বুড়িগঙ্গায় লঞ্চের ধাক্কায় নৌকাডুবি, নিখোঁজ ৬ জন

রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চের ধাক্কায় নৌকা ডুবে নিখোঁজ হওয়া একই পরিবারের ছয়জনের কাউকে এখনো পাওয়া যায়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আজ শুক্রবার সকাল সোয়া নয়টা পর্যন্ত কাউকে উদ্ধারের তথ্য পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ পরিবারটির মধ্যে ছয় মাস থেকে আট বছর বয়সী তিন শিশু রয়েছে। লঞ্চের পাখার আঘাতে ওই পরিবারের সদস্য শাহজালালের দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। 

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পোশাকশিল্প শ্রমিক শাহজালাল মিয়া (৩৮) তার স্ত্রী, দুই মেয়ে, ভাগনি, ভাগনি জামাই ও ভাগনির ছয় মাস বয়সী শিশুসন্তান নিয়ে কেরানীগঞ্জের কালীগঞ্জ থেকে নৌকায় করে রওনা দিয়েছিলেন। সদরঘাটে কাছাকাছি পৌঁছালে সুরভি-৭ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় নৌকাটি ডুবে যায়।

এতে নিখোঁজ হন শাহজালালের স্ত্রী সাহিদা বেগম (৩২), দুই মেয়ে মিম (৮) ও মাহী (৬), শাহজালালের ভাগনি জামসিদা বেগম (২০), ভাগনি জামাই দেলোয়ার হোসেন (২৮) ও তাদের ছয় মাস বয়সী সন্তান জুনায়েদ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনার সময় লঞ্চের পেছনে থাকা পাখার আঘাতে শাহজালালের দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়। পাশেই থাকা নৌ 

পুলিশের একটি টহলদল শাহজালালকে উদ্ধার করে মিটফোর্ড হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। সদরঘাট নৌ থানার উপপরিদর্শক শহিদুল ইসলাম জানান, রাত থেকে উদ্ধার অভিযান চলছে।

তবে এখন পর্যন্ত নিখোঁজ কাউকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। 

পাঠকের মন্তব্য