সমরাস্ত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী

মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীর অবদান ও বীরত্বাগাঁথা

বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সম্মিলিত সমরাস্ত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সম্মিলিত সমরাস্ত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সম্মিলিত সমরাস্ত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (২৪ মার্চ) বিকেলে রাজধানীর পুরাতন বিমানবন্দরের জাতীয় প্যারেড স্কোয়ারে ফিতা কেটে, বেলুন উড়িয়ে ৭ দিনব্যাপী সমরাস্ত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

উদ্বোধন শেষে বিমানবাহিনীর ৬টি যুদ্ধবিমানের চিত্তাকর্ষক অ্যারোমেটিক শো উপভোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২০ সদস্যের একটি টিম হেলিকপ্টার থেকে প্যারা জাম্পিংয়ে অংশ নেয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখেন এবং সমরাস্ত্র পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে প্রধানমন্ত্রীকে স্টলগুলো ও সমরাস্ত্রের পরিচিতিমূলক ব্রিফিং দেওয়া হয়। মহান মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীর অবদান ও বীরত্বাগাঁথা, বর্তমান সরকারের বিগত ১০ বছরে সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়ন, আধুনিকায়ন, দেশ ও জাতি গঠনে সশস্ত্র বাহিনীর ভূমিকা এবং জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের সশস্ত্র বাহিনীর অবদান সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ওপর নির্মিত ৪টি পৃথক স্টল পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সংসদ সদস্য, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক মিশনের প্রধান এবং পদস্থ সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী প্রদর্শনী স্থলে এসে পৌঁছালে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল আবু মোজাফ্‌ফর মহিউদ্দিন মোহাম্মদ আওরঙ্গজেব চৌধুরী, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. মাহফুজুর রহমান তাকে অভ্যর্থনা জানান।

আগামী ২৬ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য সমরাস্ত্র প্রদর্শনী উন্মুক্ত থাকবে। অপর দিকে ৩০ মার্চ দুপর ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫ পর্যন্ত সর্বসাধারণের পাশাপাশি স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী এবং ৩১ মার্চ দুপর ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের পরিবারবর্গ ও তিন বাহিনী পরিচালিত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য সমরাস্ত্র প্রদর্শনী উন্মুক্ত থাকবে।

পাঠকের মন্তব্য