Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৮ , সময়- ৪:০৫ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
অটলবিহারী বাজপেয়ীর অবস্থা সঙ্কটজনক আলোর গতিতে বাংলার আকাশ ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর নাম গভীর শোক আর শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশ সরকার গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে - এইচআরডব্লিউ : বিশ্লেষক প্রতিক্রিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত ছিল দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিক চক্র : সেলিম জাতীয় নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : কামরুল নির্বাচনে বিশ্বাস করি, ভোটের লড়াই করে ক্ষমতায় যেতে চাই : মোহাম্মদ নাসিম কাবুলে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় ৪৮ জন নিহত এখন পর্যন্ত ৪০ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে শেষ বিদায় জানালেন বানারীপাড়াবাসী

৩১টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্ধোধন ও ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্থর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন

মানুষের কল্যাণে জন্য কাজ করে আওয়ামী লীগ : শেখ হাসিনা


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ১৫ জুলাই ২০১৮ ১:৪১ এএম:
মানুষের কল্যাণে জন্য কাজ করে আওয়ামী লীগ : শেখ হাসিনা

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় বসিয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষের কল্যাণে কাজ করে। বিএনপি-জামাত হত্যা, খুন, আগুন সন্ত্রাস আর ধ্বংস করা ছাড়া আর কিছুই জানে না। এতিমের টাকা চুরি করে আজ জেল খানায় রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। আওয়ামী লীগ দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণে ইতোমধ্যেই সক্ষম হয়েছে। রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ কালভার্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধি ভাতা, শিক্ষা সহায়তা, বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণসহ প্রভৃতি উন্নয়নে জনগণের সেবা করছে। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিকিৎসা ক্ষেত্রে জনগনের দৌড়গৌড়ায় কমিউনিটি ক্লিনিক, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র, উপজেলা ও জেলা হাসপাতালগুলোতে আধুনিক ও যুগোপযোগী চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ ঘরে বসেই ৩০ টি ওষুধ বিনামূল্যে পাচ্ছেন। কৃষি ঋণ সহজ, বেকারদের বেকারত্ব দূরকরণে কর্মসংস্থান ব্যাংকের মাধ্যমে সহজ ঋন, নদী ভাঙ্গাদের আর্থিক সহায়তা, গৃহহারাদের আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে গৃহহারাদের গৃহদান, একটি বাড়ি একটি খামারের মাধ্যমে মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন, বিনা জামানতে কৃষি ঋণ ব্যবস্থা, কৃষকের নিজস্ব ব্যাংক এ্যাকাউন্টে ভর্তূকির টাকা দেয়া হচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ইতোমধ্যে মহাকাশ জয় করেছি। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করেছি। তিনি বলেন, আমরা নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন বা লুটপাট করতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসেনি। আমরা জনগণের সেবার ব্রত নিয়ে ক্ষমতায় এসেছি। তিনি বলেন, মানুষের সুখ শান্তি ও নিরাপদে থাকার জন্য আইন শৃংখলা রক্ষাসহ বিভিন্ন ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। দেশ থেকে সন্ত্রাস, মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ধ্বংশ করতে অভিযান শুরু করেছি। আমরা জানি জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক একটি পরিবারকে ধবংশ করে দেয়। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আপনাদের সব ধরণের সহযোগিতা করতে চাই। আমিও আপনাদের সহযোগিতা চাই। আমরা দেশের জনগণের কল্যাণে, দেশের উন্নয়নে সবসময় বড় বড় বাজেট দিয়েছি। তিনি বলেন, আজকে পাবনায় ৪৯ টি কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর করে গেলাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নদী শাসন, রেল যোগাযোগ বৃদ্ধি, গ্রামীণ জনগোষ্ঠির মধ্যে ক্রমাগতভাবে নগর, শহর সুবিধা প্রদান করবো। আমরা ক্ষমতায় গিয়ে আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আবার ক্ষমতায় বসতে পারলে প্রত্যেক জেলায় একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করে দেবো। শেখ হাসিনা কখনো প্রতিশ্রুতি দিয়ে সেই প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে না। 

তিনি বলেন, বিগত বিএনপি জামাত জোট ক্ষমতায় থেকে দেশকে অন্ধকারের মধ্যে ডুবে রেখেছিল। তারা ১৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রেখে গিয়েছিল। আমরা পরপর দুবার ক্ষমতায় এসে বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ এর পরিমান ১৯ হাজার মেগাওয়াটে এসে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, আজ রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প কাজ চলছে। খুব শীঘ্রই আমরা এই প্রকল্প থেকে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাবো। যা জাতীয় গ্রীড লাইনে সংযুক্ত হবে।  তিনি বিএনপি জামাত জোটের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা ক্ষমতায় থেকে দেশের উন্নয়নের চিন্তা না করে খুন, হত্যা ও জ্বালাও পোড়ায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে লিপ্ত ছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সুযোগ সুবিধা সব সময়ে নিশ্চিত করেছে। তিনি বলেন, দেশের মানুষ জানে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে কখনো চাইতে হয়না। দেশকে সমৃদ্ধ ও উন্নত করতে নিজ তাগিদেই উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা আর ভিক্ষা করে দেশ চালাতে চাইনা। উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়তে সকলকে একযোগে কাজ করার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এমপির সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপির সঞ্চালনে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য দেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, রেলপথ মন্ত্রী মজিবুল হক এমপি, ড. মির্জা আব্দুল জলিল, পাবনা-১ আসনের এমপি এডভোকেট শামসুল হক টুকু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা এসএম কামাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল, পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন, সম্পাদক সোহেল হাসান শাহীন প্রমুখ বক্তব্য দেন। 

