আজিজের ৯১৯ কোটি টাকা পাচারের চাঞ্চল্যকর তথ্য

জাজ মাল্টিমিডিয়ার আজিজে ৯১৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বিদেশে পাচারের চাঞ্চল্যকর তথ্য উদঘানের মাস না পেরুতেই আরো প্রায় ১৯ কোটি টাকা (২৩ লাখ ৫০ হাজার ডলার) পাচারের তথ্য উদঘাটন করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। এবার উদঘাটিত অর্থপাচারে জড়িত বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান তৈরি পোশাক রফতানি সংশ্লিষ্ট।

বুধবার শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরে সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে ভয়াবহ এ অর্থপাচারে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মশওয়ার হোসিয়ারী মিলস প্রা: লিমিটেড, আসিয়ানা গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, অ্যাপারেল অপশনস প্রা: লিমিটেড, ফ্যাশন ক্রিয়েট লিমিটেড, ডি কে অ্যাপারেলস লিমিটেড, ক্যাপরী অ্যাপারেলস লিমিটেড, সাদ ফ্যাশস ওয়্যার লিমিটেড, লিলাক ফ্যাশনওয়্যার লিমিটেড ও নাব ফ্যাশন লিমিটেড।

এসব প্রতিষ্ঠান প্রাপ্যতার চেয়ে অতিরিক্ত পরিমাণ পণ্য আমদানি ও জাল বা ভূয়া এফওসি দলিলের মাধ্যমে পণ্য আমদানি দেখিয়ে প্রায় ১৯ কোটি টাকা পাচার করেছে।

তথ্যানুযায়ী, মিশওয়ার হোসিয়ারী মিলস প্রা: লিমিটেড ৫ লাখ ৪২ হাজার ৮৯৫ দশমিক ৫৬ মার্কিন ডলার, আসিয়ানা গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৬ লখ ৬৫ হাজার ৯৪৭ দশমিক ৫৮ মার্কিন ডলার, অ্যাপারেল অপশনস প্রা: লিমিটেড ৩১ হাজার ২০০ মার্কিন ডলার, ফ্যাশন ক্রিয়েট লিমিটেড ৮৬ হাজার ৩১ মার্কিন ডলার, ডি কে অ্যাপারেলস লিমিটেড ৩৯ হাজার ৬৬৫ ডলার, ক্যাপরী অ্যাপারেলস লিমিটেড ১ লাখ ৯৩ হাজার ৯৭ দশমিক ৭৭ ডলার, সাদ ফ্যাশস ওয়্যার লিমিটেড ১ লাখ ৯৯ হাজার ৫১৩ দশমিক ৮৫ ডলার, লিলাক ফ্যাশনওয়্যার লিমিটেড ৫ লাখ ৩৯ হাজার ৫৯৫ দশমিক ৬০ ডলার এবং নাব ফ্যাশন লিমিটেড ৫২ হাজার ৩৯৬ দশমিক ৮৭ মার্কিন ডলার বিদেশে পাচার করেছে।

জানা গেছে, বিপুল এ অর্থপচারের দায়ে ৯ প্রতিষ্ঠানের অন্তত ২৪ জনের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে পৃথক মামলা করবে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। ইতোমধ্যে মামলার সব প্রস্তুতি শেষও করা হয়ে। শিগগিরই মামলাগুলো দায়ের হবে।

এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে টাকা নিয়ে উধাও হয়ে যাচ্ছে। অনেক সময় দেখা যাচ্ছে ব্যাংকের টাকা লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। আমার কাছে ১০ থেকে ১২টি মানি লন্ডারিং মামলার তথ্য রয়েছে। সেগুলোকে যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আইনের মুখোমুখি করা হবে। টাকা পাচার রোধে এনবিআর, বাংলাদেশ ব্যাংক, দুদক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্ব রয়েছে। অথপাচারকারীদের সব তথ্য উদঘাটন করা হবে।

এরআগে ৯১৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা পাচারের অভিযোগ জাজ মাল্টিমিডিয়ার আজিজের মালিকানাধীন ক্রিসেন্ট গ্রুপের ৩টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। এসব মামলায় আজিজের ভাই এম এ কাদেরকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য