Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৮:৪৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
নরসিংদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ যৌথবাহীনির অভিযান সমাপ্ত  এই মুহূর্তে কোনও রাজবন্দি নাই, যারা আছে তারা সবাই অপরাধী : তথ্যমন্ত্রী অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ছাড়া দুদক টিকবে না : দুর্নীতি দমন কমিশন নরসিংদীর 'জঙ্গি আস্তানা' থেকে দু'টি লাশ উদ্ধার, জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান ৮ হাজার রোহিঙ্গার প্রথম তালিকা যাচাই করে তথ্য স্বীকার করেছে মায়ানমার জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় সম্মিলিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই : পানি সম্পদ মন্ত্রী চারদিনের সফরে রিয়াদের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী ড. কামালের হোসেনের টার্গেট সম্ভবত ক্ষমতায় যাওয়া নয়, তার টার্গেট শেখ হাসিনা : ওবায়দুল কাদের বিএনপির নেতৃত্বাধীন ভেঙে গেল ২০ দলীয় জোট, বেরিয়ে গেল ন্যাপ ও এনডিপি জঙ্গি আস্তানা : শেখেরচরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, গুলির শব্দ

বাংলাদেশ ব্যাংকের তদন্তে আতঙ্কে বিএনপি নেতা মিন্টু, মির্জা আব্বাস


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৯ আগস্ট ২০১৮ ১২:০২ পিএম:
বাংলাদেশ ব্যাংকের তদন্তে আতঙ্কে বিএনপি নেতা মিন্টু, মির্জা আব্বাস

তিনটি ব্যাংকে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ অর্থ লেনদেন করে সন্দেহ সৃষ্টি করায় তদন্তের মুখে পড়েছেন বিএনপির ডোনারখ্যাত ব্যবসায়ী আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং মির্জা আব্বাস। গত ১৫ দিনে উভয় নেতার তিনটি বেসরকারি ব্যাংক একাউন্টে অস্বাভাবিকহারে লেনদেন হওয়ায় বিষয়টি সন্দেহ সৃষ্টি হলে বাংলাদেশ ব্যাংকের মানি লন্ডারিং ইউনিট তদন্ত শুরু করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তদন্তের ঘটনায় আতঙ্কে পড়েছেন এই নেতারা। সূত্র বলছে, তদন্তের ঘটনা জানতে পারায় নিজেদের বাঁচাতে আত্মগোপন করেছেন এই দুই নেতা। একাধিকবার ফোন করেও তাদের মোবাইলে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ হন্যে হয়ে তাদের খুঁজছে।

সূত্র বলছে, গত ১৫ দিনে আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং মির্জা আব্বাসের একাউন্টে নির্ধারিত মাত্রার চেয়ে দ্বিগুণ হারে লেনদেন হয়েছে। যেটি ব্যাংক আইনের নিয়ম বহির্ভূত। এর আগেও অস্বাভাবিক লেনদেনের কারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের জিজ্ঞাসাবাদের সম্মুখিন হতে হয়েছিল তাদের। রাজনৈতিক নেতা পরিচয় দেওয়া নেতাদের একাউন্টে অস্বাভাবিক পরিমাণে লেনদেন হওয়ায় হতবাক হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর আগে সাহায্য-সহযোগিতায় পাওয়া টাকা বলে তদন্ত থেকে মুক্তি পান তারা। কিন্তু এবার লেনদেনের পরিমাণ অকল্পনীয় হওয়ায় বিএনপির এই দুই নেতার বিরুদ্ধে চুলচেরা বিশ্লেষণের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের ঘোষণা পাওয়ার পরপরই অপরাধের বোঝা মাথায় নিয়ে আত্মগোপন করেছেন আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং মির্জা আব্বাস। তাদের তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এখন খুঁজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

এই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মানি লন্ডারিং ইউনিটের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, বিএনপির দুই নেতাদের তিনটি বেসরকারি ব্যাংকের একাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেন হয়েছে। বিষয়টি সত্যিই আমাদের বিস্মিত করেছে। দুজনই লেনদেনের লিমিট পার করেছেন। নিজেদের রাজনৈতিক নেতা দাবি করে সঞ্চয়ী একাউন্ট করেন তারা দুজনে। কিন্তু সঞ্চয়ী একাউন্টে কিভাবে কোটি কোটি টাকা লেনদেন হয়, সেটি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। নিশ্চিতভাবে তারা রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে এই অপরাধগুলো করেছেন। তবে একটা কথা স্পষ্ট বলতে চাই, নিয়ম বহির্ভূতভাবে লেনদেনের উৎস খুঁজে বের করবই আমরা। অপরাধীদের বিন্দুমাত্র ছাড় দিবে না বাংলাদেশ ব্যাংক।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top