Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ২:৩৯ পূর্বাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফেরদৌস ও শাহ ফরহাদ নেতাজি'কে কেন রাষ্ট্রনায়কের মর্যাদা দেওয়া হল না, ক্ষুব্ধ মমতা সাংবাদিকদের একটা করে ফ্ল্যাট দেবে সরকার আ'লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর জনগণ শান্তিতে : কাদের ফেব্রুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমা করার সিদ্ধান্ত ডাকসু নির্বাচন, আগামী ১১ মার্চ বিশ্ব চিন্তাবিদের তালিকায় এবার শেখ হাসিনা  যুবলীগ ও আ'লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ১০ গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে চলবে : প্রধানমন্ত্রী দুদকের পরিচালক সাময়িক বরখাস্ত

সিপিডির দাবি 'জাস্ট রাবিশ', বাচ্চু একজন প্রতারক : মুহিত


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ ৭:০১ পিএম:
সিপিডির দাবি 'জাস্ট রাবিশ', বাচ্চু একজন প্রতারক : মুহিত

গত ১০ বছরে বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাত থেকে সাড়ে ২২ হাজার কোটি টাকা লোপাট হয়েছে বলে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) যে তথ্য প্রকাশ করে তা রাজনৈতিক বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের অর্থমন্ত্রী বলেন, "দেশের ব্যাংকখাত থেকে ২২ হাজার ৫০২কোটি টাকা লুটপাটের যে তথ্য সিপিডি প্রকাশ করেছে, সেটি তাদের রাজনৈতিক বক্তব্য। এসব অর্থ থেকে বেশ কিছু টাকা ফেরত আসবে। তাই সিপিডির দাবিকে ‘জাস্ট রাবিশ’ বলে মন্তব্য করেছি।"

গত ৮ ডিসেম্বর ঢাকায় সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) ‘বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাত নিয়ে আমাদের করণীয় কী’ শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করে। সেখানে অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে গেল এক দশকে ব্যাংক থেকে ২২ হাজার ৫০২ কোটি টাকা লোপাট হয়েছে বলে জানানো হয়।

এমএ মুহিত এ বিষয়ে বলেন, “২২ হাজার কোটি টাকা লোপাট হয়ে যায়নি। কিছু টাকা উদ্ধার হতে পারে। আর এ টাকার বিপরীতে তো ব্যাংকগুলো প্রভিশন রেখেছে। তাই এর কিছু অংশ উদ্ধার হবে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। সম্ভবত সিপিডির সভাপতি মিস্টার রেহমান সোবহান দেশের ব্যাংক থেকে ২২ হাজার কোটি টাকা লোপাটের বিষয়টি বোঝেন নাই।”

বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হাই বাচ্চুর ঋণ কেলেঙ্কারির বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন কিছু করেনি। এ বিষয়ে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, “দুদুক বাচ্চুর ব্যাপারে কী করছে তা আমি জানি না। আমাদের চোখের সামনে থেকে এখন বাচ্চু চলে গেছেন সে জন্য আমি খুব খুশি। এখন সে কোথায় আছে তা আমি জানি না। বাচ্চু একজন প্রতারক ও চোর।”

‘আওয়ামী লীগ ফের রাষ্ট্রক্ষমতায় আসবে’ বলে ইকোনমিক ইন্টিলিজেন্ট ইউনিট যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে সে প্রসঙ্গে মুহিত বলেন, “ভালো রিপোর্ট। তবে এরা অনেক সময় উল্টাপাল্টা রিপোর্টও করে। তারা আবার বলেছে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলেও অস্থিতিশীলতা থাকবেই। প্রত্যেকটা দেশেই এমন অস্থিরতা থাকে, এ নিয়ে ভাবার বিষয় আছে বলে আমি মনে করি না।”

ব্যাংকের এমডিদের অ্যাসোসিয়েশনের ঋণ খেলাপিদের দায়ী করার বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, "এটা সম্পূর্ণ ঠিক নয়। ব্যাংকের লোকেরা, যারা ঋণ দেয় তারাও দায়ী হতে পারে।"


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top