Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮ , সময়- ২:৫৭ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া অন্য কিছু নিতে পারবেন না : ডিএমপি কমিশনার দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে জামাতের সময়সূচী  ব্রাজিলের সাপোর্টার প্রধানমন্ত্রী, একই দলের সমর্থক জয় মুসলিম উম্মাহর ঐক্যে ফাটল সৃষ্টি করতেই ইসরাইলের সৃষ্টি নূর চৌধুরী'কে দেশে ফেরাতে কানাডার আদালতে মামলা করেছে সরকার নির্বাচনী কৌশলগত কারনেই জামায়াতের সঙ্গ ছাড়ছে বিএনপি বিশ্বকাপ উদ্বোধনী ম্যাচে ৫-০ ব্যবধানে জয় পেল স্বাগতিক রাশিয়া বাগেরহাট ৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নির্বাচিত এমপি'র শপথগ্রহণ ঘরমুখো মানুষ, চরম দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন ট্রেনের যাত্রীরা

জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে শেখ হাসিনা

বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর আহ্বান


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১১ জুন ২০১৮ ১:০৫ পিএম:
বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর আহ্বান

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কানাডার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার কুইবেকে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে (লে পেটিট ফ্রন্টেন্স) জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে শেখ হাসিনা এ আহ্বান জানান। খবর ইউএনবি।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এক ব্রিফিংয়ে জানান, শেখ হাসিনা কানাডার প্রধানমন্ত্রীর কাছে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিকে অবিলম্বে বের করে দেয়ার অনুরোধ জানান।

শেখ হাসিনা ট্রুডোকে বলেন, নূর চৌধুরী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি। বাংলাদেশের আইনে সে একজন অপরাধী। নূর চৌধুরী বহু বছর ধরে কানাডায় বসবাস করছেন।

নূর চৌধুরীকে দ্রুত বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণে কানাডার প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করে শেখ হাসিনা আরও বলেন, বাংলাদেশের জনগণ চায় না কোনো অপরাধী আইনের হাত থেকে বেঁচে যাক।

এসময় ট্রুডো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সমবেদনা জানিয়ে বলেন, আমি বুঝতে পারছি আপনার জন্য বিষয়টি কতটুকু বেদনাদায়ক। আমি এতটুকু বলতে পারি নূর চৌধুরীর কানাডার নাগরিকত্ব নেই। সে কানাডার নাগরিক নয়।

ট্রুডো আশ্বস্ত করে বলেন, অপরাধের দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে তার দেশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কাজ করে যাচ্ছেন। এসময় রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানাডার সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি এসময় অভিযোগ করেন, মিয়ানমার বাংলাদেশের সঙ্গে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে চুক্তি সই করলেও তা বাস্তবায়নের সময় এসে নীরবতা পালন করছে। প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি এলাকা থেকে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। আরও ভালোভাবে তাদের থাকার সুযোগ করে দিতে ভাষানচর এলাকায় কাজ চলছে বলে তিনি কানাডার প্রধানমন্ত্রীকে জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান এবং পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক এসময় উপস্থিত ছিলেন। কানাডার প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে জি-সেভেন আউটরিচ সম্মেলনে যোগ দিতে শুক্রবার দুপুরে কুইবেকে পৌঁছান শেখ হাসিনা। সন্ধ্যায় জি-সেভেন আউটরিচ সম্মেলনে যোগ দিতে আসা নেতাদের সম্মানে কানাডার গভর্নর জেনারেলের দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেন তিনি।

কানাডার স্থানীয় সময় সোমবার দুপুরে টরন্টো থেকে দেশের পথে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী। দুবাইয়ে যাত্রাবিরতি করে মঙ্গলবার রাতে তার ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top