Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৯:০৬ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
রাখাইনে এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হয়নি : রিচার্ড অলব্রাইট নির্বাচনী আচরণবিধি মানছেন না সম্ভাব্য প্রার্থীরা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারই 'নির্বাচনকালীন সরকার'   মঙ্গলবার পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা নিবে আওয়ামী লীগ  আন্তর্জাতিক পুরস্কারে মনোনীত শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী প্রথম দিনে ১৩২৬টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে বিএনপি  পাঁচ বিভাগের ৭টি আসনে একক প্রার্থী পাচ্ছে আওয়ামী লীগ সিইসিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী ২৩ নয়, এখন ৩০  ৩০০ সংসদীয় আসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের নির্দেশনা দিয়েছেন ইসি 

হস্তশিল্পের প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাবলম্বী তালার ফরিদা


মোঃ আল-আমিন সরদার

আপডেট সময়: ৯ নভেম্বর ২০১৮ ৯:৫৯ পিএম:
হস্তশিল্পের প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাবলম্বী তালার ফরিদা

সাতক্ষীরার তালায় হস্তশিল্প পুথির শো-পিচ, টেইলারিং ও নকশিকাথার কাজ করে আজ স্বাবলম্বী হয়েছেন উপজেলার মিসেস ফরিদা পারভীন। ১৯৯০ সালে ৮ম শ্রেণীতে পড়া কালিন সময় পাটকেলঘাটার মৃত আরশাদ আলী হাওলাদারের পুত্র মনিরুল ইসলামের সাথে বিবাহিত জীবনে পা রাখেন তিনি। শুরু হয় স্বামী সংসার জীবন। স্বামীর স্বল্প আয়ের উপর ভর দিয়ে কোন প্রকার কষ্টে দিন কাটাতে হতো তাকে। আস্তে আস্তে ৩ সন্তানের জননী হন তিনি। পরে কষ্টের মাত্রা আরও বেড়ে যায়, স্বামী সংসার সন্তানদের নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন ফরিদা পারভীন।

দিশেহারার এক পর্যায়ে মনে আত্মবিশ্বাস আর সাহস নিয়ে ২০০৯ সালে সিদ্ধান্ত নিয়ে নারী সংস্থার সদস্য হন তিনি। ২০১২ সালে সাতক্ষীরা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর থেকে ৩ মাসের প্রশিক্ষন নিয়ে টেইলারিং এর কাজ শুরু করেন। স্বল্প পুজি থাকার কারনে তালা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর থেকে ১৫ হাজার টাকা ঋণ গ্রহন করেন ফরিদা পারভীন। এই ঋণ গ্রহনের পর থেকে শুরু হয় তার জীবন সংগ্রামের লড়াই। বাজার থেকে ছিট কাপড় কিনে বিভিন্ন প্রকার পোশাক তৈরি করে বাজারে বিক্রি করতে লাগলেন তিনি। এতে আয় বেড়ে যায় এবং পাশাপাশি পণ্যের চাহিদাও বেড়ে গেলে শুরু হয় অর্থ সংকট। ২০১৩ এবং ১৪ সালে একই সংস্থা থেকে আবারও ঋণ গ্রহন করেন ফরিদা পারভীন। টেইলারিং এর পশাপাশি শুরু করে হস্তশিল্প পুথির শো-পিচ তৈরির কাজ।

আস্তে আস্তে পুজি ও চাহিদা বাড়তে থাকে। পোশাকের পাশাপাশি পুথির শো-পিচ তৈরি করে বাজারে বিক্রয় শুরু করেন তিনি। পুথির শো-পিচের মধ্যে আপেল, লেবু, কলা, পেয়ারা, টিসুবক্স, ফুলদানি, কলমদানি, চুলের টাকা, শাড়ির ব্রুজ, চাবিরিং সহ বিভিন্ন প্রকার পণ্য ও নকশিকাথা তৈরিতে পারদর্শী তিনি। বর্তমানে তাকে আগের মত আর অর্থ কষ্ট পেতে হয়না । তার এই অক্লান্ত পরিশ্রম এনে দিয়েছে জীবনের এক সাফল্য। এই সফলতায় ২০১৫ সালে বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে নারী বিষয়ক অধিদপ্তর থেকে জয়িতা সম্মানরা স্মারক পান ফরিদা পারভীন। একই ভাবে ২০১৭ সালেও তিনি জয়িতা সম্মাননা স্মারক পান। ২০১৮ সালে সরকারে উন্নয়ন মেলায় ষ্টল দিয়ে পুরুস্কার পান ফরিদা পারভীন।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top