট্রেনের যাত্রীরা

বাংলা ভাগ হলেও রবীন্দ্র-নজরুল অবিভক্ত : শেখ হাসিনা


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ২৭ মে ২০১৮ ১২:১৯ এএম:
বাংলা ভাগ হলেও রবীন্দ্র-নজরুল অবিভক্ত :  শেখ হাসিনা

দুই বাংলার আত্মার যোগাযোগকে উসকে দিয়ে রবীন্দ্র-নজরুল প্রসঙ্গ তুললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ৷ বাংলা ভাগ হলেও রবীন্দ্র-নজরুল অবিভক্ত৷ এই সম্মান শুধু কোনও ব্যক্তির নয়, দুই বঙ্গের আপামর বাঙালির৷ কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শনিবার দুপুরে আসানসোলে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এভাবেই দুই বাঙালির আত্মিক যোগকে আরও দৃঢ় করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ৷

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ বললেন, “ভারত সব সময় বাংলাদেশের পাশে থেকেছে। একসঙ্গে খাবার ভাগ করে খেয়েছে। ১৯৭৫-এর যুদ্ধবিধ্বস্ত সময় ভারত আমাদের পাশে থেকেছে। যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশকে গড়ে তুলতে সাহায্য করেছে ভারত। আমি আজ এই সম্মানে আপ্লুত৷ এই সম্মান বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের আপামর বাঙালির।”

ভারত বাংলাদেশের বন্ধুত্বের পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ৷ তিনি বলেন, “১৯৯৯ সালে বিশ্বভারতীর দেশিকোত্তম সম্মান নিতে আমি এখানে এসেছিলাম। সেবারই নজরুলের জন্মস্থান চুরুলিয়ায় আমি গিয়েছিলাম। তখন সত্যিই দুরাবস্থা ছিল। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ তিনি সেই অবস্থার পরিবর্তন করেছেন। নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন। এজন্য তাঁকে অভিনন্দন।” বাংলাদেশের জাতীয় কবি নজরুলের আদর্শে অনুপ্রাণিত প্রতিটি বাঙালি। সেকথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ। এপ্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ বলেন, “শুধু ইসলামিক ধর্মকথাই নয়। শ্যামা সংগীত, কীর্তনের মতো হিন্দুধর্ম তত্ত্বও সহজ বাংলায় মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পেরে ছিলেন নজরুল। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নজরুলের লেখায় অনুপ্রেরণার ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের।”

এদিন বিকেলে কলকাতায় ফিরে আসার পর বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একান্ত বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ। দুই নেত্রীর মধ্যে দীর্ঘদিনের যে মধুর সম্পর্ক তার টানেই এই বৈঠক। ব্যক্তিগতভাবে কলকাতা আসার আগে ঢাকা থেকে ফোন করে মমতার সঙ্গে কথা বলে এই আলোচনার সূচি চূড়ান্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ। মুখ্যমন্ত্রী বোলপুরে সেকথা উল্লেখ করে জানিয়েছিলেন, “আমাদের দুজনের মধ্যে বহুদিনের সম্পর্ক। তার জেরেই ফের আমরা দেখা করব। কথা বলব।” এছাড়া এদিন নেতাজি ভবনেও যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ।

এদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ'কে ডি-লিট সম্মান দেওয়া হয় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে। অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে এদিন সকাল থেকেই ছিল সাজসাজ রব। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি উপস্থিত হতে পারেননি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সাধন চক্রবর্তী ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্তরা উপস্থিত ছিলেন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top