৩১টি প্রকল্পের উদ্ধোধন ও ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন। বিকেলে তিনি পাবনা পুলিশ লাইন মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষন দেবেন বলে জানা গেছে। 

প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থল থেকে ৩১টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্ধোধন ও ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্থর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন। সেগুলো হচ্ছে পাবনার নব নির্মিত রেল লাইনের রেল চলাচল, পাবনা মেডিকেল কলেজের ছাত্রাবাস ও ছাত্রী নিবাস, ঈশ্বরদী থানা ভবন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ, আটঘরিয়ার মাজপাড়া, ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী-সলিমপুর-লক্ষীকুন্ডা-সাঁড়া, পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর এবং চাটমোহর ছাইকোলার ইউনিয়ন ভূমি অফিস, ফরিদপুর উপজেলার বড়াল নদীর উপর নারায়ণপুর সেতু, ভাঙ্গুরা উপজেলার গোমানি নদীর উপর নৌবাড়িয়া সেতু, ঈশ্বরদী ও চাটমোহর উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, পাবনা সিটি কলেজের একাডেমিক ভবন, আটঘরিয়া ও দেবোত্তর কলেজের একাডেমিক ভবন, খিদিরপুর ডিগ্রী কলেজের একাডেমিক ভবন, চাটমোহর মহিলা কলেজের একাডেমিক ভবন, বোনকোলা স্কুল এন্ড কলেজের একাডেমিক ভবন,  সুজানগর কলেজ ও মহিলা কলেজের একাডেমিক ভবন, শহীদ নুরুল হোসেন ডিগ্রী কলেজের একাডেমিক ভবন, সাঁথিয়া ও ঈশ্বরদী মহিলা কলেজের একাডেমিক ভবন, সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের প্রশাসনিক ভবন, ডেঙ্গার গ্রাম ডিগ্রী কলেজ কলেজের একাডেমিক ভবন, আটঘরিয়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, চাটমোহর উপজেলার গোমানি নদীর উপর নিমাইচড়া সেতু,  কাটাখালী সেতু, আত্রাই নদীর উপর আত্রাই সেতু, সুজানগর উপজেলার ধোলাইখাল সেতু, চাটমোহর,ভাঙ্গুড়া-ফরিদপুর-ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া-সাঁথিয়া-সুজানগরের শতভাগ বিদ্যুতায়ন প্রকল্প উদ্ধোধন। এ ছাড়াও যে ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্থর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন সেগুলো হচ্ছে, রূপপুর পারমানবিক বিদ্রুৎ কেন্দ্রের সিগন্যালিং সহ রেললাইন নির্মাণ, পাবনা জেলা সদরে এক হাজার আসন বিশিষ্ট অডিটোরিয়াম কাম মাল্টিপারপাস হল, সুজানগর উপজেলার কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সাঁথিয়া ও আটঘরিয়া উপজেলার ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স ষ্টেশন, চাটমোহর, বেড়া ও সুজানগর উপজেলার সাব-রেজিষ্টার অফিস ভবন, জেলা রেজিষ্টারের অফিস ভবন, পুলিশ লাইনের মহিলা পুলিশ ব্যারাক ভবন, সুজানগর উপজেলার সাগড়কান্দি ইউনিয়নের ও আটঘরিয়া হাদল ইউনিয়ন ভূমি অফিস, পাবনা মেডিকেল কলেজের ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল, জেলা শিল্পকলা। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাস্থল দুপুর ১২টা থেকেই জন সমুদ্রে পরিনত হয়। সকালের দিকে জেলা শহরের কিছু দোকানপাট খোলা থাকলেও দুপুর ১২টার পর থেকে সকল দোকানপাট-ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। রাস্তায় কোন প্রকার যানবাহন চলাচল করেনি। মাইলের পর মাইল-দীর্ঘ পথ নেতা-কর্মিরা পায়ে হেঁটে মিছিল নিয়ে জনসভাস্থলে পৌ৭ছে। রংবেরংয়ের ব্যানার ফেষ্টুন, প্ল্যাকার্ড বহন করে নানা শ্লোগানে মুখরিত করে তুলেছিলো রাস্তাঘাট। কানায় কানায় পূর্ণ জনসভাস্থল। মিছিল আর মানুষের ঢলে রাস্তায় পায়ে চলার অবস্থাও ছিলো না। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে রাস্তার দু‘ধারে হাজার হাজার নারী পুরুষ প্রখড় রোদ উপেক্ষা করে দাঁড়িয়ে তাঁর বক্তব্য শোনেন।  


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top