প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধের ৪৮তম বার্ষিকী আজ

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে ‘প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ’ এর ৪৮তম বার্ষিকী, ঐতিহাসিক ১৯ মার্চ আজ।

১৯৭১ সালের এই দিনে জয়দেবপুরে বীর জনতা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর গুলির জবাব দিয়েছিল পাল্টাগুলি ছুঁড়ে। ‘প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধে’সেদিন শহীদ হয়েছিলেন নিয়ামত, মনু খলিফা, হুরমত আলী ও কানু মিয়া। আহত হয়েছিলেন অসংখ্য জনতা। জয়দেবপুরের এই প্রতিরোধ স্বাধীনতা যুদ্ধের জন্য হয়ে উঠেছিল বিশাল প্রেরণার। সারাদেশে স্লোগান উঠেছিল ‘জয়দেবপুরের পথ ধর, সোনার বাংলা স্বাধীন কর।’

দিনটি গাজীপুরবাসীর নিকট বড় গৌরবের। তাই প্রতি বছরই গাজীপুরবাসী দিনটিকে গর্বভরে স্মরণ করেন।

ঢাকা-ময়মনসিংহ -টাঙ্গাইল-গাজীপুর মহাসড়কের মিলনস্থল চান্দনা চৌরাস্তায় মুক্তিযোদ্ধার প্রতীক (এক হাতে রাইফেল অপর হাতে গ্রেনেড) মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ভাস্কর্য ‘জাগ্রত চৌরঙ্গী’ আজো গাজীপুরবাসীর বীরত্বের মূর্ত প্রতীক হয়ে আছে।

দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আজ নানা কর্মসূচি পালন করছে। সকালে গাজীপুর সার্কিট হাউজ প্রাঙ্গণে স্থাপিত ভাস্কর্য ‘অনুপ্রেরণা ১৯-এ পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে কর্মসূচী পালন। বিকেল সাড়ে ৪টায় শহীদদের কবর জিয়ারত, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঐতিহাসিক রাজবাড়ি মাঠে প্রতিরোধযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী ১৯ জন বীরকে সংবর্ধনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন রয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি।

পাঠকের মন্তব্য