Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৪:১০ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
আগামী নির্বাচনের রোডম্যাপ ঘোষণা আসছে, জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশ আজ আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বি, জনগণ হৃদয় দিয়ে ভালোবাসে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | প্রজন্মকণ্ঠ মানুষের ভিড়ের ওপর দিয়ে চলে গেল ট্রেন, ৫০ জন নিহত | প্রজন্মকণ্ঠ তরুণী ও কম বয়সী রোহিঙ্গা মেয়েরা পাচারের শিকার হচ্ছে : জাতিসংঘ যারা বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন তারা বিকল্পধারার কেউ নন : মাহী বি চৌধুরী  আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের স্বাধীনতা এখনও পুরোপুরি অর্জন করতে পারিনি : রাষ্ট্রপ্রতি সর্বত্র মানুষের মঙ্গলের সুযোগ করে দিতে শেখ হাসিনার সরকার কাজ করছে : অর্থমন্ত্রী  সংস্কৃতি অঙ্গনে কালো ছায়া নেমে এলো | প্রজন্মকণ্ঠ চার দিনের সরকারি সফর শেষে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী আজ | প্রজন্মকণ্ঠ পবিত্র ওমরাহ পালন করেছেন প্রধানমন্ত্রী, দেশবাসীর জন্য দোয়া প্রার্থনা | প্রজন্মকণ্ঠ

বীরগঞ্জে সরকারী প্রকল্পে ইউএনও ও সহকারী শাহজাহানের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ 


মোশাররফ হোসেন, বীরগঞ্ছ, দিনাজপুর।

আপডেট সময়: ৯ অক্টোবর ২০১৮ ৫:৫০ পিএম:
বীরগঞ্জে সরকারী প্রকল্পে ইউএনও ও সহকারী শাহজাহানের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ 

সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরের বীরগঞ্জে উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থায়নে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর অধীনে জমি আছে ঘর নাই দরিদ্র জনগোষ্ঠির ২০৯ পরিবারের ঘর নির্মানের জন্য ২ কোটি ৪৯ লাখ ৭৫ হাজার ৫শত টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। সরকারী নির্দেশনা আছে কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৫ সদস্যের কমিটি প্রকল্পের কাজ করবেন। কাগজে-কলমে নিয়ম রক্ষা করা হলেও বাস্তবে কাউকে না জানিয়ে ইউএনও তোফাজ্জল হোসেন ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার অফিস সহকারী শাহজাহান আলীর যোগসাজসে বরাদ্দের ১ কোটি ২৪ লাখ ৩৫ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাত করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

দরিদ্র জনগোষ্ঠির বরাদ্দের টাকা আত্মসাত করায় প্রকল্পের কাজ নিম্নমানের হয়েছে মর্মে জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ করে দূর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, চেয়ারম্যান দুদক সহ গুরুত্বপূর্ণ ১৪টি দপ্তরে প্রেরন করেছেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও রাজনীতিবিদ আব্দুস সালাম সরকার। তিনি দাবী করে নির্মানকৃত প্রতিটি ঘরে সর্বোচ্চ ব্যয় ৬০ হাজার টাকা। কিন্তু বরাদ্দ ১ লাখ ১৯হাজার ৫শত টাকা।

তাছাড়া অভিযোগকারী সাবেক এই ছাত্রেনেতা বর্তমান উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লিখিত অভিযোগে বলেন বরাদ্দ প্রাপ্তদের কোন টাকা খরচ করার না থাকলেও তাদের ঘরে মাটি ভরাট ও বাঁশ কিনে ২৫০০-৩০০০ টাকা বাধ্যতামুলক খরচ করানো হয়েছ।

এমন অভিযোগের সত্যতা জানতে সরজমিনে গেলে বরাদ্দ প্রাপ্তরা, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সসদ্য এবং অনেক সচেতন মানুষ তাদের মন্তব্যে বলেন ১৫ ফিট বাই সাড়ে ১৬ ফিটের একটা টিনের ঘর বানাতে কেউ ৫০ হাজার, কেউ ৫৫ হাজার আবার কেউ ৬০ থেকে ৬৫ হাজার লাগতে পারে।

কিন্তু তারা জানেন না সরকারী বরাদ্দ কত টাকা, এমন কি সাজানো কমিটির সদস্যরাও সবাই বলেছেন আমরা কিছুই জানিনা, ইউএনও স্যার এবং সহকারী শাহজাহানকে বলতে হবে। তবে সাজানো কমিটির সদস্য সচিব পিআইও জনাব আঃ হাই বলেন প্রতিটি ঘর নির্মান ব্যয় ৮0 থেকে ৯০ হাজার টাকা হতে পারে ।

অভিযু্ক্ত ইউএনও মোঃ তোফাজ্জল হোসেন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন ভাল কথা আমার উর্দ্ধমহল সেটি খতিয়ে দেখবেন। আমি কোন অনিয়ম বা দূনীর্তি করি নাই। সহকারী শাহজাহান আলী ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন আমি ছালামের অভিযোগের তোয়াক্কা করিনা, আমারও বাড়ী বীরগঞ্ছে, আমি ভেসে আসি নাই।

 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top