Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮ , সময়- ২:৪৬ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী ঢাকায় সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবর্ধনার দরকার নেই, জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধের মামলায় ৩৪তম রায়ের অপেক্ষা প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অভিমুখে জনস্রোত নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্ব আরও প্রকট : ভেস্তে যেতে বসেছে যুক্তফ্রন্টের উদ্যোগ শেখের বেটি মোক নয়া ঘর দেল বাহে, মোক দেখার কাইয়ো ছিল না ‘স্বপ্ন’ প্রকল্পটির সুফল পাচ্ছে সাতক্ষীরা ও কুড়িগ্রাম জেলার ৮,৯২৮ দরিদ্র নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা দিতে প্রস্তুত আওয়ামী লীগ ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করে দিল্লির গোলামি করতে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি : গয়েশ্বর

রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ-কানাডার বিশেষ দূত আসছেন ঢাকায়


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৮ জুলাই ২০১৮ ৩:৪৭ এএম:
রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ-কানাডার বিশেষ দূত আসছেন ঢাকায়

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে নিযুক্ত জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুয়েতেরেসের বিশেষ দূত ক্রিস্টিন স্ক্র্যানার বার্গেনার এবং কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত বব রে ঢাকায় আসছেন।

বব রে দুই দিনের সফরে রোববার এবং বার্গেনার আগামী ১২ জুলাই বাংলাদেশে আসবেন বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও জাতিসংঘের সদর দপ্তর সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র মতে, রোববার সকালে বব রে ঢাকায় আসার পরই রোহিঙ্গাদের দুর্দশা স্বচক্ষে দেখতে কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা হবেন। কানাডার এই বিশেষ দূত গত বছরের নভেম্বরে প্রথম বাংলাদেশ সফরে আসেন। চলতি বছরের মে মাসে দ্বিতীয় সফর করেন। এটা তার তৃতীয় বাংলাদেশ সফর।

বার্গেনার গত ২৬ এপ্রিল জাতিসংঘ মহাসচিবের মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত হিসেবে নিয়োগ পান। তিনি ইতোমধ্যে মিয়ানমার সফর করেছেন। জাতিসংঘের মহাসচিব বিশেষ দূত হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর এটাই প্রথম বাংলাদেশে সফর বার্গেনারের।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, বব রে ও বার্গেনার ঢাকা সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীসহ বিভিন্ন দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। জাতিগত নিধন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় ছয় লাখের রোহিঙ্গা।

বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন এ ঘটনায় জাতিগত নিধনের আলামত খুঁজে পায়। জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন এই ঘটনাকে ‘জাতিগত নিধনের পাঠ্যপুস্তকীয় উদাহরণ’ অ্যাখ্যা দেয়। মিয়ানমার এই অভিযোগ অস্বীকার করলেও রাখাইনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ রাখে। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পরে তারা জাতিসংঘকে সেখানে প্রবেশাধিকার দিতে বাধ্য হয়।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top