Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৪:৩৭ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জঙ্গি আস্তানা : নরসিংদীর শেখেরচর ও মাধবদীতে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ  ওয়েজবোর্ডের আওতায় আসছে অনলাইন নিউজপোর্টাল রামকৃষ্ণ মিশনে দুর্গা আরাধনা দেখলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তারেক জিয়াকে বিএনপি প্রধানের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেবার জন্য অনুরোধ করেছে আন্তর্জাতিক মহল নিজস্ব প্রস্তাবনা উপস্থাপন করতে না দেয়ায় অপমানিত বোধ করেছি : মাহবুব তালুকদার  ময়মনসিংহ পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশন ঘোষণা, সর্বস্তরে আনন্দের বন্যা গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট কিন্তু কিছু আপত্তি আছে : শাহরিয়ার আলম ড. কামাল বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন, আলহামদুলিল্লাহ : খালেদা জিয়া জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে সেনাকর্মকর্তার থানায় সাধারণ ডায়েরি, তদন্তে ডিবি কেন কমিশন সভা বর্জন করেছেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার

ইন্টারপোল প্রধানের অন্তর্ধান ইস্যুতে মুখ খুলছে না চীন


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৬ অক্টোবর ২০১৮ ৮:১০ পিএম:
ইন্টারপোল প্রধানের অন্তর্ধান ইস্যুতে মুখ খুলছে না চীন

মেং হোংওয়ের নিখোঁজ সংবাদ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে শিরোনাম হলেও এ বিষয়ে মুখ খুলছে না চীন৷ ফলে আন্তর্জাতিক পুলিশের প্রধানের ভাগ্যে কী ঘটেছে, এ নিয়ে রহস্য বেড়েই চলেছে৷

সেপ্টেম্বরের ২৫ তারিখে চীন সফরের উদ্দেশ্যে দক্ষিণ-পূর্ব ফ্রান্সের লিওঁতে ইন্টারপোলের প্রধান কার্যালয় থেকে বের হন মেং হোংওয়ে৷ এর পর থেকে পরিবারের সাথে তাঁর আর কোনো যোগাযোগ নেই৷

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করেও এ বিষয়ে কোনো কিছু জানা যায়নি বলে তথ্য বিভিন্ন গণমাধ্যমের৷ ইন্টারপোলও এ বিষয়ে কিছু জানাতে রাজি হয়নি৷ সংস্থাটি শুক্রবার এক টুইটে জানিয়েছে, ‘‘এটি ফ্রান্স ও চীনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মধ্যকার ব্যাপার৷'' তবে শনিবার আরেক টুইটে আপডেট জানিয়েছে সংস্থাটি৷ সংস্থার প্রেসিডেন্টের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে জানতে চাওয়া হয়েছে চীনের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে৷

ইন্টারপোল প্রধানের পাশাপাশি চীনের জননিরাপত্তা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্বে আছেন মেং৷ তাঁর মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করেও এ বিষয়ে পাওয়া যায়নি কোনো মন্তব্য৷

তবে তাঁর অন্তর্ধানের খবরে ছড়িয়ে পড়ছে নানা ধরনের গুজব৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের বরাত দিয়ে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে চীনের নবগঠিত দুর্নীতিবিরোধী ন্যাশনাল সুপারভাইজরি কমিশনের লোকজনই বেইজিংয়ে নামার পর মেংকে তুলে নিয়ে গিয়েছে৷

ন্যাশনাল সুপারভাইজরি কমিশনকে দেশের সরকারি কর্মকর্তাদের ওপর নজরদারি ও তাঁদের বিরুদ্ধে তদন্ত, এমনকি আটকের ক্ষমতাও দেয়া হয়েছে৷ এবং এ কাজে তেমন কোনো জবাবদিহিতার মুখোমুখিও হতে হয় না কমিশনকে৷

আইন অনুযায়ী কাউকে আটক করা হলে তাঁর পরিবারের সদস্যদের এ ব্যাপারে জানানোর কথা থাকলেও জাতীয় নিরাপত্তা, জঙ্গিবাদ অথবা তথ্য পাচারের অভিযোগ ইস্যুতে কমিশনের সদস্যদের ছাড় দেয়া হয়েছে৷

এই কমিশন গঠন হওয়ার পর থেকে কোনো তথ্য ছাড়াই কয়েক সপ্তাহ, এমনকি কয়েক মাস পর্যন্ত আটকে রাখা হয়েছে অনেককেই৷ তবে ইন্টারপোলের প্রথম চীনা প্রেসিডেন্ট মেং কোন ইস্যুতে চীন সরকারের তদন্তের মুখোমুখি হতে পারেন, সে বিষয়ে কোনো তথ্য জানা যায়নি৷

২০১২ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে চীনে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু করেন৷ তাঁর এই উদ্যোগে ছয় বছরে ১০ লাখেরও বেশি সরকারি কর্মকর্তাকে শাস্তি দেয়া হয়েছে৷ চীনাদের কাছে এই অভিযান বেশ জনপ্রিয় হলেও এর মাধ্যমে শি তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের ঘায়েল করছেন বলেও মনে করেন বিশ্লেষকরা৷

তদন্তে ফরাসি পুলিশ

ফ্রান্সে বসবাসরত মেং-এর স্ত্রী জানিয়েছেন, এরই মধ্যে বেশ কয়েকবার ফোনে এবং সামাজির যোগাযোগ মাধ্যমে হুমকি পেয়েছেন তিনি৷ তবে কারা এ হুমকি দিয়েছেন, সে বিষয়ে কোনো ধারণা দিতে পারেননি তিনি৷

ফরাসি পুলিশ এরই মধ্যে এ অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ তবে এ বিষয়ে চীনা সরকারের সাথে তাঁদের কোনো যোগাযোগ হয়েছে কি না, সে বিষয়ে কিছু জানায়নি মন্ত্রণালয়৷

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ‘‘ফ্রান্স ইন্টারপোল প্রধানের অন্তর্ধান ও তাঁর স্ত্রীকে হুমকি দেয়ার বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত৷'' তবে তাঁর স্ত্রী ও সন্তানদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে ফরাসি সরকার৷

প্রাথমিক তদন্তে ফরাসি গোয়েন্দাদের ধারণা, মেং-এর কোনো কাজ হয়তো চীন সরকারের বিরুদ্ধে গিয়েছে৷ তবে সেটি ঠিক কি, সে বিষয়ে কোনো ধারণা এখনও দিতে পারছেন না কেউ৷ তথ্যসূত্র : এডিকে (রয়টার্স, এএফপি)


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top