ইরানের সম্প্রচার পার্সটুডের পেইজ-অ্যাকাউন্ট বন্ধ 

পার্সটুড

পার্সটুড

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটার ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সম্প্রচার সংস্থার (আইআরআইবি) বিশ্বকার্যক্রমের ওয়েবসাইট পার্সটুডে ডটকমের বাংলাসহ সবগুলো ভাষার ওয়েবসাইটের ফ্যানপেইজ ও অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। এ পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আইআরআইবি বিশ্বকার্যক্রম কর্তৃপক্ষ।

এক বিবৃতিতে আইআরআইবি বিশ্বকার্যক্রম বলেছে, গতকাল ফেসবুক ও ২০ মার্চ টুইটার কর্তৃপক্ষ তাদের যোগাযোগ মাধ্যমে পার্সটুডে বাংলাসহ আইআরআইবি বিশ্ব-কার্যক্রমের বহু পেইজ, গ্রুপ ও অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। ইরানের এসব সংবাদ-মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করে দেয়ার পেছনে কিছু অসত্য তথ্য ও অজুহাত তুলে ধরেছে ওই দু'টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, এই অ্যাকাউন্টগুলো ছিল ভুয়া যেগুলো ইরানের ওই সংবাদ-মাধ্যম বা মিডিয়াগুলোর প্রতিনিধিত্ব করে না!

ইরানের সম্প্রচার সংস্থার বিশ্ব-কার্যক্রম কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে ওই দুই যোগাযোগ মাধ্যমের এসব পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়ে বলেছে, এসব পদক্ষেপ অন্যায্য বাধা ও সেন্সরশিপের সুস্পষ্ট দৃষ্টান্ত। এছাড়াও এসব পদক্ষেপ বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সত্য ও বাস্তবতার প্রচার এবং বিভিন্ন ধরনের মতামত প্রচারকে ঠেকানোর জ্বলন্ত দৃষ্টান্ত। স্বাধীন সংবাদ-মাধ্যমগুলোর কণ্ঠ রুদ্ধ করে দেয়ার এসব পদক্ষেপের পেছনে ওই দু'টি সামাজিক মাধ্যম-কর্তৃপক্ষের প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত বা মার্কিন সরকার ও তার মিত্রদের ক্ষমতাধর রাজনৈতিক, সামরিক ও পুঁজিপতি মহলের চাপের মত বাইরের নানা চাপের প্রভাব থাকতে পারে বলে ওই বিবৃতিতে বলা হয়।

এতে আরও বলা হয়েছে, তাদের এসব পদক্ষেপের কারণ যাই হোক না কেন এসব পদক্ষেপ অবাধ তথ্য-প্রবাহ ও সংবাদ-মাধ্যমের স্বাধীনতার যুগে এক বড় রাজনৈতিক কলঙ্ক ও মিডিয়ার জগতের এক বড় বিপর্যয়। বাক-স্বাধীনতা ও সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার দাবিদার এ দুই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সাম্রাজ্যবাদী ও কায়েমি স্বার্থবাদী মহলের পক্ষ হয়ে মিডিয়া-ইথিকস বা সংবাদমাধ্যম জগতের মূল্যবোধ ও নৈতিক নীতিমালার বিরোধী এসব পদক্ষেপ নিয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

গতকাল ২৬ মার্চ ফেসবুক কর্তৃপক্ষের এক ঘোষণায় জানানো হয় যে, তারা সংঘবদ্ধ 'অবৈধ' আচরণের দায়ে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে দুই হাজার ৬৩২টি পেইজ, গ্রুপ ও অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। এসব অবৈধ আচরণ ইরান, রাশিয়া, ম্যাসিডোনিয়া এবং কোসোভোর সঙ্গে সম্পর্কিত।

পাঠকের মন্তব্য