দিনে ধূলায় কুয়াশাচ্ছন্ন সাতক্ষীরার ত্রিশ মাইল সড়ক

রাস্তায় উড়ছে ধূলা-বালি। শীতের এই সকাল কিংবা দুপুরের হালকা রোদেও ঝাপসা দেখা যাচ্ছে পথ। শীতের কুয়াশা ছাড়াও রাস্তা সবসময় মনে হয় কুয়াশাচ্ছন্ন। ধূলার যন্ত্রণায় অতিষ্ট সবাই। রাস্তায় চলাফেরা করা দায়। এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে সাতক্ষীরার খুলনা রোড থেকে ত্রিশ মাইল সড়কে।

প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের চলাচল এ সড়কটিতে। ভোমরা স্থলবন্দর থেকে পণ্য যাতায়াতের জন্য দিন-রাত পরিবহণ চলাচল করে সড়কটিতে। সড়কটিতে চলতে গেলে পথচারীদের শরীরে লাগছে ধূলাবালি। রোগাক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। ধূলার কাছে অসহায় হয়ে উঠেছেন সাধারণ পথচারীরা। ভোগান্তির পাশাপাশি পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শীতের রোগ-বালাই।

আর যাদের শ্বাসকষ্ট বা অ্যালার্জির সমস্যা তারা আরো বেশি সমস্যায় পতিত হচ্ছেন। পথচারী ও যানবাহন যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ। মটরসাইকেলে রাস্তায় চলতে গেলে গায়ের জামাকাপড় দ্বিতীয়বার পরার মত অবস্থা থাকেনা। শিশু-বৃদ্ধ ও অসুস্থরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন চরমভাবে। মাঝেমধ্যে রাস্তায় পানি ছিটানো হলেও সেই পানিতে সামান্য কাঁদা সৃষ্টি হয়ে তাতে পথচারীদের জামাকাপড় নষ্ট করে দিচ্ছে। যত্রতত্র রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি ও সংস্কারের কারণে বিরক্তিকর ধূলার এ রাম রাজত্ব বলে জানাচ্ছেন ভূক্তভোগীরা।

এছাড়া বিভিন্ন স্থানে নির্মাণ সামগ্রী পরিবহনে নিয়ম না মানায় এ অবস্থার সৃষ্টি বলে মন্তব্য সংশ্লিষ্টদের। প্রচুর ধূলাবালি জনস্বাস্থ্যের উপর ফেলছে ক্ষতিকর প্রভাব। ধূলা-বালিযুক্ত রাস্তা দিয়ে হাঁটলেই পরিধেয় কাপড়-চোপড় ও মালামাল ধূলায় ভরে যায়। যা পরিস্কার করতে সময় ও অর্থ নষ্ট হয় সংশ্লিষ্টদের। আবার এ কাজে অপচয় হয় পানি ও বিদ্যুতের। যথানিয়মে সড়ক পরিস্কার কার্যক্রম ও কার্যকর আইন থাকলে এ অবস্থা হতো না বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

অপরিকল্পিত খোঁড়াখুড়ি, সংস্কার কাজ ও উম্মুক্তভাবে নির্মাণ সামগ্রী পরিবহনের কারণে চতুর্দিকে ধূলার দাপট। চিকিৎসকদের মতে, এ ধূলাবালিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে শিশু ও বয়স্করা। তাদের মতে, ধূলা দূষণে চুলকানি, শ্বাসকষ্ট, ফুঁসফুসে ক্যান্সার, হাঁপানীসহ নানা জটিল ও কঠিন রোগের সৃষ্টি হতে পারে। সরেজমিনে দেখা গেছে, শহরের খুলনা রেড থেকে নগরঘাটা ত্রিশ মাইল মোড় পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে চলছে পুনরায় সংস্কার কার্যক্রম। এই সংস্কারে মানা হচ্ছেনা নিয়ম-নীতি। এমন অভিযোগ পথচারীদের।

দীর্ঘ সময় ধরে সংস্কার শেষ না হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। মিলবাজার, বিজিবি ক্যাম্প, তালতলা, ঋশিল্পী, বিনেরপোতা বিসিকসহ প্রায় পাঁচ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে ধূলার রাজত্ব চলছে। এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণপূর্বক শিঘ্রই যাতে রাস্তাটি সংস্কার করে সাধারণ যাত্রীদের জনদূর্ভোগ কমে তার জন্য ভুক্তভোগী অধিকাংশ পথচারিরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। 

পাঠকের মন্তব্য