Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৩:১০ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে গত বছরের তুলনায় আরও দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার পর এবার ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা চলতি বছরেই বাংলাদেশে চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্ট শেষ পর্যন্ত ভর্তুকি দিয়ে গ্যাসের দাম না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত : বিইআরসি নরসিংদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ যৌথবাহীনির অভিযান সমাপ্ত  এই মুহূর্তে কোনও রাজবন্দি নাই, যারা আছে তারা সবাই অপরাধী : তথ্যমন্ত্রী অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ছাড়া দুদক টিকবে না : দুর্নীতি দমন কমিশন নরসিংদীর 'জঙ্গি আস্তানা' থেকে দু'টি লাশ উদ্ধার, জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান ৮ হাজার রোহিঙ্গার প্রথম তালিকা যাচাই করে তথ্য স্বীকার করেছে মায়ানমার জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় সম্মিলিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই : পানি সম্পদ মন্ত্রী

অন্তরঙ্গ ছবি তোলায় প্রকাশ্যে মারধর, অতঃপর সাংবাদিকতাকে বিদায়!


প্রজন্মকণ্ঠ রিপোর্ট

আপডেট সময়: ২৪ জুলাই ২০১৮ ৯:৪৫ পিএম:
অন্তরঙ্গ ছবি তোলায় প্রকাশ্যে মারধর, অতঃপর সাংবাদিকতাকে বিদায়!

প্রকাশ্যে মারধরের শিকার হয়েছেন বহুল আলোচিত সেই ফটো সাংবাদিক জীবন আহমেদ।  টিএসসি এলাকায় বৃষ্টিভেজা এক যুগলের অন্তরঙ্গ ছবি তুলে রাতারাতি আলোচনায় আসা জীবন  মারধরের ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে সাংবাদিকতা ছেড়ে দিচ্ছেন বলে নিজের ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। তিনি একটি অনলাইন পোর্টালে কর্মরত ছিলেন।

বুধবার জীবন আহমেদ তার নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ কথা জানান তিনি।

এর কারণ হিসেবে জানা যায়- সেই ভাইরাল হওয়া ছবি তোলার অপরাধে নিজের পেশার লোকদের হাতেই মারধরের শিকার হন তিনি।

জানা গেছে, টিএসসির যে স্থানে ছবিটি তোলা হয়েছে সেখানেই তাকে প্রকাশ্যে মারধর করা হয়েছে জীবন আহমেদকে। লাঞ্ছনাকারীরা সবাই আলোকচিত্রশিল্পী বলে জানা গেছে। একটি ইংরেজি দৈনিকের এক আলোকচিত্র সাংবাদিকেরও নাম যুক্ত রয়েছে এই ঘটনায়।

এ বিষয়ে জীবন আহমেদ বলেন, আমি কার বিরুদ্ধে কথা বলব? আমার পেশার লোকেরাই আমাকে মেরেছে। আমি কিছু বলতাম না তারা যদি আমাকে আড়ালে নিয়ে গিয়ে মারধর করত। কিন্তু তারা আমাকে মেরেছে প্রকাশ্যে টিএসসিতে।

জীবন আহমেদ বলেন, আমাকে মারার সময় তারা আমাকে বলছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের নির্দেশে মারছে। আমি নাকি কলঙ্কিত করেছি আলোকচিত্রশিল্পী সমাজকে। কিন্তু প্রক্টর স্যার একটু আগে ফোন দিয়ে বললেন, এ রকম নির্দেশনা তিনি দেননি দিতে পারেন না। আমিও জানি তারা গায়ের ঝাল মিটিয়েছে।

উল্লেখ্য, সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় বৃষ্টিভেজা একটি যুগল ছবি তুলে রাতারাতি আলোচনায় চলে আসেন আলোকচিত্রশিল্পী জীবন আহমেদ। সোমবার দিনব্যাপী ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনায় ছিল।

সাম্প্রতিককালের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে ভাইরাল ছিল ছবিটি। এমনকি মঙ্গলবারও সেই আলোচনায় ভাটা পড়েনি।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top