আবারও জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে 

বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচনের পূর্বের সহিংসতা, ভোটের দিনের সহিংসতা এবং নির্বাচনের পরবর্তী সহিংসতার মধ্য দিয়ে আজ গোটা বাংলাদেশে একটা সহিংস ত্রাস এবং ভীতির নৈরাজ্য সৃষ্টি করা হয়েছে। আবারও ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  

ফখরুল বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। এই ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ ও প্রশাসন সম্পূর্ণভাবে গণশত্রুতে পরিণত হয়েছে।’ 

একদাশ জাতীয় নির্বাচনের ভোটের রাতে নোয়াখালীর সূবর্ণচর উপজেলায় গণধর্ষণের শিকার হয় এক গৃহবধু। তাকে দেখতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ নোয়াখালী যাওয়ার পথে শনিবার সকালে কুমিল্লার একটি রেস্টেুরেন্টে যাত্রা বিরতি করেন। সেখানে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল। 

বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচনের পূর্বের সহিংসতা, ভোটের দিনের সহিংসতা এবং নির্বাচনের পরবর্তী সহিংসতার মধ্য দিয়ে আজ গোটা বাংলাদেশে একটা সহিংস ত্রাস এবং ভীতির নৈরাজ্য সৃষ্টি করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমরা দেখেছি নোয়াখালীতে আমাদের একটি বোন ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষণসহ সারা বাংলাদেশের সহিংসতার আমরা নিন্দা জানাচ্ছি এবং জনগণের কাছে আমরা আহবান জানাই এই সহিংসতাকে তাদের প্রতিরোধ করা প্রয়োজন।

যাত্রা পথে এ সময় উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকী, বিএনপি নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ।

পাঠকের মন্তব্য