Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ , সময়- ৮:৪৬ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া অন্য কিছু নিতে পারবেন না : ডিএমপি কমিশনার দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে জামাতের সময়সূচী  ব্রাজিলের সাপোর্টার প্রধানমন্ত্রী, একই দলের সমর্থক জয় মুসলিম উম্মাহর ঐক্যে ফাটল সৃষ্টি করতেই ইসরাইলের সৃষ্টি নূর চৌধুরী'কে দেশে ফেরাতে কানাডার আদালতে মামলা করেছে সরকার নির্বাচনী কৌশলগত কারনেই জামায়াতের সঙ্গ ছাড়ছে বিএনপি বিশ্বকাপ উদ্বোধনী ম্যাচে ৫-০ ব্যবধানে জয় পেল স্বাগতিক রাশিয়া বাগেরহাট ৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নির্বাচিত এমপি'র শপথগ্রহণ ঘরমুখো মানুষ, চরম দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন ট্রেনের যাত্রীরা

স্বামীর বন্দিদশা থেকে পালালো মিতু, নিরাপত্তা চেয়ে জিডি


ডেস্ক রিপোর্ট

আপডেট সময়: ২৯ মে ২০১৮ ১১:৪৭ পিএম:
স্বামীর বন্দিদশা থেকে পালালো মিতু, নিরাপত্তা চেয়ে জিডি

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের মেয়ে নাজিরা আক্তার মিতু তার ডিভোর্সী স্বামীর বন্দিদশা থেকে ৬দিন পর মঙ্গলবার সকালে কৌশলে পালিয়েছেন। পরে তিনি মুক্ত হয়ে গোদনাইল নয়াপাড়া এলাকায় তার বর্তমান স্বামী স্বামী আবুল হোসেন সজিবের বাড়িতে চলে আসেন।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মিতুর ডির্ভোসী স্বামী ইউসুফ, সাদ্দাম ও কায়েস নামে তিনজন ব্যক্তি সজিবের বাড়িতে এসে সকলকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় মিতু সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ডির্ভোসী স্বামী ইউসুফসহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে একটি জিডি করেন। জিডি নং- সিদ্ধিরগঞ্জ থানা-১২৭৪ তাং : ২৯-৫-১৮।

জিডির সূত্র ও মিতিুর দেয়া তথ্যমতে মিতু তার পূর্বের স্বামী ইউসুফ বতর্মান স্বামী সজিবের সাথে তার ঘর সংসান মেনে নিতে পারছেন না। এতে ইউসুফ মিতুর স্বামী সজিব ও তার শশুর বাড়ির লোকদের হয়রানী করার উদ্দেশ্যে মিতুকে অপহরন করা হয়েছে মর্মে উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন।

পরে, মিতু গত ২০মে (রোববার) অপহরন নয় প্রেমের টানে ঘর ছেড়েছি বলে নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আশেক ইমামের আদালতে এ স্বীকারোক্তি দেয়।

বেলা সাড়ে ১২ টায় আদালত থেকে বের হলে পুলিশ ২২ ধারা জবানবন্দির কথা বলে নাজিরা আক্তার মিতুকে ফতুল্লা মডেল থানায় নিয়ে যায়। ২১মে (সোমবার) বেলা পৌনে ৩ টায় ২২ ধারা জবানবন্দি শেষে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ আদালতে নিয়ে আসে। আদালত জবানবন্ধি শুনে নাজিরা আক্তার মিতুকে নিজ জিম্মায় জামিন দেন।

মিতুর বর্তমান স্বামী আবুল হোসেন সজিবের বাড়িতে যাওয়ার ইচ্ছা থাকলেও ডিভোর্সী স্বামী ইউসুফসহ কয়েকজন ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (আইসিপি) গোলাম মোস্তফার ব্যবহৃত গাড়িতে ( ঢাকা মেট্রো চ ১৩-১৯৭৬) করে মিতুকে তুলে নিয়ে তার ডিভোর্স করা স্বামী ইউসুফের বাড়ীতে নিয়ে যায়। পরে মিতুকে পশুর মত আটক রেখে বন্দিদশায় রেখে মারধর করে। মিতু নিরবে তা সহ্য করতে থাকে।পরে মিতু সেই বন্দিদশা থেকে কৌশলে পালিয়ে তার স্বামী সজিবের বাড়িতে চলে আসেন।

পরে মিতুর ডির্ভোসী স্বামী ইউসুফ, সাদ্দাম ও কায়েস নামে তিনজন সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল নয়াপাড়া এলাকায় আবুল হোসেন সজিবের বাড়ী এসে মিতু খোঁজতে থাকে এবং পরিবারের সকলকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

হুমকির কারনে নাজিরা আক্তার মিতুসহ তার বর্তমান স্বামীর পরিবারের সকলেই আতঙ্কে রয়েছে বিদায় মিতু সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ওই সাধারন ডায়েরী (জিডি) করেন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top