Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ , সময়- ৮:৪০ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া অন্য কিছু নিতে পারবেন না : ডিএমপি কমিশনার দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে জামাতের সময়সূচী  ব্রাজিলের সাপোর্টার প্রধানমন্ত্রী, একই দলের সমর্থক জয় মুসলিম উম্মাহর ঐক্যে ফাটল সৃষ্টি করতেই ইসরাইলের সৃষ্টি নূর চৌধুরী'কে দেশে ফেরাতে কানাডার আদালতে মামলা করেছে সরকার নির্বাচনী কৌশলগত কারনেই জামায়াতের সঙ্গ ছাড়ছে বিএনপি বিশ্বকাপ উদ্বোধনী ম্যাচে ৫-০ ব্যবধানে জয় পেল স্বাগতিক রাশিয়া বাগেরহাট ৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নির্বাচিত এমপি'র শপথগ্রহণ ঘরমুখো মানুষ, চরম দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন ট্রেনের যাত্রীরা

শনিবার অভিযানে ১১ জেলায় বন্দুকযুদ্ধে অন্তত ১১ জন নিহিত 


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ২৭ মে ২০১৮ ২:৫৫ পিএম:
শনিবার অভিযানে ১১ জেলায় বন্দুকযুদ্ধে অন্তত ১১ জন নিহিত 

মাদকবিরোধী অভিযানে ১১ জেলায় বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছেন অন্তত ১১ জন। শনিবার (২৬ মে) মধ্যরাতে এ সব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, কুষ্টিয়া, চাঁদপুর, ঠাকুরগাঁও, বাগেরহাটে ও ময়মনসিংহে, নোয়াখালীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছেন আটজন। এছাড়া মেহেরপুর, ঝিনাইদহ ও খুলনায় নিজেদের মধ্যে গোলাগুলিতে তিনজন মারা গেছেন।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, এরা মাদক ব্যবসায় সম্পৃক্ত। এদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে

কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভার কাউন্সিলর মো. একরামুল হক (৪৬) র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছেন। শনিবার (২৬ মে) দিবাগত রাত ১২টার দিকে টেকনাফের নোয়াখালীপাড়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোনের সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) মিমতানুর রহমান জানান, একরামুল হক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত ইয়াবার গডফাদার। তিনি টেকনাফ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন।

এই র‌্যাব কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে ১০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ১টি বিদেশি পিস্তল, ১টি ওয়ান শুটার গান, ৬ রাউন্ড গুলি ও ৫টি খালি খোসা উদ্ধার করা হয়। চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রেহান উদ্দিন (২৮) নামে একজন মারা গেছেন। এসময় অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ তিনজনকে আটক করা হয়। বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের তিন সদস্য আহত হন।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইফতেখার হাসান সারাবাংলাকে জানান, নিহত রেহান উদ্দিন চিহ্নিত ও পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে দুটি হত্যা, তিনটি মাদক আইনের মামলাসহ  সীতাকুণ্ড থানায় সাতটি মামলা আছে।

ইফতেখার হাসান জানান, রেহানের লাশের পাশে একটি এলজি এবং আটক তিনজনের কাছে একটি এলজি, ১০ রাউন্ড গুলি, চাপাতি, ছোরা ও ৫ হাজার ইয়াবা পাওয়া গেছে। আহত তিন পুলিশ সদস্যকে উপজেলা সদরে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে ।

ঝিনাইদহের শৈলকূপার বড়দাহ গ্রামে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলিতে লিটন মোল্লা (৩৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। পুলিশের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে ১টি শুটারগান, ৩ রাউন্ড গুলি, ১০ বোতল ফেনসিডিল ও কিছু ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

শৈলকূপা থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, লিটন মোল্লার  বিরুদ্ধে শৈলকূপা ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায়  মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। তিনি এলাকার একজন শীর্ষ স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী। মেহেরপুরের গাংনীতে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে বন্ধুকযুদ্ধে হাফিজুর রহমান হাফি (৪৮) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী মারা গেছেন।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্র নাথ সরকার জানান, হাফিজুরের বিরুদ্ধে  গাংনী  থানায় দুই ডজনের বেশি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও ১১২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

