Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:১০ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
এ পর্যন্ত ১১টি টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ  আতঙ্কিত ও ক্ষুব্ধ রোহিঙ্গারা, প্রত্যাবাসন স্থগিত  ক্ষমা চাইতে ফখরুলকে ছাত্রলীগের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলো ছাত্রলীগ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচালের যড়যন্ত্র সফল হবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০ ডিসেম্বরই নির্বাচন, পেছানোর সুযোগ নেই : নির্বাচন কমিশন সচিব প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী রবিবার বোনের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ভালোবাসা বিএনপিকে রাজনৈতিক দল বলা যায় না, তারা একটি সন্ত্রাসী সংগঠন : সজীব ওয়াজেদ  নির্বাচনী সহিংসতা ঠেকাতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে পুলিশ | প্রজন্মকণ্ঠ বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে আদেশ আগামী রোববার

সোহরাওয়ার্দীতে জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করার পরিকল্পনা ঐক্যফ্রন্টের


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৬ নভেম্বর ২০১৮ ১১:১৯ এএম:
সোহরাওয়ার্দীতে জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করার পরিকল্পনা ঐক্যফ্রন্টের

রাজধানীতে প্রথম কোনো জমনসভা করতে যাচ্ছে ড. কামাল হোসেন নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। মঙ্গলবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ জনসভা অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, ইসি পুনর্গঠন, নির্বাচনে মেজিস্ট্রেসি ক্ষমতা ও সেনাবাহিনী মোতায়েনসহ ৭ দফা দাবিতে জনমত গঠনে এ সভার আয়োজন করা হয়েছে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভাতে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর প্রস্তুতি নিয়েছে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের অন্যান্য দলগুলো। বিশেষ করে বিএনপি ও এর অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতারা সর্বোচ্চ সংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিতি নিশ্চিতের মাধ্যমে রজধানীতে বড় ধরনের শোডাউন করতে চায়।

তবে সংলাপের পরিবেশ নষ্ট হয় এমন কোনো কর্মসুচি ঐক্যফ্রন্ট দিবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব ও জাতীঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে রাতের মধ্যেই ঢাকার আশপাশের জেলাগুলো থেকে নেতাকর্মীরা রাজধানীতে পৌঁছে গেছেন। বাকিরা সমাবেশের আগে পৌঁছে যাবেন বলে জানিয়েছেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা।

সরকারবিরোধী এ জোটটির নীতিনির্ধারক নেতারা আজকের এই জনসভা থেকে তাদের ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা ও কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলেও জানা গেছে।

এর আগে মঙ্গলবারের জনসভায় ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, সাংগঠনিক সম্পাদক, ঢাকা ও তার আশপাশের জেলার শীর্ষ নেতাদের নিয়ে যৌথসভা করে দলটি। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত ওই যৌথ সভা থেকে সোমবারের জনসভায় সর্বোচ্চ জনসমাগম ঘটানোর বিষয়ে কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়।

যৌথসভায় নির্দেশনা দেয়ার পর ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন জেলা এবং দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। সমাবেশের দিন গাড়ি বন্ধ থাকাসহ বিভিন্ন ধরণের বাঁধার সম্মুখিন হওয়ার আশঙ্কায় ঢাকার আশপাশের জেলাগুলো থেকে বিএনপি নেতাকর্মীরা ইতিমধ্যে অনেকেই ঢাকায় পৌঁছেছেন বলে জানা গেছে।

বাকিরা সকালের মধ্যে পৌঁছে যাওয়ার কথা রয়েছে। দুপুর ২টা থেকে এ জনসভা শুরু হবে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সভাপতিত্বে জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বক্তব্য দেবেন।

ঐক্যফ্রন্টের এই জনসভায় বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের জামায়াত বাদ দিয়ে অন্যান্য শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া বিকল্পধারা বাংলাদেশের একাংশ এই জনসভায় অংশগ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন এই দলের মহাসচিব অ্যাডভোকেট বাদল।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ঢাকা ও আশপাশে আমাদের নেতাকর্মীদের ব্যাপক জনসমাগমের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ঐক্যফ্রন্টের অন্যান্য দলের নেতাকর্মীরাও তাদের সর্বোচ্চ উপস্থিতি নিশ্চিত করবে মঙ্গলবারের সমাবেশে।

গণফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক বলেন, ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে যুক্ত প্রত্যেকটি দল আলাদাভাবে আজকের জনসভায় সর্বোচ্চ উপস্থিতির জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। গণফোরামের যেখানে সংগঠন আছে সেখান থেকে লোক আসবে। তবে আমরা শুধু আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর নির্ভর করছি না।

তিনি বলেন, আমরা যে দাবিতে জনসভা করছি এগুলো জনগণের দাবি। আমরা মনে করছি জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে জনসভায় যোগ দিয়ে জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করবে। জনসভা করার অনুমতি পায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের জনসভা করার অনুমতি দেয়।

বিএনপির সাংগঠনিক সহ সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ বলেন, ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে ডিএমপির কাছে জনসভার অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে তারা আমাদের মঙ্গলবার জনসভা করার অনুমতি দিয়েছে।

অনুমতি পাওয়ার পর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশস্থল পরিদর্শন করেন ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলে ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্টেজ নির্মাণসহ প্রস্তুতি পরিদর্শন শেষে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান বলেন, মঙ্গলবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ জনসমাবেশ হবে। আমরা এই সমাবেশের আয়োজন করতে খুবই অল্প সময় পেয়েছি। তার পরও জনগণের আকাঙ্খা একটি গণজাগরণ। সেই গণজাগরণের মধ্য দিয়ে ইদানিংকালের সর্ববৃহৎ একটি সমাবেশ করব।

তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দেয়া ৭ দফা দাবি সামনে রেখে জনগণ তাদের প্রত্যাশা পূরণের লক্ষ্যেই এ সমাবেশে উপস্থিত হবে। কারণ এই ৭ দফা জণগনের দাবি, জাতির দাবি।

প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি বলেন, আমাদের ধারণা শুধু আমাদের নেতাকর্মীই না সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে এটি একটি ঐতিহাসিক জনসভা হবে। বিএনপি, গণফোরাম, জেএসডি, নাগরিক ঐক্য ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়াকে নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হয় গত ১৩ আগস্ট।

সোমবার কাদের সিদ্দিকীর কৃষক শ্রমিক জনতা লীগও নির্বাচন সামনে রেখে গঠিত এই জোটে যোগ দিয়েছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবিতে ঢাকার আগে সিলেট ও চট্টগ্রামে জনসভা করেছে একজোট হওয়া ঐক্যফ্রন্ট। আগামী ৮ নভেম্বর রাজশাহীতে তাদের জনসভা করার কর্মসূচি রয়েছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top