Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , সময়- ৮:০১ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিতর্ক কেন ? বিএনপি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | প্রজন্মকণ্ঠ পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আবেদন খালেদা জিয়ার | প্রজন্মকণ্ঠ খালেদা জিয়া কারাগারের বাইরে থাকার সময়ও জনগণ তার ডাকে সাড়া দেয়নি : ওবায়দুল কাদের বিএনপি-জামায়াত ক্লিনহার্ট অপারেশন চালিয়ে আ'লীগের অসংখ্য নেতাকর্মীকে নির্যাতনের শিকার করেছিল : প্রধানমন্ত্রী  ধর্মমন্ত্রী ও ভূমিমন্ত্রীর  কড়া সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল করেছে বিএনপি আ'লীগের প্রতিনিধিদলের উত্তরবঙ্গ সফর শুরু । প্রজন্মকণ্ঠ   বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন : সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার | প্রজন্মকণ্ঠ  সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে মাঠে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ, আগামীকাল | প্রজন্মকণ্ঠ

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই : সাঈদ খোকন


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৫:৫৬ পিএম:
ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই : সাঈদ খোকন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন স্বীকার করেছেন যে, গত দুই-তিন বছরের তুলনায় এ বছর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলক বেড়েছে, তবে তা উদ্বেগজনক নয়। ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

আজ (সোমবার) রাজধানীর ইস্কাটন এলাকায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে এডিস মশার লার্ভা এবং প্রজননস্থল শনাক্তকরণ ও ধ্বংসে বিশেষ এক ক্র্যাশ প্রোগ্রামের উদ্বোধনকালে মেয়র এ সব কথা বলেন।

সাঈদ খোকন বলেন, বিগত ২-৩ বছরের তুলনায় ডেঙ্গুর প্রবণতা সামান্য বেড়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বেশি হলেও উদ্বেগজনক বা আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। ডেঙ্গু আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

সাঈদ খোকন আরো জানান, গত বছর চিকুনগুনিয়ার প্রাদুর্ভাব বেশি ছিল। আমরা তা নিয়ন্ত্রণ করেছি। এবছর চিকুনগুনিয়া নেই। হাসপাতাল, গণমাধ্যম ও আমাদের কর্মীদের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে যে,  এবার ডেঙ্গুর প্রবণতা কিছুটা বেড়েছে। আজ তৃতীয় পর্যায়ে এক যোগে ৫৭টি ওয়ার্ডে পক্ষকালব্যাপী বিশেষ ক্র্যাশ প্রোগ্রাম শুরু হয়েছে। আমাদের কাজ চলছে।

মেয়র আরো বলেন, ‘আমরা প্রথম পর্যায়ে প্রায় ১৫ হাজার বাসা বাড়িতে মশার লার্ভা ধ্বংস করেছি। দ্বিতীয় পর্যায়ে ধানমন্ডি ও কলাবাগান এলাকায় ১৭ হাজার বাসাবাড়িতে লার্ভা ধ্বংস করেছি। এই এলাকার প্রায় ৩৭ শতাংশ বাড়িতে ডেঙ্গু মশার লার্ভা পাওয়া গেছে।’  

এ সময় তিনি ঢাকা দক্ষিণের মেয়র হিসেবে পার্শ্ববর্তী সিটি করপোরেশনগুলোকেও তাদের সঙ্গে একযোগে বিশেষ প্রোগ্রাম হাতে নেয়ার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসির সচিব মো. শাহাবুদ্দিন খান, স্থানীয় কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কাজল, হাসিবুর রহমান মানিক, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শেখ সালাহউদ্দিন প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top