কুষ্টিয়ায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আব্দুল হালিম নামের এক ব্যক্তি মারা গেছে। পুলিশের দাবি, সে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৭শ পিচ ইয়াবা এবং দুটি দেশি বন্দুক উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন জানান, কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং ডি ব্লকে মাদকের চালান বিক্রি হচ্ছে, এমন খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এসময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে তারা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে হালিম নামের একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ জানায়, হালিম কুষ্টিয়া শহরতলীর বড়িয়া এলাকার সলিম মন্ডলের ছেলে এবং জেলার তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ার তিনটি থানায় মাদক এবং অস্ত্রসহ সাতটি মামলা আছে। ময়মনসিংহ শহরের মরাখলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। এ সময় আহত হয় দুই পুলিশ সদস্য।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. আশিকুর রহমান জানান, শনিবার রাত দেড়টায় শহরের মরাখলা এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের খোঁজ পেয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময়  তারা পু‌লিশকে লক্ষ্য ক‌রে গু‌লি ছোড়ে, পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এসময় মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলেও অজ্ঞাত এক মাদক ব্যবসায়ীকে গু‌লিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার ক‌রে পুলিশ। পরে হাসপাতা‌লে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা ক‌রেন।

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে সেলিম প্রধান (৩৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।  তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে সাতটি মামলা রয়েছে।

পুলিশ জানায়, শনিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশ ও চাঁদপুর গোয়েন্দা পুলিশেরএকটি দল হাজীডোন এলাকা থেকে সেলিমকে আটক করে। এ সময় সেলিমের সহযোগীরা পুলিশের উপর গুলি ও হামলা চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। ঘটনাস্থল থেকে ৪ রাউন্ড গুলি, ৬ রাউন্ড কার্তুজ, ১১০ পিস ইয়াবা, দুইটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে।

ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রফিকুল ইসলাম নামে এক মাদক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। শনিবার দিবাগত রাতে রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ মহারাজায়  এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে ওই উপজেলার শেয়ালডাঙ্গী গ্রামের হুমায়ুন কবিরের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামকে ধরতে যান তারা। এসময় রফিকুলসহ আরো বেশ কয়েকজন পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

এ সময় বন্দুকযুদ্ধে রফিকুল নিহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, ১০০ বোতল ফেনসিডিল ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে। তার বিরুদ্ধে ৮টি মামলা রয়েছে বলে জানান পুলিশ।

খুলনার দিঘলিয়া উপজেলায় মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আবুল কালাম নামে এক জন মারা গেছেন ।

খুলনা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিশেষ শাখার আনিসুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান,আবুল কালামের বিরুদ্ধে  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫টি মামলা রয়েছে। বাগেরহাটের চিতলমারীতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মিঠুন বিশ্বাস (৪৫) নামে এক মাদক বিক্রেতা  মারা গেছেন।

চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অনুকূল বিশ্বাস জানান, বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি শাটারগান, দুই রাউন্ড গুলি, দুই কেজি গাঁজা ও ১০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। মিঠুনের বিরুদ্ধে ২২টি মামলা রয়েছে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মো. হাছান প্রকাশ ইয়াবা হাছান (৩৫) নামে এক জন মারা গেছেন। এসময় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজিম উদ্দিন জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, ৭ রাউন্ড গুলি, একটি রামদা, তিনটি লম্বা চেনি, একটি দা ও ১২০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। হাছানের বিরুদ্ধে সোনাইমুড়ী থানায় অস্ত্র আইনে তিনটিসহ মোট ২১টি মামলা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্যে মাদক বিরোধী অভিযানের পর থেকে বন্দুকযুদ্ধে সারাদেশে কমপক্ষে ৮১ জন মারা গেছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top