Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৮:৪৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
নরসিংদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ যৌথবাহীনির অভিযান সমাপ্ত  এই মুহূর্তে কোনও রাজবন্দি নাই, যারা আছে তারা সবাই অপরাধী : তথ্যমন্ত্রী অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ছাড়া দুদক টিকবে না : দুর্নীতি দমন কমিশন নরসিংদীর 'জঙ্গি আস্তানা' থেকে দু'টি লাশ উদ্ধার, জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান ৮ হাজার রোহিঙ্গার প্রথম তালিকা যাচাই করে তথ্য স্বীকার করেছে মায়ানমার জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় সম্মিলিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই : পানি সম্পদ মন্ত্রী চারদিনের সফরে রিয়াদের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী ড. কামালের হোসেনের টার্গেট সম্ভবত ক্ষমতায় যাওয়া নয়, তার টার্গেট শেখ হাসিনা : ওবায়দুল কাদের বিএনপির নেতৃত্বাধীন ভেঙে গেল ২০ দলীয় জোট, বেরিয়ে গেল ন্যাপ ও এনডিপি জঙ্গি আস্তানা : শেখেরচরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, গুলির শব্দ

বোরখা পড়া মহিলা ব্যাঙ্ক ডাকাতের মতো, বরিস জনসনের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় 


ডেস্ক রিপোর্ট

আপডেট সময়: ১০ আগস্ট ২০১৮ ৯:৫৮ পিএম:
বোরখা পড়া মহিলা ব্যাঙ্ক ডাকাতের মতো, বরিস জনসনের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় 

নিজস্ব প্রতিনিধি : ২৮ বছরের এক মুসলিম মহিলা বোরখা পরে ডেনমার্কের এক রাস্তায় বেরিয়েছিলেন। যার জেরে তাঁকে জরিমানা করা হয়। সে দেশের নিয়ামনুযায়ী, কোনও অবস্থাতেই কেউ পুরো শরীর ঢাকা কোনও পোশাক পরে রাস্তায় বেরোতে পারবেন না। এমন শাস্তির পর থেকেই ডেনমার্কের নিয়মের গেরো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকে। সেই তালিকায় ছিলেন ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ও ইতিহাসবিদ বরিস জনসন। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি একটি জনপ্রিয় খবরের কাগজে একটা কলম লেখেন। আর তাতে ঘটনার নিন্দা করার পরিবর্তে এমন কিছু কথা লিখে ফেললেন যে বিতর্ক ঘিরে ধরল এবার তাঁকেই।

নিজের কলমে বরিস লিখলেন, বোরখা পরা মহিলাদের সাধারণত ব্যাঙ্ক ডাকাতদের মতো দেখতে লাগে। অথবা কখনও কখনও মনে হয় যেন একটা আস্ত ডাকবাক্স রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। বোরখা বা নিকাব পরে রাস্তায় বেরনোটা হাস্যকর দেখায়। এমন কোনও পোশাক যা কি না মুখ পর্যন্ত ঢেকে দিয়ে তা অবিলম্বে বন্ধ করে দেওয়া উচিত। বরিস জনসন শুধু ব্রিটেনে নয়, গোটা বিশ্বে একজন স্বনামধন্য ব্যক্তিত্ব। তাঁর লেখা কলমে এমন কথা প্রকাশিক হওয়ার পর থেকে চারিদিকে নিন্দার ঝড় উঠেছে। এমনকী বরিসের লেখার নিন্দা করেছেন স্বয়ং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-ও। তাঁর বক্তব্য, ভাষা ও শব্দ বাছার ক্ষেত্রে আমাদের সবার খুব সতর্ক থাকা উচিত। বরিস যেভাবে গোটা ব্যাপারটাকে ব্যাখ্যা করেছে তা মেনে নেওয়া যায় না। প্রতিটা ধর্মের মানুষের নিজস্ব কিছু সংস্কৃতি থাকে। মুসলিম মহিলাদের বোরখা বা নিকাব পরাটা তাদের ধর্মের অঙ্গ। সেটা নিয়ে কারও এই ধরণের মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন।

কলম লেকা এম ন বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পরে অবশ্য ক্ষমা চাইতেও অস্বীকার করেন বরিস। তাঁর সাফ যুক্তি, তিনি নিজের মনে কথা ব্যক্ত করেছেন। এতে কোনও ভুল নেই। বরিসের মুখপাত্র বলেছেন, কেউ স্বাধীনভাবে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করতেই পারে। সেটাকে কোনও ইস্যুর সঙ্গে জুড়ে বিতর্ক তৈরি করাটা হাস্যকর। অকারণে কারও ব্যক্তিগত মতামতকে বিতর্কের নাম দেওয়াটা উচিত নয়। এমন মন্তব্যের জন্য বরিসের সমালোচনা করেছেন তাঁর সতীর্থরা।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top