অস্ত্রবতার আগমনে মানবতার বিলুপ্তি 

ফেসবুক স্টাটাস: পুঁজিবাদ, কর্তৃত্ববাদ ও লুটেরা সামন্তবাদের রক্তপানে বিধ্বস্ত মানবতা। ডেমোক্রেসির গুরুদের বোমা গণতন্ত্র। সাম্প্রদায়িক ব্যবসায়ীদের হাতে বিপন্ন ধর্ম। সবার অন্তর থেকে একই ধ্বনি উত্থিত হচ্ছে:চাই চাই আরো চাই।রক্তগঙ্গা ভেসে যায়,উপচে পড়ে দেশ দেশান্তর থেকে জনপদ।বোমা মেরে অকাতরে মানুষ মেরে হলেও নিজেদের মনগড়া কর্তৃত্ববাদ চাপিয়ে দিতে চাই দুর্বলের উপর।দুর্বলরা সংখ্যায় হয়ে যায় সংখ্যালঘু।

এ সংখ্যাতত্বে চলে শোষণ ও নির্যাতন ও হত্যাযজ্ঞের ষ্টীমরোলার।তথ্য-প্রযুক্তি এবং বিশ্বায়নের যুগে পুঁজিবাদীরা সাম্প্রদায়িক হত্যাযজ্ঞে,বেছে নিয়েছে ধর্মীয় উপসানালয়।শান্তির দেশ নিউজিল্যান্ডে ক্রাইস্ট চার্জের মসজিদে ঘটে গেল জঘন্যতম হত্যাযজ্ঞ।এই ঘটনাকে মুসলিম নিধম বলছি।

খ্রিষ্টানদের দায়ী করছি, রোহিঙ্গা নিধনে বৌদ্ধদের।দায়ী করাটা অনর্থক নয়।ভাববেন কি:সাদ্দাম, ল্যাদেন, গাদ্দাফীকে কারা হত্যা করেছে?

ইরাক,ইরান,সিরিয়া,লিবিয়া,মিসর,আফগানিস্থান ও পাকিস্থানের মসজিদ ও জনপদ গুলোতে বোমা মেরে কারা হত্যা করছে মানুষ? এভাবে মানুষ হত্যা কোন ধর্ম'ই স্বীকৃতি দেয় না। উগ্র, জঙ্গী ও সন্ত্রাসীদের নেই কোন দেশ ও ধর্ম। এরা, বিশ্বশান্তি ও মানবতার শত্রু।

ফেসবুক স্টাটাস লিঙ্ক 

পাঠকের মন্তব্য