নির্বাচনী মালামাল ছিনতাইয়ের চেষ্টা করলে ওপেন ফায়ার

কমিশনার (ইসি) রফিকুল ইসলাম

কমিশনার (ইসি) রফিকুল ইসলাম

চলমান উপজেলা নির্বাচনে কেউ জানমালের ক্ষতি করার চেষ্টা করলে কোনোরকম দ্বিধাদ্বন্দ্ব না করে গুলি ছোড়ার নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) রফিকুল ইসলাম  

আজ (বুধবার) সকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ নির্দেশ দেন। এ সময় নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেছেন, উপজেলা নির্বাচনে যদি কেউ কোনো রকম ঝামেলা তৈরি করার চেষ্টা করে তাহলে কারো দিকে না তাকিয়ে জেলে ঢোকানো হবে। যদি কেউ নির্বাচনী মালামাল ছিনতাই করার চেষ্টা করে, ওপেন ফায়ার।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া। অনুষ্ঠানের শুরুতে সংশ্লিষ্ট  থানার ওসি ও ইউএনওরাও বক্তব্য দেন।

সোনারাগাঁও, রূপগঞ্জ এবং আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) দাবির প্রেক্ষাপটে অতিরিক্ত বিজিবি, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করার নির্দেশ দেন নির্বাচন কমিশনার। এখানকার চরাঞ্চলে তিনটি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের জন্য একজন অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং কোস্টগার্ড এবং নৌ পুলিশ দেয়ারও নির্দেশনা দেন।

সভায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, কে কোন মার্কা, কে কোন দলের, কে এমপির প্রার্থী আর কে মন্ত্রীর প্রার্থী তা আমাদের দেখার সুযোগ নেই। সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচনী পরিবেশ নিশ্চিত করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। এর মাধ্যমেই জনগণ তার পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নেবে। ৩১ মার্চের নির্বাচনে কোনো এমপি, কোনো মন্ত্রী, কোনো গডফাদারের পরিচয় দিয়ে ভোট পাওয়ার কোনো সুযোগ থাকবে না। আমরা সবাই সম্মিলিতভাবে কাজ করছি।

পাঠকের মন্তব্য