আগামীতে ‘যুব বান্ধব বাজেট চাই’  : যুবলীগ চেয়ারম্যান 

মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেছেন, ‘আগামী বাজেটকে যুব বান্ধব বাজেট হিসেবে দেখতে চাই। যে বাজেটে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার দর্শন জনগণের ক্ষমতায়নের প্রতিফলন ঘটবে।’ 

তিনি বলেন, প্রতিটি মন্ত্রণালয়ের বাজেটে যুব সমাজের জন্য আলাদা খাত থাকতে হবে।’ যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, বাজেট যেন মন্ত্রণালয় কেন্দ্রিক না হয়, জনকেন্দ্রিক হয় সেটিই আমাদের কাম্য।’

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, ‘এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের অঙ্গীকার ছিলো-জেন্ডার বাজেটের আলোকে যুব বান্ধব বাজেট। নির্বাচনী ইশতেহারের অঙ্গীকারের বাস্তবায়ন দেখতে চায় দেশের যুব সমাজ। নির্বাচনী ইশতেহারে যুব কর্মসংস্থান সৃষ্টি, যুব উদ্যোক্তাদের জন্য বিনা জামানতে ঋণের যে অঙ্গীকার ছিল তার বাস্তবায়ন চাই।’

ওমর ফারুক আরও বলেন, বাজেট একটি সরকারের রাজনৈতিক ম্যান্ডেটের অর্থনৈতিক প্রতিফলন। কোন খাতে কেমন বরাদ্দ তার ওপর সরকারের অগ্রাধিকার প্রতিফলিত হয়। বাংলাদেশ তরুণ যুবকদের দেশ। যুবসমাজ দেশের মূল্যবান সম্পদ। বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ যুবসমাজ, যা প্রায় ৫ কোটি ৩০ লাখ। 

‘সোনার বাংলা’র স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রধানতম শক্তি হচ্ছে যুবশক্তি। তাই আসন্ন বাজেটে যুবকদের জন্য আর্থিক বরাদ্দ বাড়াতে হবে। প্রাক-বাজেট ভাবনায় ও বাজেট প্রণয়ন প্রক্রিয়ায় যুবকদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। বাজেটে যুবকদের সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন, যাতে তারা তাদের চাওয়া-পাওয়া তুলে ধরতে পারে। আশা করি, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার তা করবে। 

মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছে, যুব উন্নয়নে আমাদের অগ্রাধিকার যুবদের মানসম্মত শিক্ষা, দক্ষতা বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান, শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য, সুস্থ বিনোদনের ব্যবস্থা, রাজনৈতিক ও নাগরিক ক্ষমতায়ন এবং সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত যুব সমাজ। 

তরুণদের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণা করার জন্য গঠন করা হবে যুব মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ‘যুব গবেষণা কেন্দ্র’। আশা করি সরকার এখনই সে কাজের অগ্রাধিকার দেবে।

পাঠকের মন্তব্য