গুলশান-বনানীসহ গোটা রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার

২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ও আন্তর্জাতিক পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে কূটনৈতিক পাড়া খ্যাত গুলশান-বনানীসহ গোটা রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গুলশান বনানীতে অতিরিক্ত নিরাপত্তা চৌকিতে বসিয়ে চলছে তল্লাশি।

রোববার বিকাল থেকে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তায় কড়াকড়ি আরোপ করা হয়।

কূটনৈতিক পাড়া গুলশান-বনানী এলাকার নিরাপত্তা বাড়ানোর পাশাপাশি গুলশানে ঢোকার সড়ক বন্ধ করে দিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। প্রতিটি প্রবেশ মুখে নিখুঁতভাবে তল্লাশি করা হচ্ছে প্রতিটি যানবাহন। এছাড়াও পথচারী কাউকে সন্দেহ হলে তাকেও তল্লাশি করা হচ্ছে।

এদিকে গুলশান ক্লাবেও নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। গুলশান ক্লাবের সদস্যসদের নিরাপত্তার জন্য সতর্কতা জারি করেছে পুলিশ।

গুলশান ক্লাবের সিনিয়র ম্যানেজার (প্রশাসন) নুরুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ডিএমপি থেকে আমাদের ক্লাবের সদস্যদের নিরাপত্তার বিষয়ে পূর্ব সতর্কতা দেওয়া হয়। এর পর, আমরা আমাদের সম্মনিত সদস্যদের এই বার্তা পৌঁছে দেই।

তিনি বলেন, পুলিশের সতর্কতা অনুযায়ী ক্লাবের মাঠে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

নুরুল আলম বলেন, ডিএমপি আমাদের সহযোগিতা করছে। আমরা এই বিষয়ে বিস্তারিত কোনো কিছু জানতাম না, তবে ক্লাবের সামনে চেক পোস্টে পুলিশের অতিরিক্ত কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে।

গুলশান থানার ওসি মো. আবু বকর সিদ্দিক বলেন, বিশ্বে চলমান সহিংসতা ও ২৬ শে মার্চ উপলক্ষে কূটনৈতিক পাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে গুলশান ক্লাবেও ওই এলাকায় টহলরত ডিউটি অফিসার পরিদর্শনে যায়। তবে সে বলতে গিয়ে অতিরিক্ত নিরাপত্তার কথা বলে ফেলেছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান বলেন, নিউজিল্যান্ডে হামলার পর এমনিতেই কূটনৈতিক পাড়ায় নিরাপত্তা জোরদার ছিল। ২৬ মার্চ উপলক্ষে সেই নিরাপত্তার সঙ্গে বাড়তি নিরাপত্তা যোগ করা হয়েছে। একই সঙ্গে রাজধানীর অন্যান্য স্থানেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে কূটনৈতিকদের নিজ আবাসস্থল থেকে উন্মুক্ত লোকালয়ে চলাফেরায় নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে জানতে চাইলে ডিসি মাসুদ বলেন, সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে, যাতে কোনো কিছু না ঘটে। তার মানে এই নয় যে, থ্রেট আছে। সবাইকে নিরাপত্তা দেওয়া পুলিশের কাজ।

অন্যদিকে, ডিএমপির ডিপ্লোমেটিক বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) হায়াতুল ইসলাম খান জানান, হুমকি থাকায় রোববার দুপুরের পর থেকেই ডিপ্লোমেটিক জোনের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। ঊর্ধ্বতন পর্যায় থেকে জরুরি নির্দেশনা এসেছে- নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে।

তিনি বলেন, তাই আগের তুলনায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা জোরদার করার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। আমরা অতিরিক্ত সতর্কতায় রয়েছি। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য