Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ১:৪৫ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
আয়কর মেলার শেষ দিন আজ দুর্নীতিসহ ১১ সূচকে রেড জোনে বাংলাদেশ : এমসিসি  চিকিৎসা বিষয়ে খালেদা জিয়ার রিটের আদেশ আজ  নাজমুল হুদাকে ৪৫ দিনের মধ্যে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ  নির্বাচনকালীন সম্ভাব্য নাশকতা মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার  একজন শিশুকে পিইসি পরীক্ষার জন্য যেভাবে পরিশ্রম করতে হয়, সত্যিই অমানবিক : সমাজকল্যাণমন্ত্রী নির্বাচনকে সামনে রেখে আদর্শগত নয়, কৌশলগত জোট করছে আওয়ামী লীগ : সাধারণ সম্পাদক থার্টিফার্স্ট উদযাপন নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে সেনাবাহিনী  মহাজোটের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে যাওয়ার শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে 

নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক হচ্ছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ১৬ নভেম্বর ২০১৮ ১১:৩৮ এএম:
নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক হচ্ছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়, সেজন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের পরিকল্পনায় একটি নাগরিক পর্যবেক্ষণ প্ল্যাটফর্ম গঠিত হচ্ছে। এই নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক হচ্ছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস। জানা গেছে, ড. কামাল হোসেনই ইউনূসকে এই বিষয়ে রাজি করিয়েছেন।

ড. কামালের ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো বলছে, এই প্ল্যাটফর্মে সদস্য থাকতে পারে ১০০ থেকে ১৫০ জন। নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দলগুলোর আচরণ বিধি থেকে শুরু করে সর্বশেষ ভোটের ফলাফল পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করবে নাগরিক কমিটি।

ইউনূস ছাড়াও কয়েকজন আইনজীবী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দরাও এই প্ল্যাটফর্মে থাকছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, সিপিবি’র ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, অধ্যাপক রেহমান সোবহান, ব্যারিস্টার শাহদীন মালিক, হোসেন জিল্লুর রহমানসহ সমাজের বিভিন্ন পরিচিত মুখ।

জানা গেছে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যখন নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তখন থেকেই ড. কামাল হোসেন বিভিন্নভাবে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নির্বাচনের প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার পরিকল্পনা নিচ্ছিলেন। এছাড়াও নির্বাচনে মনোনয়নের ব্যাপারে সুশীল সমাজের অন্তত ১০ জন প্রতিনিধিদের সুপারিশ করেছিলেন তিনি।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে প্রধান ৫টি বিষয় পর্যবেক্ষণ করবে নাগরিক কমিটি। 

সেগুলো হলো :

১. তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন কতোটা নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে, সেটি পর্যবেক্ষণ করবে তারা।

২. মনোনয়ন দাখিলের পর লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ঠিকমতো কার্যকর হচ্ছে কিনা সেটিও দেখবে নাগরিক প্ল্যাটফর্ম।

৩. নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সদস্যদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা বা হয়রানি করা হলে, তাঁর আইনগত প্রতিকার এই প্ল্যাটফর্ম থেকে দেওয়া হবে।

৪. নির্বাচনে সরকার ও প্রশাসন কতটুকু নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে, কোনো পক্ষপাত হচ্ছে কিনা সেটি পর্যবেক্ষণ করবে এই নাগরিক কমিটি।

৫. ভোটের আগে ভোটারদের ভয়-ভীতি প্রদর্শন, ভোটারদের ভোটদানে বাঁধা দেওয়া হচ্ছে কিনা সেটিও দেখবে নাগরিক কমিটি।

এছাড়া রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনের আচরণ বিধির ওপর কতোটুকু শ্রদ্ধাশীল, তারা ঠিকমতো আচরণ মানছেন কিনা সে বিষয়গুলো নাগরিক কমিটি পর্যবেক্ষণ করবে। ভোটের ফলাফল সঠিকভাবে ঘোষণা করা হচ্ছে না সেটিও পর্যবেক্ষণ করবে নাগরিক কমিটি। এছাড়া সাধারণ ভোটারদের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে উদ্বুদ্ধ করার বিষয়েও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে নাগরিক কমিটি।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top