দেশের তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত

দেশের তিন জেলা ময়মনসিংহ, কুমিল্লা ও কক্সবাজারে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দুইজন ডাকাত দলের সদস্য ও একজন মাদকব্যবসায়ী বলে জানিয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, নগরীর ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাত ১টার দিকে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম আব্দুর রশিদ (৫০)। পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামল আকন্দ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গভীর রাতে ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড এলাকার হোমিওপ্যাথি মেডিকেল কলেজ মাঠে মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক ভাগাভাগি করছে খবর পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রথমে পুলিশের ওপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ পরে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে গুলিবিদ্ধ আব্দুর রশিদকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে কুমিল্লার তিতাসে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মো. আল-আমিন নামে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে জেলার তিতাস উপজেলার ঝড়িকান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, একটি এলজি ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। নিহত আল-আমিন ওই উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামের মাঈনুদ্দিনের ছেলে।

তিতাস থানা পুলিশের ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ আহসানুল ইসলাম জানান, ডাকাতদের একটি গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে আল-আমিনের ওপর পড়ে। এতে সে আহত হয়। এ সময় আমরা তাকে প্রথমে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এছাড়া কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নুরুল আলম (৩৫) নামে এক রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে টেকনাফের দমদমিয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ সময় দুটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগজিন ও ১৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, রাতে র‌্যাবের একটি টহল দল টেকনাফ দমদমিয়া এলাকায় কিছু লোককে চ্যালেঞ্জ করলে তারা অতর্কিত র‌্যাবের ওপর গুলিবর্ষণ করে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। ২৫ থেকে ৩০ মিনিট ধরে চলে দুই পক্ষের গোলাগুলি। এ সময় অন্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।

পাঠকের মন্তব্য