Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ , সময়- ৫:৪৮ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় গণসংযোগে মির্জা ফখরুল  বিতর্কিত সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ ও তাঁর রাজনীতি  প্রমাণিত হলো বিএনপি সন্ত্রাসী দল : কাদের  বিবাহবার্ষিকীতে দোয়া চাইলেন ক্রিকেট সুপারস্টার সাকিব টুঙ্গিপাড়া থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলেন সভানেত্রী শেখ হাসিনা  খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিটের আদেশ আগামীকাল  মনোনয়নপত্র ফিরে পাচ্ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলম নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন শেখ হাসিনা, ১২ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য ২০১৫ থেকে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০

বোরখা পড়া মহিলা ব্যাঙ্ক ডাকাতের মতো, বরিস জনসনের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় 


ডেস্ক রিপোর্ট

আপডেট সময়: ১০ আগস্ট ২০১৮ ৯:৫৮ পিএম:
বোরখা পড়া মহিলা ব্যাঙ্ক ডাকাতের মতো, বরিস জনসনের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় 

নিজস্ব প্রতিনিধি : ২৮ বছরের এক মুসলিম মহিলা বোরখা পরে ডেনমার্কের এক রাস্তায় বেরিয়েছিলেন। যার জেরে তাঁকে জরিমানা করা হয়। সে দেশের নিয়ামনুযায়ী, কোনও অবস্থাতেই কেউ পুরো শরীর ঢাকা কোনও পোশাক পরে রাস্তায় বেরোতে পারবেন না। এমন শাস্তির পর থেকেই ডেনমার্কের নিয়মের গেরো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকে। সেই তালিকায় ছিলেন ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ও ইতিহাসবিদ বরিস জনসন। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি একটি জনপ্রিয় খবরের কাগজে একটা কলম লেখেন। আর তাতে ঘটনার নিন্দা করার পরিবর্তে এমন কিছু কথা লিখে ফেললেন যে বিতর্ক ঘিরে ধরল এবার তাঁকেই।

নিজের কলমে বরিস লিখলেন, বোরখা পরা মহিলাদের সাধারণত ব্যাঙ্ক ডাকাতদের মতো দেখতে লাগে। অথবা কখনও কখনও মনে হয় যেন একটা আস্ত ডাকবাক্স রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। বোরখা বা নিকাব পরে রাস্তায় বেরনোটা হাস্যকর দেখায়। এমন কোনও পোশাক যা কি না মুখ পর্যন্ত ঢেকে দিয়ে তা অবিলম্বে বন্ধ করে দেওয়া উচিত। বরিস জনসন শুধু ব্রিটেনে নয়, গোটা বিশ্বে একজন স্বনামধন্য ব্যক্তিত্ব। তাঁর লেখা কলমে এমন কথা প্রকাশিক হওয়ার পর থেকে চারিদিকে নিন্দার ঝড় উঠেছে। এমনকী বরিসের লেখার নিন্দা করেছেন স্বয়ং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-ও। তাঁর বক্তব্য, ভাষা ও শব্দ বাছার ক্ষেত্রে আমাদের সবার খুব সতর্ক থাকা উচিত। বরিস যেভাবে গোটা ব্যাপারটাকে ব্যাখ্যা করেছে তা মেনে নেওয়া যায় না। প্রতিটা ধর্মের মানুষের নিজস্ব কিছু সংস্কৃতি থাকে। মুসলিম মহিলাদের বোরখা বা নিকাব পরাটা তাদের ধর্মের অঙ্গ। সেটা নিয়ে কারও এই ধরণের মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন।

কলম লেকা এম ন বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পরে অবশ্য ক্ষমা চাইতেও অস্বীকার করেন বরিস। তাঁর সাফ যুক্তি, তিনি নিজের মনে কথা ব্যক্ত করেছেন। এতে কোনও ভুল নেই। বরিসের মুখপাত্র বলেছেন, কেউ স্বাধীনভাবে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করতেই পারে। সেটাকে কোনও ইস্যুর সঙ্গে জুড়ে বিতর্ক তৈরি করাটা হাস্যকর। অকারণে কারও ব্যক্তিগত মতামতকে বিতর্কের নাম দেওয়াটা উচিত নয়। এমন মন্তব্যের জন্য বরিসের সমালোচনা করেছেন তাঁর সতীর্থরা।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top