খেলাধূলার মাধ্যমে মাদক সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ নিয়ন্ত্রণ করা হবে

রেজাউল কবির রাজিব, টঙ্গী  :  যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, দেশের যুব সমাজকে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের মতো অনাচারগুলো থেকে দূরে রাখার জন্য খেলাধূলা হচ্ছে বড় একটি মাধ্যম। এই মাধ্যমকে ব্যবহার করে দেশের ৫ কোটি যুব সমাজকে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগানো হবে। প্রশাসনকে ব্যবহার করে যারা মাদকের রাজ্য গড়তে চায় তাদের আর রেহাই নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদক নিয়ন্ত্রণে জিরো টলারেন্স গ্রহণ করেছেন। 

মাদক বিক্রেতারা বন্ধু নয়, তারা সমাজের শত্রু। মাদক শত্রুদের চিরতরে নির্মুল করা হবে। গতকাল রবিবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ‘পুলিশ সেবা সপ্তাহ ২০১৯’ উপলক্ষে আয়োজিত টঙ্গী পূর্ব থানায় এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সরোয়ার বিন কাশেম, টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি কামাল হোসেন, পশ্চিম থানার ওসি এমদাদ হোসেন, গাছা থানার ওসি ইসমাইল হোসেন, টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক রজব আলী, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসাদুর রহমান কিরন, ৫৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন, ৪৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাদেক আলী, ৫৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন সরকার, ৪৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুল ইসলাম নূরু। 

অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, টঙ্গী আঞ্চলিক শ্রমিক লীগের সভাপতি মতিউর রহমান বি.কম, থানা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ জয়নাল আবেদীন, প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম খান, নিউওয়ার্ক ছাত্রলীগের সভাপতি হায়দার আলী, মহানগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আরিফুর রহমান পলাশ, টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এহসানুল আলম প্রমুখ। 

পুলিশের সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী আরো বলেন, যুব সমাজের অলস সময়টুকু খেলাধূলার কাজে লাগাতে পারলে তাদেরকে খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখা যাবে। পরিবারের একেকজন ভালো হয়ে গেলে সমাজের সবাই ভালো হয়ে যাবে। অপরকে ভালো রাখলেই, নিজে ভালো থাকা যাবে। আমাদের সমাজটাকে সুন্দর ভাবে গড়ে তোলার জন্য অন্যকে যেটা নিষেধ করবো আগে তা নিজের মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে। সমাজের ১৮ থেকে ৩৫ বছর পর্যন্ত ৫ কোটি মানুষ রয়েছে যুব সমাজ। 

এই যুব সমাজ বাংলাদেশকে আধুনিকভাবে গড়ে তোলার জন্য একটি শক্তিশালী মাধ্যম। আউট সোর্সিং এর কাজের মাধ্যমে বেকারত্ব মোচন করারও একটি হাতিয়ার। গার্মেন্টস শিল্পের চেয়েও আউট সোর্সিং অর্থ উপার্জনের জন্য এখন একটি বড় মাধ্যমে। এ মাধ্যমকেও কাজে লাগানোর জন্য তার মন্ত্রণালয় বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। 

মন্ত্রী রাসেল আরো বলেন, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীনে যে সব যুব অধিদপ্তর রয়েছে তা আলাদা করে একটা মন্ত্রণালয় করার টার্গেট রয়েছে। জেলা পর্যায়ের পর এ অর্থ বছরে উপজেলা পর্যায়ে আরো ২০০টি স্টেডিয়াম নির্মাণের টার্গেট নেয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার ওয়াইএম বেলালুর রহমান পুলিশের সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে বলেন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশী এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও জঙ্গীবাদের মতো কোন কাজ করতে দেয়া হবে না। 

পাঠকের মন্তব্য