Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:৩১ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
রাখাইনে এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হয়নি : রিচার্ড অলব্রাইট নির্বাচনী আচরণবিধি মানছেন না সম্ভাব্য প্রার্থীরা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারই 'নির্বাচনকালীন সরকার'   মঙ্গলবার পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা নিবে আওয়ামী লীগ  আন্তর্জাতিক পুরস্কারে মনোনীত শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী প্রথম দিনে ১৩২৬টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে বিএনপি  পাঁচ বিভাগের ৭টি আসনে একক প্রার্থী পাচ্ছে আওয়ামী লীগ সিইসিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী ২৩ নয়, এখন ৩০  ৩০০ সংসদীয় আসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের নির্দেশনা দিয়েছেন ইসি 

কীভাবে বুঝবেন, আপনার কেনা স্মার্টফোনের চার্জারটি আসল না ভুয়ো ? 


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৬ নভেম্বর ২০১৮ ৮:২৭ পিএম:
কীভাবে বুঝবেন, আপনার কেনা স্মার্টফোনের চার্জারটি আসল না ভুয়ো ? 

নিজের স্মার্টফোনের চার্জারটি নষ্ট হয়ে গেলে বাজার থেকে অনেক সময়ই অনেক চার্জার কিনে ফেলি আমরা। স্যামসং, আইফোন, ওয়ানপ্লাসের অরিজিনাল চার্জারের নামে সেই কোম্পানির লোগো দিয়েই দেদার খোলা বাজারে বিক্রি হয় বিভিন্ন চার্জার। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই সেগুলি ভুয়ো হয়ে থাকে। কোম্পানিগুলি জানতেও পারে না লোকাল চার্জারকে ব্র্যান্ডের রূপ দিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে। খোলা চোখে আসলের সঙ্গে ভুয়ো চার্জারের পার্থক্য খুঁজে বের করাও কঠিন কাজ। আর লোকাল চার্জার থেকেই ব্যাটারি বিস্ফোরণের মতো দুর্ঘটনাগুলি ঘটে। তাই এই প্রতিবেদনে দেওয়া হল এমন কিছু টিপস যাতে কোনটি ভুয়ো তা যাচাই করে নিতে পারবেন নিজেই।

স্যামসাং : স্যামসাংয়ের আসল ও ভুয়ো চার্জারের মধ্যে পার্থক্য করা বেশ কঠিন। চার্জারের উপর একটি লেখা প্রিন্ট করা থাকে। ভাল করে লক্ষ্য করুন, A+ এবং Made in China লেখার সঙ্গে চার্জারের বৈশিষ্ট্য লেখা আছে কিনা। যদি তেমনটা হয় তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটি ভুয়োই হয়ে থাকে।

অ্যাপল আইফোন: আইফোনের একগুচ্ছ ভুয়ো চার্জার খোলা বাজারে বিক্রি হয়। তাহলে কীভাবে বুঝবেন কোনটি ভুয়ো? আসল চার্জারে ‘Designed by Apple in California’ কথাটি লেখা থাকে। ভুয়ো চার্জারে অ্যাপেলের যে লোগোটি থাকে সেটির রং অপেক্ষাকৃত কালো হয়। তাই কেনার আগে ভালভাবে দেখে নিন।

শাওমি এমআই : চার্জারটি হাতে নিয়েই কেবলটি কত বড় মেপে নিন। যদি তা ১২০ সেন্টিমিটারের চেয়ে কম হয় এবং অ্যাডাপ্টরটি তুলনামূলক বড় হয়, তাহলে সেটি আসল চার্জার নয়।

ওয়ান প্লাস : ওয়ান প্লাসের ভুয়ো চার্জার চেনাটা অবশ্য বিশেষ কঠিন নয়। ড্যাশ চার্জার দিয়ে ফোনটি চার্জ করতে গেলেই জ্বলে উঠবে ফ্ল্যাশ। যদি দেখেন ফ্ল্যাশ না জ্বলে স্ক্রিনে শুধু চার্জিংয়ের সিগন্যালটি দেখাচ্ছে, তাহলে চোখ বন্ধ করে বুঝে যান সেটি ভুয়ো।

হাওয়াই : এক্ষেত্রেও আসল চার্জার চেনা সহজ। অ্যাডপটরে যে তথ্য প্রিন্ট করা থাকে তার সঙ্গে চার্জারের উপরের বারকোডের তথ্যটি মিলিয়ে দেখুন। মিলে গেলে সেটি আসল চার্জার। আর না মিললে সেটি ভুয়ো।

গুগল পিক্সল : গুগল পিক্সল ফোনের চার্জারে অত্যন্ত দ্রুত ফোন চার্জ হয়। যদি দেখেন চার্জ হতে অনেক সময় লাগছে তবে সেটি নিঃসন্দেহে ভুয়ো।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top