ভূরুঙ্গামারীতে মাদ্রাসার শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতন 

ভূরুঙ্গামারী

ভূরুঙ্গামারী

মোঃ আব্দুল জলিল সরকার, ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : ভূরুঙ্গামারীর আন্ধারীঝাড় নীলমাহমুদের কুটি হালিমাতুজ ছাদিয়া (রাঃ) আনহু বালিকা মাদ্রাসার পরিচালক(শিক্ষক) রাকিবুল ইসলাম রাকিব(২৬) কর্তৃক এক ছাত্রীকে অজ্ঞান করে পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী চিৎকার করলে ধর্ষকের মাথায় থাকা পাগড়ী দিয়ে মুখ বেঁধে পাশবিক নির্যাতন চালায়।  জানা যায়, গত শুক্রবার রাতে ওই মাদ্রাসার  কিতাব বিভাগের এক ছাত্রীকে মাটিকাটার কাজে ডেকে নিয়ে জোরপুর্বক পাশবিক নির্যাতন করলে মেয়েটি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরের দিন সকালে তার জ্ঞান ফিরলে সে বান্ধবীদের রাতের ঘটনা বলে দেয়। সহপাঠিরা সেদিন  বিকালে তার অভিভাবকদের ঘটনাটি জানায়। তার পিতা মমিনুল ইসলাম বিষয়টি জানার পর ঢাকা থেকে বাড়িতে এসে গন্যমান্যদের বিচার প্রার্থী হলে  উক্ত ধর্ষক টের পেয়ে গা ঢাকা দেয়। বিচার না পেয়ে  ও মেয়েটির অসুস্থতা ক্রমশঃ বৃদ্ধি পাওয়ায় বুধবার ভূরুঙ্গামারী হাসপাতালে ভর্তি করায় এবং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের  করে। 

কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শাহাদুজ্জামান জানান, আমাদের নার্স দিয়ে প্রাথমিক পরীক্ষায় মেয়েটিকে নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া গেছে । বর্তমানে  মহিলা ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে। এ ব্যাপারে ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির জানান, অভিযোগ পেয়েছি,এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। উক্ত রাকিবুল ইসলাম  উপজেলার আন্ধারীঝাড় ইউনিয়নের নীলমাহমুদেরকুটি গ্রামের সাইফুল ইসলামের পুত্র এবং আরও একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন বলে এলাকাবাসী জানান।  এলাকাবাসী ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেছেন। 

পাঠকের মন্তব্য