কুড়িগ্রামবাসীর প্রাণের দাবী একজন মন্ত্রী চাই 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রামের ৪টি আসনে ৩টিতে নৌকা ও ১টিতে মহাজোটের লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

কুড়িগ্রামের মাটি আওয়ামী লীগের ঘাটি, কুড়িগ্রামের মানুষ একবার সুযোগ পেয়েই প্রধানমন্ত্রীকে নৌকা প্রতীকে তিনটি আসন উপহার দিয়েছেন, গণতন্ত্রের মানসকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে কুড়িগ্রাম বাসীর প্রাণের দাবী একজন মন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন অনুকরনীয় নেতৃত্ব-খাদ্য নিরাপত্তা, শান্তি চুক্তি, সমুদ্র বিজয়, নারীর ক্ষমতায়ন, অর্থনৈতিক উন্নতি এবং সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ স্বাধীনতার মর্যাদা রক্ষায় সমুজ্জ্বল।  প্রধানমন্ত্রী কে ভালোবেসে ভোট দিয়েছে, শ্রেণি পেশার মানুষের আশা আকাংখা ভালোবাসার প্রতিদান স্বরুপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন মন্ত্রী উপহার দিবেন। 

 তরুন রাজনীদিবিদ ও ব্যবসায়ী, তারুন্যের আহংকার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত এমপি আছলাম হোসেন সওদাগরকে কুড়িগ্রামবাসী মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় বলে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছ থেকে দাবি উঠেছে।  

জাতীয় পার্টির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিল। এ আসনের তিনবারের সাবেক সাংসদ আ.খ.ম শহিদুল ইসলাম বাচ্চুর পরে তার উত্তরসূরি হিসেবে পরপর চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে কুড়িগ্রাম-১ আসনকে নিজেদের দখলে রেখেছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি এ.কে.এম মোস্তাফিজুর রহমান। 

জাতীয় পার্টির দুর্গে হানা দিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম-১ আসনে (নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী উপজেলা) আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আসলাম হোসেন সওদাগর নৌকা প্রতীক ১ লাখ ২২ হাজার ১৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটগত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাইফুর রহমান রানা ধানের শীষ পেয়েছেন ১ লাখ ১৭ হাজার ৯৩৫ ভোট।

বিভিন্ন শ্রেণির পেশার মানুষের সংগে কথা বলে জানা গেছে, আসলাম হোসেন সওদাগরকে নিয়েই উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী উপজেলাবাসী। এটি কুড়িগ্রাম -১ সংসদীয় এলাকার অধীন; যা নাগেশ্বরী এবং ভূরুঙ্গামারী নিয়ে গঠিত। ভূরুঙ্গামারী উপজেলাতে ১২৮টি গ্রাম, ৭০টি মৌজা, ১০টি ইউনিয়ন এবং নাগেশ্বরী উপজেলাতে ১টি, পৌরসভা- ১টি
ইউনিয়ন পরিষদ- ১৪টি,  গ্রাম- ৩৬৭টি রয়েছে। 
 

পাঠকের মন্তব্য